২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারতে ছোট গাড়ি পোলোর বিক্রি স্থগিত রাখছে ভক্সওয়াগন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ভারতে ছোট গাড়ি পোলোর বিক্রি স্থগিত রাখছে ভক্সওয়াগন। গাড়িগুলেতে কোন যান্ত্রিক ত্রুটি আছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে জার্মান সংস্থাটি। ইতোমধ্যেই ডিলারদের কাছে বুক হয়ে যাওয়া পোলো ক্রেতাদের হাতে তুলে দেয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সংস্থা। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত যা বহাল থাকবে বলে জানিয়েছে তারা। তবে এই ত্রুটি দূষণ কেলেঙ্কারির সঙ্গে যুক্ত নয় বলেই দাবি ভক্সওয়াগনের। এক বিবৃতিতে সংস্থা জানিয়েছে, নির্দিষ্ট সময়ে তৈরি করা পোলো গাড়িগুলোই পরীক্ষা করে দেখছে তারা। তবে সেগুলো কখন তৈরি, বা কী ধরনের সমস্যা রয়েছে, তা নিয়ে মুখ খোলেনি ভক্সওয়াগন। প্রসঙ্গত, ভারতে ‘ইএ-১৮৯ ইঞ্জিন’ যুক্ত পোলো এবং সেডান ভেন্টো বিক্রি করে সংস্থা। এগুলো রফতানিও করা হয়। দূষণ কেলেঙ্কারির জেরে ভারতেও সংস্থার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে কেন্দ্র। ত্রুটি ধরা পড়লে গাড়ি ফেরানো হবে বলে জানিয়েছে ভক্সওয়াগন ইন্ডিয়া। এদিকে, জার্মানিতে আগামী জানুয়ারি থেকেই দূষণ মাত্রা কমিয়ে দেখাতে বিশেষ সফটওয়্যার বসানো গাড়িগুলোকে ফিরিয়ে নেয়ার কাজ শুরু করবে ভক্সওয়াগন। বিনামূল্যে সেগুলো সারিয়ে দেয়া হবে বলে এ দিন দাবি করেছে সংস্থা।

বায়ার্স মিটিং বাতিলে কোন নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দুই বিদেশী নাগরিক খুনের পর, নিরাপত্তা ইস্যুতে বায়ার্স ফোরামের নির্ধারিত বৈঠক বাতিল হয়। যদিও ব্যবসায়ীরা মনে করছেন, বিদেশী ক্রেতা প্রতিনিধিদের এই বৈঠক বাতিল হলেও, দেশের তৈরি পোশাকখাতে তেমন কোন নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না। তবে এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি ব্যবসায়িক প্রতিবন্ধকতা তৈরি করতে পারে উল্লেখ করে, দেশে স্থিতিশীল পরিবেশ বজায় রাখার দাবি তাদের। সম্প্রতি, এক সপ্তাহের মধ্যে দুই বিদেশী নাগরিক খুন হওয়ার পর, বাংলাদেশে অবস্থিত দূতাবাসগুলোর পক্ষ থেকে বিদেশী নাগরিকদের আরও সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপত্তা ইস্যুতে গত সোমবার নির্ধারিত বৈঠক বাতিল করে, বাংলাদেশে অবস্থানরত বিদেশী ক্রেতাগোষ্ঠীর প্রতিনিধি ফোরাম।

এমন পরিস্থিতিতে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে ভবিষ্যতে সব ধরনের অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা মোকাবেলায় সরকারকে আরও তৎপর থাকার পরামর্শ পোশাকশিল্প মালিকদের। পাশাপাশি চলমান নিরাপত্তা ইস্যুকে কারণ দেখিয়ে বিদেশী ক্রেতারা যেন অন্যদেশে চলে না যায়, সেজন্য কূটনৈতিক সম্পর্ক আরও জোরদার করার দাবি এখাত সংশ্লিষ্টদের। তবে এসব ঘটনা দেশের সবচেয়ে বড় রফতানিখাতে, কোন নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে না বলে দাবি বিজিএমইএর। এর আগে চলতি বছরের শুরুতে রাজনৈতিক অস্থিরতার ফলে, পোশাকখাতের অনেক বিদেশী ক্রেতা তাদের ক্রয় আদেশ প্রত্যাহার করে।