০৯ অক্টোবর ২০১৫

যশোরে বিআরডিবির টাকা আত্মসাত

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ মনিরামপুর উপজেলা পল্লী উন্নয়ন বোর্ড (বিআরডিবি) অফিসের ৫ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনা ঘটেছে। এ নিয়ে অফিস কর্মকর্তা অনুপম দাস এবং মাঠকর্মী উত্তম কুমার বিশ্বাস একে অপরকে দোষারোপ করছেন। বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট দফতর থেকে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

জানা গেছে, উত্তম কুমার বিশ্বাস এ অফিসের মাঠকর্মী। মনিরামপুরের ধলিগাতী উত্তর সমিতির দারিদ্র্য বিমোচন প্রকল্পের টাকা গ্রাহকদের কাছ থেকে আদায় করে ব্যাংকে জমা না দিয়েই আত্মসাত করেন তিনি। প্রাথমিকভাবে সংশ্লিষ্ট অফিসে জানাজানি হলে আত্মসাতের বিষয়টি মাঠকর্মী উত্তম কুমার বিশ্বাস অফিস কর্মকর্তা অনুপম দাসের উপর দেয়ার চেষ্টা চালান। বিষয়টি নিয়ে গত ১৫ দিন যাবত অফিসপাড়ায় ব্যাপক তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়।

একপর্যায়ে শার্শা উপজেলা পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা মনিরুজ্জামানকে আহ্বায়ক করে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়। এ কমিটির অপর দু’সদস্য হচ্ছেন- যশোর সদরের সহকারী পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা আছিয়া খাতুন এবং একই অফিসের অপর কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন। বৃহস্পতিবার এ কমিটি সরেজমিনে তদন্ত করেন।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, টাকা আত্মসাতের ঘটনায় মাঠকর্মী উত্তম কুমার বিশ্বাস জড়িত বলে প্রমাণিত হয়েছে। এছাড়া অফিস কর্মকর্তাদের দায়িত্বহীনতার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেছেন তিনি। এ ব্যাপারে উপজেলা পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ জানান, ৫ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনার মাঠকর্মী উত্তম কুমার বিশ্বাস দায়ী হয়েছেন। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি। অভিযুক্ত মাঠকর্মী উত্তম কুমার বিশ্বাস নিজেকে নির্দোষ দাবি করে জানান, ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে তাকে ফাঁসানো হচ্ছে। এছাড়া অফিস কর্মকর্তা অনুপম দাসের পক্ষ নিয়েছে তদন্ত কমিটি।