১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশের হয়ে আফ্রিদির ব্যাট

বাংলাদেশের হয়ে আফ্রিদির ব্যাট
  • প্রসঙ্গ অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের সফর স্থগিত

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ সফর স্থগিত করায় অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলকে একহাত নিলেন তুখোড় পাকিস্তানী তারকা শহীদ আফ্রিদি। নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে শেষ মুহূর্তে আচমকা সফর স্থগিত করে অসিরা। এরপর দক্ষিনণ আফ্রিকা প্রমীলা দলও একই পথ ধরে, পরিস্থিতি দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন পাকিস্তান ক্রিকেটের সর্বশেষ স্বীকৃত তারকা। ঠুনকো ঘটনায় নাক উঁচু অস্ট্রেলিয়ানদের বিপক্ষে গোটা উপমহাদেশকেই এক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আফ্রিদি। বাংলাদেশের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় যারপরনাই অবাক তিনি। জিম্বাবুইয়ে থেকে ২-০তে সিরিজ জিতে বর্তমানে করাচিতে ফিরে এসেছেন পাকিস্তান টি২০ অধিনায়ক। সেখানেই সফররত বাংলাদেশ প্রমীলা দলের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত শেষে সংবাদ মাধ্যমকে এ বিষয়ে নিজের মতামত ব্যক্ত করেন তিনি।

আফ্রিদি বলেন, নিরাপত্তা অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু এই সামান্য অজুহাতে সফর বাতিল করার কোন মানে হয় না। আমাদের (উপমহাদেশের দলগুলোর) মধ্যে একতা সৃষ্টি করতে হবে। নিরাপত্তা নিয়ে অন্যান্য দেশের ভয়কে কাটিয়ে ওঠার ব্যবস্থা করতে হবে। কষ্টটা আমি তীব্রভাবে অনুভব করি। কারণ, দলগুলো গত কয়েক বছরে পাকিস্তান সফর বাতিল করায় আমাদের অনেক দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে। এমনকি ঢাকায় অসিদের লাগেজ পর্যন্ত চলে এসেছিল। কিন্তু ইতালিয়ান নাগরিকের খুন হওয়ায় আচমকা সফর স্থগিত করে দেয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। সেদিকে ইঙ্গিত করেই একথা বলেন পাকিস্তানী তারকা।

প্রমীলা ক্রিকেট দল পাকিস্তান সফর করায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডেরও (বিসিবি) প্রশংসা করেন ৩৫ বছর বয়সী আফ্রিদি। বিসিবিকে বিশেষ ধন্যবাদ। এটা দারুণ উদ্যোগ। আশা করছি এর পর সাকিব-মুশফিকরাও পাকিস্তানে আসবে। ইতালিয়ান নাগরিকের খুন হওয়াকে ‘সামান্য’ বলে উল্লেখ করেন তিনি। ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের ওপর বন্ধুকধারীদের হামলার পর গত ছয় বছর পাকিস্তানের মাটিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিষিদ্ধ ছিল। দুমাস আগে জিম্বাবুইয়ে প্রথম দল হিসেবে সেখানে খেলে আসে, এর পর সালমা খাতুনদের এই সফর। বিসিবির প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন আফ্রিদি। ঠিক একইভাবে কদিন আগে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রধান শাহরিয়ার খানও অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর স্থগিতকে ‘অতিমাত্রায় বাড়াবাড়ি’ বলে উল্লেখ করেন।

পিসিবি প্রধান বলেন, এক ইতালিয়ান নিহত হওয়ায় সফর স্থগিত হতে পারে, এমনটা আমি কল্পনাও করতে পারি না। আরে বিভিন্ন সন্ত্রাসী ঘটনায় গত ছয় বছরে আমাদের পাকিস্তানে তো ৫০ হাজারের ওপর মানুষ মারা গেছে! এর পরও জিম্বাবুইয়ে খেলে গেছে, বর্তমানে খেলছে বাংলাদেশ নারী দল। বাংলাদেশ তো পরীক্ষিতভাবেই অনেক নিরাপদ। মূল কথা, সফরকারীদের নিরাপত্তা। তারা সেটি দিতে সক্ষম। টি২০ বিশ্বকাপের পর এ বছর পাকিস্তান-ভারত, এমনকি দক্ষিণ আফ্রিকাও নির্বিঘেœ বাংলাদেশ সফর করে এসেছে। অসিদের এই সিদ্ধান্তকে আমার কাছে অতিমাত্রায় বাড়াবাড়ি বলেই মনে হচ্ছে। উল্লেখ্য, ২৮ সেপ্টেম্বর সোমবার ঢাকায় পা রাখার কথা ছিল স্টিভেন স্মিথের নেতৃত্বাধীন অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের। সেদিনই সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানে দুর্বৃত্তের গুলিতে ইতালীয় নাগরিক তাভেলা নিহত হন।

অপরীক্ষিত এক সাইট থেকে ওই হত্যার দায় শিকার করে ইসলামিক জঙ্গী গোষ্ঠী আইএস। অবশ্য খোদ বাংলাদেশে অবস্থিত ইতালিয়ান হাইকমিশন থেকেই ওই শিকারোক্তিকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেয়া হয়। অথচ সেটিকেই পুঁজি করে সফর স্থগিত করে অস্ট্রেলিয়া!