২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কান্দাহারে বিমান হামলা

  • এক শ’ তালেবান জঙ্গী নিহত, আহত ৫০

আফগানিস্তানের কান্দাহারে বিমান হামলায় অন্তত এক শ’ তালেবান জঙ্গী নিহত হয়েছে। স্থানীয় কর্মকর্তারা শনিবার এ কথা জানান। খবর প্রেস টিভি ও আইএএনএসের।

কান্দাহার পলিশ কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে টলো বার্তা সংস্থা জানায়, ‘তালেবান জঙ্গীরা সুরাবাকে সমবেত হয়েছিল, তারা জেলাটি দখলের পরিকল্পনা করেছিল। কিন্তু আফগান সেনাদের পরিচালিত বিমান হামলায় এক শ’ জঙ্গী নিহত ও অন্তত ৫০ জন আহত হয়।’ জঙ্গীরা সীমান্ত এলাকা থেকে জেলাটিতে পৌঁছায়। এই বিমান হামলায় কোন বেসামরিক লোক হতাহত হয়নি বলেও কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। পাকিস্তান সীমান্তবর্তী কান্দাহার প্রদেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় জেলা সুরাবাকে জঙ্গীরা সক্রিয় এবং তারা স্থানীয় নিরাপত্তা বাহিনীকে তাদের হামলার লক্ষ্যবস্তু করে থাকে।

এর আগে কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ কুন্দুজ শহরের দখল নিয়ে আফগান সরকারী বাহিনীর সঙ্গে তালেবানের ব্যাপক লড়াই হয়। তালেবানবিরোধী অভিযানে আফগান বাহিনীকে সহায়তা করতে মার্কিন বাহিনী কুন্দুজে বিমান হামলা চালায়। এ হামলায় ১৯ জন নিহত হয়। আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা মেডিসিনস স্যানস ফ্রন্টিয়ার্স (এমএসএফ) জানায়, বিমান হামলায় তাদের ১২ জন কর্মী ও চার শিশুসহ সাত রোগী নিহত হয়েছে। গুরুতরভাবে আহত হয়েছে অন্তত ৩৭ জন। হোয়াইট হাউসের প্রকাশ করা ওই বিবৃতিতে ওবামা বলেন, আমেরিকার জনগণের পক্ষ থেকে আমি ডক্টরস উইদআউট বর্ডারের কুন্দুজ হাসপাতালের নিহত পেশাজীবী ও অন্যান্য বেসামরিক নিহত ও আহতদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। তবে ঘটনাটি নিয়ে এখনই চূড়ান্ত কোন মন্তব্য করতে চান না তিনি। এজন্য মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের নিজস্ব তদন্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন ওবামা। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এ্যাশটন কার্টার একে ‘তীব্র লড়াইয়ের মধ্যে ঘটে যাওয়া একটি শোকাবহ ঘটনা’ বলে আখ্যায়িত করেছেন। আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি বলেছেন, আফগানিস্তানে মার্কিন বাহিনীর প্রধান তার কাছে ঘটনা ব্যাখ্যা করে দুঃখ প্রকাশ করেছেন। এমএসএফ দাবি করেছে, এ হামলা চলার সময় কাবুল ও ওয়াশিংটনে সামরিক কর্মকর্তাদের ফোন করা সত্ত্বেও হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র ও জরুরী চিকিৎসা রুমগুলোকে লক্ষ্য করে প্রায় ঘণ্টাখানেক ধরে বোমাবর্ষণ করা হয়।

এ বিষয়ে ‘পরিপূর্ণ ও পরিষ্কার ব্যাখ্যা’ দাবি করেছে সংস্থাটি। ‘জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার জন্য’ এ ঘটনার নিরপেক্ষ ও বিস্তারিত তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন। এদিকে হামলাটি কারা চালিয়েছে তা উল্লেখ না করে হাসপাতালে হামলা ‘যুদ্ধাপরাধের সমতুল্য’ বলে নিন্দা জানিয়েছেন জায়েদ রাদ। আফগানিস্তানের কুন্দুজ শহরের এক হাসপাতালে বিমান হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে এটিকে বিয়োগান্তক, ক্ষমার অযোগ্য, এমনকি সম্ভাব্য অপরাধ হিসেবে অভিহিত করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার জায়েদ রাদ আল হুসেইন। তিনি ওই হামলার পূর্ণাঙ্গ ও স্বচ্ছ তদন্ত দাবি করেন।