২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মহিলাসহ আহত ৪ লালমনিরহাটে গ্রামে ঢুকে বিএসএফের এলোপাতাড়ি গুলি ॥ হত ১

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট, ৯ অক্টোবর ॥ সন্ধ্যায় গ্রামের মানুষ যখন ঘর-গৃহস্থ সামলাতে ব্যস্ত, তখন তাদের ওপর বৃষ্টির মতো গুলিবর্ষণ করে বিএসএফ। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার আদিতমারীর দুর্গাপুর সীমান্ত চওড়াবাড়ি গ্রামে। এ সময় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের এলোপাতাড়ি গুলিতে মহিলাসহ পাঁচজন গুরুতর আহত হন। আহত আব্দুর রহিম (৩৪) রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত একটায় মারা যান। আহতরা হলেন চওড়াবাড়ি গ্রামের গোফুর মিয়ার ছেলে সুলতান (৫৫), চুরকুটুর পুত্র সাজু মিয়া (২২), আনোয়ারুলের পুত্র সুমন (২০) ও আনোয়ারুলের স্ত্রী সাহিদা। গ্রামটি হতে সাধারণ মানুষ নিরাপদ দূরুত্বে চলে গেছে। জনশূন্য হয়ে পড়েছে গ্রামটি।

প্রত্যক্ষদর্শী ও বিজিবি সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সীমান্তঘেঁষা চওড়াবাড়ি গ্রামের কৃষকরা তাদের গৃহপালিত গরু মাঠ হতে নিজেদের গোয়ালে নিয়ে আসেন। এ সময় ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার ২১ বিএসএফ ব্যাটেলিয়নের সিঙ্গীমারী ক্যাম্পের টহল দলের সদস্যরা কৃষকদের ধাওয়া করে। বাংলাদেশী কৃষক পরিবারের সদস্যরা গরু নিয়ে নিজেদের বাড়িতে বেঁধে রাখেন। এই ঘটনার কিছুক্ষণ পর চওড়াবাড়ি গ্রামের পাতুমিয়ার বাড়িতে বিএসএফ সদস্যরা প্রথমে চড়াও হয়। পরে গ্রামটিতে এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়তে থাকে। বিএসএফের লাঠিচার্জ ও এলোপাতাড়ি গুলিতে প্রায় ২০ জন আহত হয়। এদের মধ্যে ৫ জনকে গুলি বিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের একজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

দুর্গাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছালেকুজ্জামান প্রামাণিক জানান, গ্রামটিতে এখন কোন মানুষ নেই। বিএসএফের হামলা ও গুলিবর্ষণের ঘটনায় পালিয়ে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে গেছে সবাই। বিনা উস্কানিতে বিএসএফের এহন ঘটনায় সীমান্তে তীব্র উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। ভারত সীমান্তে অতিরিক্ত বিএসএফ মোতায়েন করেছে। বিজিবিও সতর্ক অবস্থান গ্রহণ করেছে। রাতেই লালমনিরহাট ১৫ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্নেল আহম্মেদ বজলুর রহমান হায়াতী ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তিনি সেখানে অবস্থান করে গ্রামবাসীদের শান্ত হয়ে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে পরামর্শ দেন। বাসিন্দাদের বাড়িতে ফিরে এসে অবস্থান করার অনুরোধ জানান তিনি। আর কোন হামলার আশঙ্কা নেই বলে গ্রামবাসীদের আশ্বস্ত করেন তিনি। বিএসএফ ফের সীমান্ত অতিক্রম করলে দাঁতভাঙ্গা জবাব দেয়া হবে বলে গ্রামাবাসীদের জানান তিনি।

এ ব্যাপারে লালমনিরহাট-১৫ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল আহম্মেদ বজলুর রহমান হায়াতী জানান, ঘটনাটির কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে পতাকা বৈঠকের জন্য বিএসএফকে শুক্রবার সকালে পত্র পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি আন্তর্জাতিক সীমান্ত আইন লংঘনের শামিল। বন্ধুত্বপূর্ণ সর্ম্পকের মধ্যে এই ধরনের আচরণ দুঃখজনক।