২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজশাহীতে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র মামলা ॥ মুক্তি দাবি

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ মাদকের মামলায় কারাবন্দী সাংবাদিক রিমন রহমানের মুক্তি দাবি করেছেন তার মা রওশন আরা। ষড়যন্ত্র করে মামলা দিয়ে তার ছেলেকে বিজিবি ফাসিয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। বৃহস্পতিবার রাজশাহীর সাধারণ গ্রন্থাগার মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন থেকে ছেলের মুক্তি দাবি, ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও দ্রুত ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপও কামনা করা হয়।

গত ২ অক্টোবর থেকে বিজিবির দায়ের করা মাদকের মামলায় কারাবন্দী রয়েছেন গোদাগাড়ীর তরুণ রিমন রহমান। একই মামলায় পলাতক আসামি দেখানো হয়েছে রাজশাহী থেকে প্রকাশিত অপর পত্রিকার গোদাগাড়ী প্রতিনিধি সাইফুল ইসলামকেও।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়, গোদাগাড়ী উপজেলা ভারত সীমান্তঘেঁষা হওয়ায় চোরাচালান ও মাদক পাচার নৈমিত্তিক ঘটনা। রিমন রহমান এলাকার তরুণ সমাজকে মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে রক্ষায় দীর্ঘদিন ধরে মাদক পাচারে যুক্ত ও তাদের গডফাদারদের বিরুদ্ধে খবর প্রকাশ করে আসছিলেন। সর্বশেষ গত ২৩ সেপ্টেম্বর গোদাগাড়ীর শীর্ষ অস্ত্র ও মাদক কারবারীদের নিয়ে রিপোর্ট করেন তিনি।

ওই দিনই গোদাগাড়ীর করিডর ও রাজাবাড়ি চেকপোস্টে কোরবাানর পশুর ট্রাক থেকে বিজিবির চাঁদা আদায়ের খবর প্রকাশিত হয়। এতে মাদক বিক্রেতা ও বিজিবির কতিপয় সদস্য সাংবাদিক রিমন রহমান ও সাইফুল ইসলামকে দেখে দেয়ার হুমকি দেন।

এর আগেও মাদক চোরাচালান নিয়ে ধারাবাহিক খবর প্রকাশের জেরে সংঘবদ্ধ চক্রের টার্গেটে পরিণত হয়েছিলেন তারা। রিমন রহমানের মায়ের অভিযোগ, খবর প্রকাশের জেরে মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে যোগসাজশ করে বিজিবির গোদাগাড়ী সীমান্ত ফাঁড়ির কতিপয় সদস্য গত ১ অক্টোবর রিমন রহমানকে তথ্য দেয়ার নামে গোদাগাড়ীর মাটিকাটা ডিগ্রী কলেজের সামনে ডেকে নিয়ে জোর করে তুলে নিয়ে যায়।

ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে কিশোরীকে বেঁধে নির্যাতন ॥ যুবক আটক

পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি, খাগড়াছড়ি ॥ মাটিরাঙ্গা উপজেলায় এক কিশোরীকে ধর্ষণ করতে না পেরে গাছে বেঁধে নির্যাতন করেছে এক বখাটে যুবক। এই ঘটনায় জড়িত জাহাঙ্গীর আলমকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয়রা। অন্যদিকে আহত কিশোরীকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় মাটিরাঙ্গার বটতলীর ইচাছড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কিশোরীর দুলাভাই জানান, সে (কিশোরী) মাটিরাঙ্গা মিউনিসিপাল স্কুলে অষ্টম শ্রেণীতে পড়ে। বাড়ি থেকে স্কুলের দূরত্ব অনেক বেশি হওয়ায় পরীক্ষা শেষ করে বাড়ি ফিরতে ফিরতে সন্ধ্যা হয়ে যেত। বুধবার সন্ধ্যার দিকে বাড়ি ফেরার সময় একই এলাকার জাহাঙ্গীর পথরোধ করে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এই সময় কিশোরীর সঙ্গে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে জাহাঙ্গীর গাছের সঙ্গে বেঁধে তাকে মারধর করে। এবং স্কুল ড্রেসের কোমরের ফিতা দিয়ে তার গলা চেপে ধরার চেষ্টা করে। এ সময় তার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে।