২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাবনায় গণপিটুনিতে ২ গরু চোর নিহত

পাবনায় গণপিটুনিতে ২ গরু চোর নিহত

নিজম্ব সংবাদদাতা, পাবনা ॥ আতাইকুলা থানার তাজিয়াপাড়া গ্রামে গরু চুরি করার সময় ধৃত ২ চোরকে গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করেছে জনতা। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। শনিবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে আতাইকুলা থানার এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত দু’জন হচ্ছে নাটর জেলার সিংড়া উপজেলার ডেলটা প্রামানিকের ছেলে শহিদুল ইসলাম (৩০)। অপজন হচ্ছে নাটরের সিংড়া উপজেলার কাদিরিয়া গ্রামের আজিম উদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলাম। আহত নাটোরের সিংড়া উপজেলার ইয়ারুল ইসলাম, দিনাজপুরের ফরমান আলী ও নওগাঁর বাবলু হোসেনকে পুলিশ পাহাড়ায় পাবনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। আতাইকুলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুর-এ-আলম জানিয়েছেন, ভোরে সংঘবদ্ধ একটি চোরের দল আতাইকুলার সড়াডাঙ্গি তাজিয়াপাড়া গ্রামের আবুল কালামের গোয়াল ঘর থেকে ৪/৫টি গরু চুরি করে। বিষয়টি বাড়ির লোকজন টের পেয়ে দ্রুত সড়াডাঙ্গি, গঙ্গারামপুর ও কাছারপুর মসজিদে মাইকিং করলে এলাকাবাসী এগিয়ে আসে।

এ সময় সংঘবদ্ধ চোরের দল অবস্থা বেগতিক দেখে দ্রুত পালিয়ে যাবার সময় সড়াডাঙ্গি মহাসড়ক সংলগ্ন জোলার বাগানের কাছে তিনজনকে ধরে গণপিটুনী দেয় গ্রামবাসী। এতে ঘটনাস্থলেই ২ জনের মৃত্যু হয়। ঘটনাস্থল থেকে একজন ও পরে একটি ধানক্ষেতে পালিয়ে থাকা আরও দু’জনকে আহত অবস্থায় আটক করে পুলিশ। খবর পেয়ে পুলিশ সকাল ৭টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে পুলিশ কনস্টেবল আব্দুল বারেক মাথায় আঘাত পান। পরে পরিস্থিতি শান্ত হওয়ার পর নিহত দু’জনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এদিকে গণপিটুনিতে নিহতের ঘটনায় পাবনা পুলিশ সুপার আলমগীর কবির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ বিষয়ে পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সিদ্দিকুর রহমান জানিয়েছেন, ওই এলাকায় মাঝে-মধ্যেই গরু চুরি হচ্ছিল। একটি সংঘবদ্ধ চোরের দল এ চুরির ঘটনার সঙ্গে জড়িত। বিভিন্ন এলাকা থেকে চোরের দল শনিবার ভোরে সেখানে গরু চুরি করতে গেলে গ্রামবাসীর জনরোষের শিকার হয় তারা। হতাহতরা আন্তঃজেলা চোর চক্রের সদস্য বলেও পুলিশ দাবি করেছে।