২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তিন যুগেও সংস্কার হয়নি জামালপুর বিসিক শিল্পনগরী

  • রাস্তা খানাখন্দে ভরা নেই গ্যাস সংযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, জামালপুর, ৭ অক্টোবর ॥ প্রতিষ্ঠার প্রায় তিন যুগেও সংস্কারের ছোঁয়া না পড়ায় বেহাল হয়ে পড়েছে জামালপুরের বিসিক শিল্পনগরী। এখানকার অধিকাংশ কারখানাতেই নেই গ্যাস সংযোগ, ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা। খানাখন্দে ভরে গেছে রাস্তাঘাট। বেড়ে যাচ্ছে উৎপাদন খরচ। সবমিলিয়ে শিল্প মালিকরা রয়েছেন চরম হতাশায়।

১৯৮১ সালে জামালপুর শহরের দক্ষিণ প্রান্তে দাপুনিয়া এলাকায় ২৬ একর জমির গড়ে তোলা হয় বিসিক শিল্প নগরী। নগরীর ১৯৭ শিল্পপ্লটের মধ্যে নানা প্রতিকূলতা অতিক্রম করে চালু রয়েছে ৬০টি শিল্পকারখানা। কিন্তু ড্রেন, রাস্তাঘাট আর গ্যাসের সমস্যায় চালু কারখানাগুলো টিকে থাকা কঠিন হয়ে পড়েছে।

নগরীতে নেই ড্রেনেজ ব্যবস্থা, প্রতিটি রাস্তা ভেঙেচুরে বেহাল, অধিকাংশ কারখানায় দেয়া হয়নি গ্যাস সংযোগ। খানাখন্দে ভরে থাকা রাস্তায় দুর্ঘটনা ঝুঁকি নিয়ে কোন পরিবহনই যেতে চায় না বিসিক এলাকায়। বিসিকে চালু শিল্প কারখানার মালিক এনামুল হক খান মিলন, রফিক আহমেদ ও মোখলেছুর রহমান জানান, রাস্তাঘাটের বেহাল অবস্থার কারণে কাঁচামাল আনা আর উৎপাদিত পণ্য বাজারজাতকরণ নিয়ে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে আমাদের।

তিন যুগেও নগরীর অধিকাংশ কারখানাতেই দেয়া হয়নি গ্যাস সংযোগ। ফলে বেড়ে যাচ্ছে উৎপাদন ও বিপণন খরচ। এসব বিষয়ে বিসিক শিল্পনগরী জামালপুরের সহকারী মহাব্যবস্থাপক নিহাররঞ্জন দাস বলেন, এ বিষয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। আশা করছি, বর্ষার পরই বিসিকের বিদ্যমান সমস্যাগুলোর সমাধান হবে।

সাতক্ষীরায় হামলায় আহত চিংড়িঘের মালিকের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা ॥ শ্যামনগর উপজেলার গাবুরা এলাকায় চিংড়িঘের দখলকে কেন্দ্র দখলকারী সন্ত্রসীদের হামলায় শফিকুল ইসলাম (৪০) নামে এক ঘের মালিকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার রাত ১২টার দিকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহত শফিকুল ইসলাম উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নের খোলপেটুয়া গ্রামের আব্দুস সাত্তার খানের ছেলে। বুধবার সকালে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় আহত হয় নিহত শফিকুল ইসলামের স্ত্রী পারুল বেগম, ছেলে রায়হান, হালিম, হাবিবুল্লাহ ও নেওয়াজ। গাবুরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জানান, বুধবার সকালে শফিকুল ইসলামদের ৬০ বিঘা জমির একটি মৎস্য ঘের দখল করতে হামলা চালায় একই এলাকার লোকমানসহ তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী বাহিনী। সন্ত্রাসীরা শফিকুলসহ পাঁচজনকে পিটিয়ে মারাত্মক জখম করে। তাদের উদ্ধার করে শ্যামনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে শফিকুলকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে, সেখান থেকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তার মৃত্যু হয়।

নির্বাচিত সংবাদ