২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দুই বিদেশীর খুনীদের চিহ্নিত করতে বিশেষ অভিযানের প্রস্তুতি

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ সরকারের নীতি নির্ধারক মহলের নির্দেশে রাজধানী ঢাকাসহ দেশব্যাপী ব্যাপক বিশেষ অভিযান পরিচালনার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। এজন্য দুই বিদেশী খুনীচক্রের সদস্য শনাক্ত, দুর্বৃত্ত, সন্ত্রাসী, অপরাধী ও জঙ্গী দমনে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য তালিকা তৈরি করা হয়েছে। সরকারের কাছে ঢাকার কূটনীতিকরা নিরাপত্তা দাবি করার পরিপ্রেক্ষিতে এবং ভারতের গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনে বিএনপি-জামায়াত জড়িত থাকার সন্দেহ করায় রাজধানী ঢাকাসহ দেশব্যাপী বিশেষ অভিযানের পরিকল্পনা করা হয়েছে। পেট্রোলবোমার সহিংস সন্ত্রাস যেভাবে কঠোর হস্তে দমন করা হয়েছে, সেই একই কায়দায় দুই বিদেশী হত্যাকা-ের খুনীদের চিহ্নিত করতে অভিযান পরিচালনার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

সূত্র জানান, দুই বিদেশী হত্যা নিয়ে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থার একটি প্রতিবেদন বিএনপি-জামায়াতের প্রতি সরকারের সন্দেহ করার পর বিশেষ অভিযান পরিচালনার পরিকল্পনা নেয়া হয়। ভারতের গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদন প্রকাশের পর দুই বিদেশী নাগরিক হত্যাকা- ঘটানোর ঘটনায় প্রভাবশালী বিদেশী দেশগুলোর সন্দেহের চোখে আছে বিএনপি-জামায়াতকে। এমনকি ‘লন্ডন ষড়যন্ত্র’ খতিয়ে দেখছে গোয়েন্দারা। ভারতের গোয়েন্দারা বিএনপি-জামায়াত জড়িত থাকতে পারে বলে সন্দেহ করার পর বিদেশী দেশগুলোর সন্দেহ আরও ঘনীভূত হয়েছে। কূটনীতিকদের নিরাপত্তার দাবির পরিপ্রেক্ষিতে রাজধানী ঢাকাসহ দেশব্যাপী ব্যাপক বিশেষ অভিযান পরিচালনার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। পেট্রোল বোমার সহিংস সন্ত্রাস যেভাবে কঠোর হস্তে দমন করা হয়েছে, সেই একই কায়দায় খুনী, সন্ত্রাসী, অপরাধী, জঙ্গীবিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এজন্য রাজধানী ঢাকাসহ দেশব্যাপী তালিকা তৈরি করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

মৃত্যুদ-ে দ-িত বিএনপি-জামায়াতের দুই যুদ্ধাপরাধীর মৃত্যুদ- কার্যকর করার আগে বিদেশীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে তারা দুই বিদেশী নাগরিককে হত্যাকা- ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এতে সরকারের নীতি নির্ধারক মহল থেকে রাজধানী ঢাকাসহ দেশব্যাপী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে নিরাপত্তা জোরদার করা হচ্ছে। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। হত্যাকা-ে জড়িত খুনীদের শনাক্তের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। খুনীরা যাতে পালিয়ে যেতে না পারে সেদিকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গোয়েন্দা সূত্র জানান, ইতালীয় নাগরিক সিজার তাভেলা ও জাপানী নাগরিক কুনিও হোশিও-কে হত্যার অভিযোগে এ পর্যন্ত ৩৬ জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এখনও খুনী শনাক্ত করা না গেলেও খুনের মটিভ যে রাজনৈতিক কারণ তা মোটামুটি নিশ্চিত হয়েছেন গোয়েন্দারা। কারণ এর আগেও সরকারের পতন ঘটাতে পেট্রোলবোমার সহিংস সন্ত্রাসের তা-বলীলা চালিয়ে নাশকতা, নৈরাজ্য, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যসহ নিরীহ নির্দোষ মানুষজনকে পুড়িয়ে মেরে হত্যা করেছে বিএনপি-জামায়াত। বিদেশী দেশসমূহের দৃষ্টি আকর্ষণ, সমর্থন, সহযোগিতা পাওয়ার আশায় তারা সহিংস সন্ত্রাসের পথ বেছে নেয়। দেশী-বিদেশী এনজিও, মানবাধিকার সংস্থা, বিদেশী দেশগুলোর কাছ থেকে প্রত্যাখ্যাত হওয়ায় তাদের আন্দোলন ব্যর্থ হয়। এবার আবার তারা নতুন কৌশলে বিদেশী নাগরিক হত্যাকা- ঘটানো বেছে নিয়ে জঙ্গী সংগঠন আইএসের নাম ভাঙ্গিয়ে বিদেশী দেশসমূহের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে গিয়ে তাদের সন্দেহের চোখে পড়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যেই দুই বিদেশী নাগরিক হত্যাকা-ের ঘটনার জন্য বিএনপি-জামায়াতকে দায়ী করেছেন। এরপর প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ও ফেসবুকের স্ট্যাটাস দিয়ে বলেছেন, দুই বিদেশী নাগরিক হত্যাকা-ের ঘটনায় বিএনপি-জামায়াত জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছেন এবং এটা লন্ডন বিএনপির পক্ষে এই ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। বিদেশী হত্যাকা-ে বিএনপি-জামায়াত জড়িত এমন দাবি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, ‘খুব নির্ভরযোগ্য একটা সূত্র থেকে আমি জেনেছি যে, বাংলাদেশে সাম্প্রতিক বিদেশী হত্যাকা-ে বিএনপি-জামায়াত জড়িত। অত্যন্ত মরিয়া হয়ে তারা এটা করছে যাতে বিদেশী সরকারগুলো আমাদের দেশের বিরাগভাজন হয় এবং দেশ অস্থিতিশীল হয়ে পড়ে। লন্ডন বিএনপির ভেতর থেকে এ তথ্য এসেছে বলেও দাবি করেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা জয়।

বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিজ কার্যালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেছেন, সজীব ওয়াজেদ জয় প্রমাণ পেয়েই এমন কথা বলেছেন, তার বক্তব্য গুরুত্বসহকারে নেয়া হয়েছে এবং তার বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করেন। এরপরই দুই বিদেশী নাগরিক খুনের ঘটনা ঘটাতে বিএনপি-জামায়াত কাদেরকে নিয়োগ করেছে এবং লন্ডন ষড়যন্ত্রে কারা জড়িত তা চিহ্নিত করতে মাঠে নেমেছেন গোয়েন্দারা।

সূত্র জানান, দুই বিদেশী হত্যাকা-ের ঘটনায় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বিএনপি-জামায়াতকে দায়ী করার পর বেশি সন্দেহের চোখে দেখছে প্রভাবশালী বিদেশী দেশগুলো। রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় ৪৫টি দেশের কূটনীতির সঙ্গে সরকারের পক্ষ থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উর্ধতন কর্মকর্তাদের যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে তাতে দুই বিদেশী নাগরিক হত্যাকা-ের ঘটনার তদন্ত ও নিরাপত্তার প্রসঙ্গে বিস্তারিতভাবে তুলে ধরা হয়েছে। বিএনপি-জামায়াতের ইন্ধনে দেশে আরও বড় ঘটনা ঘটতে পারে এমন আশঙ্কাও করছে দলটি। তাই সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে দুই দলের শীর্ষ দুই নেতার ফাঁসির রায় কার্যকরের সময় ঘনিয়ে আসায় দেশের ভেতর অস্থিরতা তৈরির প্রয়াসেই এ হত্যাকা- ঘটানো হয়েছে বলে ক্ষমতাসীন দলের পক্ষ থেকে যে সন্দেহ করা হয়েছে তা বিদেশী দেশগুলোর কাছে বার্তা পৌঁছানো হয়েছে। তাই পেট্রোলবোমার সহিংস সন্ত্রাস দমনে যেভাবে বিএনপি-জামায়াত জোটের বিরুদ্ধে কঠোর এ্যাকশনে যাওয়া হয়েছিল সেই ধরনের কঠোর এ্যাকশনে পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার।