১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

২০৩০ সালে ক্যান্সারের ঝুঁকিতে থাকবেন ২ কোটি মানুষ

অনলাইন রিপোর্টার ॥ আগামী ২০৩০ সাল নাগাদ দেশে প্রায় ২ কোটি ১৪ লাখ মানুষ ক্যান্সারের ঝুঁকিতে পড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট। জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে শুক্রবার বেলা ১১টায় সংগঠনটি আয়োজিত জাতীয় তামাক মুক্ত দিবসের আলোচনা সভায় এ আশঙ্কার কথা জানানো হয়।

‘তামাক নিয়ন্ত্রণ, অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধ এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষায় হেলথ প্রমোশন ফাউন্ডেশন চাই’ শীর্ষক আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন দি ইউনিয়নের কারিগরি পরামর্শক সৈয়দ মাহবুবুল আলম।

মূলপ্রবন্ধে সৈয়দ মাহবুবুল আলম বলেন, ‘বর্তমানে দেশে পরিবেশ দূষণ, অস্বাস্থ্যকর খাবার, তামাক ব্যবহার, কায়িক পরিশ্রম কমে যাওয়াতে প্রায় ৯৮ দশমিক ৭ শতাংশ মানুষ একটি অসংক্রামক রোগের (হৃদরোগ, স্ট্রোক, ক্যান্সার, ডায়েবেটিস) ঝুঁকিতে রয়েছে। আগামী ২০৩০ সাল নাগাদ দেশে প্রায় ২ কোটি ১৪ লাখ মানুষ ক্যান্সারের ঝুঁকিতে পড়বে। শুধু চিকিৎসার দিকে নয়, এ অবস্থা নিয়ন্ত্রণে রোগ প্রতিরোধের দিকে নজর দিতে হবে।’

সভাপতির বক্তব্যে তামাকবিরোধী জোটের সমন্বয়কারী সাইফুদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ায় মানুষের মৃত্যুর অন্যতম প্রধান কারণ অসংক্রামক রোগ। প্রতিবছর এ অঞ্চলে ৭৯ লাখ মানুষ অসংক্রামিত রোগে মারা যায়। প্রকৃতপক্ষে ৮০ ভাগ অপরিণত হৃদরোগ, স্ট্রোক ও ডায়াবেটিস এবং ৪০ ভাগ ক্যান্সার প্রতিরোধযোগ্য।’

এর আগে সকাল ১০টায় হেলথ প্রমোশন ফাউন্ডেশন গঠনের দাবিতে জাতীয় তামাক মুক্ত দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ তামাকবিরোধী জোটের বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এ ছাড়া সারা দেশব্যাপী বিভিন্ন সংগঠন বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ দিবস উদযাপন করছে