২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভালুকায় আমেরিকার ফল ‘অ্যাভোকাডো’

ভালুকায় আমেরিকার ফল ‘অ্যাভোকাডো’

নিজস্ব সংবাদদাতা, ভালুকা, ময়মনসিংহ॥ আমেরিকা ও ইউরোপের বিখ্যাত ফল আভোকাডো,অত্যন্ত পুষ্টিগুন ও সুস্বাধু ফল । অ্যাভোকাডো কে আঞ্চলিক ভাবে মাখন ফল বলা হয় । ফলটিতে যেমন আছে পুষ্টি গুন তেমনই ওষুধী গুন সমৃদ্ধ ফলটিকে মায়ের দুধের বিকল্প হিসাবে ধরা হয় । ফলটিতে চিনির পরিমান কম বিধায় ডায়েবেটিস রোগীরা অনায়েসে খেতে পারে । ভিটামিনের দিক দিয়ে এই ফলে ভিটামিন বি, কে, সি ও ই সবগুলো উপাদানই রয়েছে । অ্যাভোকাডো মাংসে সবজী হিসাবে ,সালাত হিসাবে ও শরবত হিসাবে ব্যবহার করা যায় । কয়েক বছর পূর্বে বিদেশী এই ফলের কয়েকটি গাছ সখের বশে ভালুকায় মল্লিকবাড়ী ব্যাপ্টিষ্ট সংঘ ( মিশন) এ লাগানো হয় । বর্তমানে সব কটি গাছে ব্যাপক ফলন ধরছে । প্রতিটি গাছে লেবুর মত দেখতে ফলটি ঝাকে ঝাকে দুলছে । মল্লিকবাড়ী ব্যাপ্টিষ্ট সংঘ ( শেডবোর্ড) প্রজেক্ট ইনচার্জ মি.পল বোস বাবু জানান , ৬ বছর পূর্বে একজন বিদেশী এই গাছের চারা এখানে লাগিয়ে দিয়েছিলো এখন তা বাগানে পরিনত হয়েছে । গাছ গুলোতে কয়েকবছর যাবত ফল ধরছে । প্রতিটি গাছে ১৫/২০ টি করে ফল ধরেছে । এ ফলটি একটি মূল্যবান ফল , আমরা আমাদের এন জি ও এর মাধ্যমে আগ্রহীদের মাঝে গ্রামে গ্রামে গাছের চারা বিনামূল্যে বিতরন করছি । বানিজ্যিকভাবে এই ফলটি চাষের পরিকল্পনা করছে ভালুকার প্রান্তিক চাষীরা । সরকারী পৃষ্ট পোষকতা ও সাহায্য সহযোগিতা পেলে বিদেশী এই ফলটি বাংলাদেশে বানিজ্যিক ভাবে চাষ করা সম্ভব বলে মনে করেন কৃষি সংশ্লিষ্টরা । ভালুকা উপজেলা কৃষি অফিসের উদ্ভিদ সংরক্ষক এনামুল হক বলেন ,অ্যাভোকাডো ফলটি অত্যন্ত পুষ্টিগুন সমৃদ্ধ । এই ফলের বর্তমানে কোন জাত আমাদের কাছে নাই ,বাংলাদেশের উঁচু জায়গায় এর ফলন করা যাবে । বানিজ্যিক ভাবে এই ফলের কোন বাগান আছে বলে আমার জানা নেই । তবে ভালুকায় এই ফলের ফলন হয়েছে বলে আমি শুনেছি ।