২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জাপানও হোশি কুনিও হত্যার তদন্ত করবে

  • বিদেশীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে তথ্য সংগ্রহ করছে সরকার

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ বিদেশী নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে বাংলাদেশ সরকার থেকে তথ্য সংগ্রহের কাজে সহায়তা দিতে জাপানী নাগরিকদের নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকার জাপান দূতাবাস। বাংলাদেশ সরকারের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী থেকে বিদেশী নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছে জাপান। শুক্রবার জাপান দূতাবাস থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। অপরদিকে বাংলাদেশ সরকারের পাশাপাশি জাপানও হোশি কুনিও হত্যার তদন্ত করবে।

জাপান দূতাবাসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাপান ও ইতালির দুই নাগরিক হত্যার পর বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কূটনীতিকদের বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে বাংলাদেশ সরকার বিদেশী নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ সরকার বিদেশী নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহ করবে। এ কারণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী জাপানী নাগরিকদের কাছে গিয়েও তথ্য সংগ্রহ করবে। তবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর তাদের তথ্য সরবরাহ করতে বলেছে জাপান দূতাবাস।

এতে আরও বলা হয়, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নাম করে অপরাধীরাও নাগরিকদের হয়রানি করতে পারেন, সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। তারা আইডি কার্ড ও পাসপোর্টের কপিও সংগ্রহ করতে পারেন। তবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পরই আইডি ও অথবা পাসপোর্টের কপি তাদের সরবরাহ করা যেতে পারে।

এদিকে ঢাকার জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, রংপুরে জাপানী নাগরিক হোশি কুনিও হত্যার তদন্ত করবে জাপান। বাংলাদেশ সরকারের পাশাপাশি জাপান সরকারের পক্ষ থেকেও তদন্ত করা হবে। এ লক্ষ্যে তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দলও ঢাকায় এসেছে। প্রতিনিধি দলের সদস্যরা ইতোমধ্যেই রংপুরে গিয়েছেন। এ হত্যাকা-ে জঙ্গী সংগঠন আইএস জড়িত রয়েছে কিনা, সেটাও তদন্ত করবে জাপানী প্রতিনিধি দল।

ঢাকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জনকণ্ঠকে বলেন, অন্যান্য দেশের তুলনায় জাপান তার নিজ দেশের নাগরিকদের বিষয়ে অনেক আন্তরিক। বিদেশে অবস্থান করলেও জাপানী নাগরিকদের বিষয়ে জাপান সরকার অত্যন্ত স্পর্শকাতর। আর একজন জাপানী নাগরিকের প্রাণের মূল্য তাদের কাছে অনেক বেশি। সে কারণে তারা তাদের পক্ষ থেকে এ হত্যার তদন্ত করতে পারে।

এদিকে রংপুরের স্থানীয় জনগণ যারা হোশি কুনিওকে ব্যক্তিগতভাবে চিনতেন, তাদের দাবি তিনি ইসলামধর্ম গ্রহণ করেছিলেন। তবে তিনি সত্যিই ইসলামধর্ম গ্রহণ করেছিলেন কিনা, সে বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের বক্তব্য চায় জাপান। ইসলামধর্ম গ্রহণের বিষয়টি নিয়ে তাদের মধ্যে সন্দেহ রয়েছে। সে কারণে জাপান দূতাবাসের পক্ষ থেকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করে দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

দুই বিদেশী হত্যাকা-ের পর বিভিন্ন দেশের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যেই নিজ নিজ নাগরিকদের সতর্ক করেছে ঢাকার বিভিন্ন দূতাবাস। এছাড়া বেশ কয়েকটি দূতাবাস তাদের অনুষ্ঠানও স্থগিত করেছে। জাপান দূতাবাস ময়মনসিংহে জাপানে উচ্চশিক্ষা বিষয়ক একটি সেমিনার আপাতত স্থগিত করেছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বিদেশী নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যেই বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এসব পদক্ষেপের মধ্যে রয়েছে ঢাকার কূটনৈতিক জোন ও সারাদেশে নিরাপত্তা জোরদার। দেশের বিভিন্ন স্থানে চেকপোস্ট, গাড়ি তল্লাশি টিম ও মোবাইল টিম বাড়ানো হয়েছে। কূটনৈতিক জোনে সাধারণ পোশাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সদস্য সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে। বিদেশী নাগরিকদের আবাসিক এলাকা ও কর্মস্থল, বিনোদন ক্ষেত্রে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের চলাচলের জন্য বিভিন্ন রুটে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া বিদেশীদের নিরাপত্তা দেয়ার জন্য তাদের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যেই এসব পদক্ষেপের বাস্তবায়নও শুরু হয়েছে।

দুই ব্যাংক কর্মকর্তা আটক ॥ স্টাফ রিপোর্টার রংপুর ও রাজশাহী থেকে জানান, জাপানী নাগরিক হোশি কুনিওর দাফন শুক্রবারও রংপুরে অনুষ্ঠিত হয়নি। বৃহস্পতিবার রাতে রাজশাহীতে কুনিও হত্যায় জড়িত সন্দেহে দুই ব্যাংক কর্মকর্তাকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। বৃহস্পতিবার দিনমান রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টুর উদ্ধৃতি দিয়ে বিভিন্ন মিডিয়ায় রংপুরের মুন্সীপাড়ার কুনিওর দাফন সম্পন্ন হবে বলে সংবাদ প্রচার করা হলেও শুক্রবার সকালেও সিটি মেয়র ঝন্টু জানিয়েছেন প্রচারিত ও প্রকাশিত সংবাদটি সঠিক নয়। ঝন্টু জানান, বৃহস্পতিবার জাপানী প্রতিনিধিদের একজন ফোন করে তার কাছে জানতে চায় মুন্সীপাড়া কবরস্থানে দাফন করা সম্ভব কি না এবং করলে তিনি সহযোগিতা করবেন কি না। তিনি তাদের জানিয়ে দেন, যদি হোশি কুনিও মুসলিম হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায় তবে আপত্তি থাকার কথা নয়। পরবর্তীতে তিনি মুসলিম হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হন। কিন্তু এরপর আর জাপানী প্রতিনিধিরা তার সঙ্গে যোগাযোগ করেনি। ফলে শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত লাশ হাসপাতালের মর্গের হিমঘরেই রয়েছে।

জাপানী নগারিক হোশি কুনিও হত্যার ঘটনায় ব্র্যাক ব্যাংক রাজশাহী শাখার দুই কর্মকর্তাকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে ব্যাংকের সামনে থেকে তাদের আটক করে রংপুর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল।

আটককৃতরা হলেন ব্যাংকের সেলস এ্যান্ড সার্ভিস অফিসার সুলতান নাহিদ এবং ক্রেডিট কার্ড অফিসার এইচএম শাহরিয়ার। তারা দুজনই নগরীর সাগরপাড়া এলাকায় থাকেন। বৃহস্পতিবার রাতে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শুক্রবার সকালে তাদের রংপুরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আজাহার আলী জানান, জাপানী নাগরিক হত্যার ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সহযোগিতায় রংপুর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল ব্র্যাক ব্যাংক রাজশাহী শাখার চার কর্মকর্তাকে আটক করে। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে দু’জনকে ছেড়ে দেয়া হয়। তবে নাহিদ ও শাহরিয়ার নামের দুই কর্মকর্তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। রাতভর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শুক্রবার সকালে তাদের রংপুরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে জিজ্ঞাসাবাদে কোন তথ্য পাওয়া গেছে কিনা তা জানাননি এই কর্মকর্তা।