১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আঙ্কারায় শান্তি সমাবেশের আগে বিস্ফোরণ ॥ নিহত ৮৬

  • আহত ১৮৬ ॥ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পুলিশ ও গোয়েন্দা প্রধানদের জরুরী বৈঠক

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় প্রধান রেলস্টেশনের কাছে জোড়া বোমা বিস্ফোরণে অন্তত ৮৬ জন নিহত হয়েছেন। শনিবারের এ ঘটনায় আরও ১৮৬ জন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

নিহতদের মধ্যে অধিকাংশই একটি শান্তি সমাবেশে অংশগ্রহণ করতে আসা লোক। ওয়েবসাইট ও বিবিসির এক বিবৃতিতে মন্ত্রণালয় জানায়, শ্রমিক ইউনিয়ন ও সুশীল সমাজের ডাকা ওই সমাবেশের আগে স্থানীয় সময় সকাল ১০টা চার মিনিটে হামলাটি চালানো হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা ছবিতে ঘটনাস্থলে বহু মানুষকে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। কুর্দি বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী পিকেকে’র সঙ্গে চলমান সহিংসতার অবসান চেয়ে শান্তি সমাবেশটির ডাক দেয়া হয়েছিল। সমাবেশকারীদের লক্ষ্য করেই বিস্ফোরণটি ঘটানো হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনতারা জানিয়েছে, তুর্কি প্রধানমন্ত্রী আহমেদ দাভুতোগলুকে ঘটনার বিষয়ে ব্রিফ করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান ও সরকারী অন্যান্য জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ধানমন্ত্রীর একটি জরুরী বৈঠকে বসার কথা রয়েছে। দুপুর ১২টার দিকে বৈঠকটি শুরু হতে পারে।

‘শান্তি ও গণতন্ত্র’ সেøাগানকে সামনে রেখে ডাকা শান্তি সমাবেশটির উদ্যোক্তাদের মধ্যে কুর্দিপন্থী এইচডিপি পার্টিও ছিল বলে জানা গেছে। স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় সমাবেশটি শুরু হওয়ার কথা ছিল। এইচডিপি পার্টির ট্যুইটে বহু লোক হতাহত হওয়ার কথা বলা হয়েছে, এছাড়া আহত লোকদের সরিয়ে নেয়ার সময় পুলিশ লোকজনের ওপর ‘হামলা’ চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে দলটি। এর আগে জুনে দেশটির দিয়ারবাকির শহরে এইচডিপি পার্টির আরেকটি সমাবেশেও বোমা হামলা চালানো হয়েছিল।

নির্বাচনের প্রাক্কালে কৈরালার পদত্যাগ

নেপালের প্রধানমন্ত্রী সুশীল কৈরালা শনিবার প্রেসিডেন্ট রাম বরণ যাদবের কাছে তার পদত্যাগপত্র পেশ করেছেন। খবর এনডিটিভি ও দ্য ইকোনমিক্স টাইমস অনলাইনের।

আজ রবিবার নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনকে সামনে রেখে পদত্যাগ করেন কৈরালা। আজকের নির্বাচনেও প্রধানমন্ত্রী পদের জন্য লড়বেন তিনি। সুশীল কৈরালা নেপালের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক দল নেপালী কংগ্রেসের সভাপতি। ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন তিনি। তার নেতৃত্বে নেপালে সম্প্রতি একটি নয়া সংবিধান প্রণীত হয়। পদত্যাগের পরই নেপালী কংগ্রেস ফের প্রধানমন্ত্রী পদের জন্য সুশীল কৈরালার নাম নিবন্ধন করে। তার বিপরীতে প্রধানমন্ত্রী পদের জন্য লড়ছেন সিপিএন ইউএমএল দলের চেয়ারম্যান কেপি শর্মা ওলি।