১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বরিশালে ২ ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিলগালা, তিনজনের জেল

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ গৌরনদী উপজেলা হাসপাতালের সামনে ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলোতে ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা নামসর্বস্ব ডায়াগনস্টিক ও প্যাথলজি সেন্টারে অভিযান চালিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় প্রশিক্ষণবিহীন অদক্ষ টেকনোলজিস্ট দিয়ে সেন্টার পরিচালনা ও কাগজপত্র না থাকায় দুটি সেন্টার সিলগালা, একটি সেন্টারের মালিকসহ দুই কর্মচারীকে ৭ দিনের কারাদ- এবং একটি ক্লিনিক থেকে জরিমানার নগদ অর্থ আদায় করা হয়েছে। বুধবার সকালে দ-প্রাপ্তদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

পুলিশ জানায়, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানিয়া আফরোজ মঙ্গলবার বিকেলে একদল পুলিশ নিয়ে উপজেলা হাসপাতালের সামনে ও শাওড়া এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে ওঠা ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও প্যাথলজিক্যাল ল্যাবে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় অবৈধ সেন্টার ও ল্যাবের মালিকরা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে পালিয়ে যায়। পুলিশ ধাওয়া করে আসফিয়া প্যাথলজিক্যাল ল্যাবের মালিক আনোয়ার হোসেন, শাফলা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কর্মচারী সীমা আকতার (২০) ও মিঠুকে (২০) আটক করে।

প্রশিক্ষণবিহীন অদক্ষ টেকনলজিস্ট দিয়ে সেন্টার ও ল্যাব পরিচালনা এবং লাইসেন্স না থাকায় তাৎক্ষণিক ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারকের উপস্থিতিতে ওই দুটি প্রতিষ্ঠান সিলগালা করা হয়। এছাড়া অপরিষ্কারের জন্য শাওড়া নাহার সিনেমা হলের সামনের মৌরি ক্লিনিক থেকে নগদ ৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। একই দিন সন্ধ্যায় আকটকৃতদের ৭ দিনের কারাদ-ের রায় ঘোষণা করা হয়। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, হাসপাতালের অধিকাংশ মুনাফালোভী চিকিৎসকরা কমিশন বাণিজ্যের নামে রোগীদের জিম্মি করে আর্থিকভাবে হয়রানির উদ্দেশে প্রতিটি রোগীকে পরীক্ষা-নিরীক্ষার (টেস্ট) নামে ওইসব ভুয়া ডায়াগনস্টিক ও প্যাথলজি সেন্টারে পাঠাতে বাধ্য করছেন। চিকিৎসকদের পছন্দসই সেন্টার থেকে টেস্ট না করালে আবার রোগীর সঙ্গে চিকিৎসকরা চড়াও হয়ে অসৌজন্যমূলক আচারণ করছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। ওইসব চিকিৎসকদের নেপথ্য ইন্ধনের কারণেই হাসপাতালের সামনে ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় প্রায় অর্ধশতাধিক অবৈধ সেন্টার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, যার পরিচালনায় রয়েছেন স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তি।

স্থানীয়রা সাধারণ রোগীদের আর্থিক হয়রানি থেকে মুক্ত করতে হাসপাতালের কতিপয় মুনাফালোভী চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনার জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্মকর্তাদের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন।

রাবিতে সাহিত্য পুরস্কারের জন্য বই আহ্বান

রাবি সংবাদদাতা ॥ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) থেকে প্রকাশিত সাহিত্য পত্রিকা চিহ্ন’র উদ্যোগে আগামী মার্চ মাসে ‘চিহ্নমেলা বিশ্ববাঙলা-২০১৬’ অনুষ্ঠিত হবে। এ মেলায় সাহিত্যের সৃজনশীল ও মননশীল শ্রেণীতে দু’জন সাহিত্যিককে পুরস্কৃত করা হবে। এ পুরস্কারের জন্য লেখকদের কাছ থেকে বই ও বিবরণ আহ্বান করা হয়েছে।

বুধবার দুপুর ১২টায় রাবির ডিনস কমপ্লেক্সের শিক্ষক লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, ২০১৬ সালের মার্চে রাবির শহীদুল্লাহ কলাভবন চত্বরে দুই দিনব্যাপী ‘চিহ্নমেলা বিশ্ববাঙলা-২০১৬’ অনুষ্ঠিত হবে। পৃথিবীর যে কোন লেখক-সম্পাদক-পাঠক এ বৈশ্বিক সম্মিলনে বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে। মেলার তারিখও কিছু দিনের মধ্যে সবাইকে জানানো হবে বলে এখানে জানানো হয়। সম্মেলনে আরও জানানো হয়, এই মেলায় সাহিত্যের সৃজনশীল ও মননশীল শ্রেণীতে দু’জন সাহিত্যিককে চিহ্ন পুরস্কার-২০১৬ হিসেবে নগদ ২৫ হাজার টাকা ও একটি সম্মাননা সনদ প্রদান করা হবে। পুরস্কারের জন্য ৩১ জানুয়ারি ২০১৬ পর্যন্ত শহীদ ইকবাল, ১৩০ শহিদুল্লাহ কলাভবন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়; ঠিকানায় বই ও বিবরণ পাঠানো যাবে।