২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গুলশান ও বারিধারায় নিরাপত্তা জোরদার, বিজিবি মোতায়েন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সম্প্রতি দুই বিদেশী হত্যার পর বারিধারা ও গুলশান কূটনীতিক পাড়ার নিরাপত্তা আরও জোরদার করতে পুলিশ, র‌্যাব, এপিবিএন-এর পাশাপাশি বিজিবি (বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ) মোতায়েন করা হয়েছে। শনিবার বিকেল ৫টা থেকে আজ শনিবার সকাল ৭টা পর্যন্ত বিজিবি মোতায়েন থাকছে। প্রতিদিন একই নিয়মে বিজিবি মোতায়েন থাকার কথা রয়েছে। তবে কত দিন এমন নিরাপত্তা থাকছে তা নির্ভর করছে সরকারের সিদ্ধান্তের উপর।

এদিকে বিদেশীদের উপর হামলায় নতুন করে শঙ্কা প্রকাশ করে ব্রিটিশ নাগরিকদের চলাফেরায় সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাজ্য সরকার। বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তরফ থেকে শঙ্কার কোন কারণ নেই দাবি করা হয়েছে। তারপরও শুক্রবার রাতে যুক্তরাজ্যের তরফ থেকে ভ্রমণবিষয়ক এমন সতর্কতা জারি করা হয়।

সতর্কতা জারির পর শনিবার রাজধানীর গুলশান কূটনীতিক পাড়ায় সন্ত্রাসবিরোধী যৌথ মহড়া অনুষ্ঠিত হয়। মহড়া গুলশান হয়ে উত্তরায়ও অনুষ্ঠিত হয়। নিরাপত্তা মহড়ায় এপিবিএন (আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন), থানা পুলিশ, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি), আমেরিকায় বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত পুলিশের বিশেষায়িত বাহিনী স্পেশাল ওয়েপন এন্ড টেকটিস (এসডব্লিউএটি-সোয়াত) ডিপ্লোম্যাটিক জোন নিরাপত্তা পুলিশ অংশ নেয়। মহড়া শেষে ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশানার মারুফ হাসান খান সাংবাদিকদের বলেন, ইতালির নাগরিক সিজার হত্যাকা-ের তদন্তে এখন পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য কোন দৃশ্যমান অগ্রগতি হয়নি। তবে হত্যারহস্য উদ্ঘাটনের চেষ্টা চলছে।

যুক্তরাজ্যের আশঙ্কার বিষয়টি উড়িয়ে দিয়ে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, কোন আশঙ্কা নেই। শঙ্কারও কিছু নেই। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যৌথভাবে কাজ করছে। তারই ধারাবাহিকতায় এমন মহড়া দেয়া হয়েছে। এমন মহড়ায় মানুষের মধ্যে শঙ্কা কমে আসবে। কূটনীতিক পাড়ায় মানুষের মধ্যে নিরাপত্তাজনিত অস্বস্তি কেটে যাবে।

যদিও যুক্তরাজ্যের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সন্ত্রাসবাদের বড় ধরনের হুমকি রয়েছে বাংলাদেশে। পশ্চিমাদের উপর নতুন করে হামলার আশঙ্কাও করছেন তাঁরা। তবে এমন আশঙ্কার কোন ভিত্তি নেই বলে বরাবরই দাবি করছে বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

মহড়ায় ডিবির যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম, গুলশান বিভাগের উপকমিশনার এসএম মোস্তাক আহমেদ খান ও ডিএমপির মিডিয়া বিভাগের উপকমিশনার মুনতাসিরুল ইসলামসহ উর্ধতন পুলিশ ও গোয়েন্দা কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

শনিবার রাত সোয়া ৮টায় বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ জনকণ্ঠকে জানান, সম্প্রতি কূটনীতিকপাড়ার নিরাপত্তা আরও জোরদার করতে পুলিশ, র‌্যাব, এপিবিএনসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সহায়তা করতে বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। শনিবার বিকেল ৫টা থেকে রবিবার সকাল ৭টা পর্যন্ত ২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন থাকছে। প্রতিদিন একই নিয়মে কূটনীতিকপাড়ায় বিজিবি মোতায়েন থাকবে। তবে কতদিন বিজিবি মোতায়েন থাকবে সেটি নির্ভর করছে সরকারের সিদ্ধান্তের উপর। মূলত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সহায়তা করতেই বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। প্রয়োজনে বিজিবির সংখ্যা বাড়ানো বা কমানো হতে পারে। সার্বিক পরিস্থিতির উপর নির্ভর করছে বিষয়টি।