১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশকেকে ঠাণ্ডা আবহাওয়ায় মামুনুলদের অনুশীলন

  • বিশ্বকাপ বাছাই ফুটবল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কঠিন মিশনে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল এখন কিরগিজস্তানে। ফিফা বিশ্বকাপ ২০১৮ বাছাইয়ের এশিয়া অঞ্চলের ‘বি’ গ্রুপের এ্যাওয়ে ম্যাচ। প্রতিপক্ষ কিরগিজস্তান জাতীয় ফুটবল দল। গত ১১ জুন ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ‘হোম’ ম্যাচে তাদের কাছে ১-৩ গোলে হেরেছিল বাংলাদেশ। ফিরতি ম্যাচে অন্তত এক পয়েন্ট নিয়ে দেশে ফেরার লক্ষ্য বাংলাদেশ জাতীয় দলের। বাংলাদেশ দলের ইতালিয়ান কোচ ফ্যাবিও লোপেজ যদিও জেতার মানসিকতা নিয়েই দলকে নিয়ে সেখানে গিয়েছেন। শনিবার কিরগিজস্তানের ভোর ৫টা ১০ মিনিটে (বাংলাদেশ সময়, দুবাইয়ে ট্রানজিট ছিল আট ঘণ্টা। কিরগিজস্তানের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ে শুক্রবার দুপুর ১২টায়) বিশকেকে পৌঁছেছে মামুনুলবাহিনী। বিকেলে একদফা অনুশীলনও করেছেন তারা।

দেশে থাকতে বাংলাদেশ দলের ফুটবলারদের অনুশীলন করতে হয়েছে প্রচ- গরমের মধ্যে। তাপমাত্রা ছিল ৩৫ বা ৩৬ ডিগ্রীর মতো। অথচ বিশকেকের তাপমাত্রা ১৮ ডিগ্রীরও কম। ফলে বিপাকে পড়তে হয়েছে লোপেজ শিষ্যদের প্রথম দফায়। তবে হাতে যেহেতু আরও দুই দিন সময় আছে, তাই ঠা-া আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিতে কিছুটা হলেও সময় পাবে তারা। ১৩ অক্টোবর বিশকেকের স্পার্তাক স্টেডিয়ামে রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮ এবং এএফসি এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইয়ের ম্যাচে কিরগিজদের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ জাতীয় দল। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধা ৬টায়।

বাংলাদেশ দল কিরগিজস্তানের বিশকেকে পৌঁছে সেখানে হোটেল রিজেন্সিতে গিয়ে আস্তানা গেড়েছে। বিশকেকের আবাসিক এলাকার এই হোটেলটি বিমানবন্দর থেকে গাড়িতে ২৫ মিনিটের দূরে অবস্থিত। শনিবার বিকেল ৪টায় কিরগিজস্তান ফুটবল ফেডারেশন মাঠে অনুশীলন করে বাংলাদেশ দল।

উল্লেখ্য, বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশের সঙ্গে রয়েছে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া, জর্দান, কিরগিজস্তান ও তাজিকিস্তান। প্রত্যেক দলের বিপক্ষে হোম এ্যান্ড এ্যাওয়ে ভিত্তিতে মোট ৮টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। গ্রুপ পর্যায়ে এটি মামুনুলদের পঞ্চম ম্যাচ। এর আগের ম্যাচগুলোতে ৩টি হোম ম্যাচের মধ্যে জর্দানের কাছে ৪-০ ও কিরগিজস্তানের কাছে ৩-১ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ। আর তাজিকিস্তানের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে। অপরদিকে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একমাত্র এ্যাওয়ে ম্যাচে হেরেছে ৫-০ গোলে। ‘বি’ গ্রুপে বাংলাদেশ পাঁচ দলের মধ্যে আছে সর্বশেষ স্থানে। ৪ খেলায় ১ ড্র ও ৩ হারে তাদের সংগ্রহ ১ পয়েন্ট। সমান ম্যাচে ১ জয়, ২ ড্র ও ১ হারে ৫ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে কিরগিজস্তান। ৪ ম্যাচে ৩ জয় ও ১ ড্রয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে আছে জর্দান।

নতুন ইতালিয়ান কোচ ফ্যাবিও লোপেজের অধীনে প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে ভাল খেলার প্রত্যাশা মামুনুলদের কণ্ঠে। প্রথমবারের মতো এবং দীর্ঘদিন পর দলে ডাক পাওয়া নতুন খেলোয়াড়রাও চান ভাল নৈপুণ্য উপহার দিতে। লোপেজের অধীনে ২০ দিন অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল ঢাকায় ও সাভারে। প্রাথমিকভাবে ডাকা হয়েছিল ৪১ ফুটবলারকে। তারপর দ্বিতীয় ধাপে রয়ে যায় ২৯ ফুটবলার। শেষে ২৩ জনের চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা করা হয় বৃহস্পতিবার। ইনজুরি, অসুস্থতা ও পারফর্মেন্সের বিবেচনায় দল থেকে বাদ পড়েছেন এনামুল, জাহিদ, এমিলির মতো অভিজ্ঞ ফুটবলাররা।

নতুন কোচের অধীনে পরিবর্তিত পজিশন আর ভিন্ন কন্ডিশনে খেলাটা কঠিন হলেও, ভাল খেলার প্রত্যাশা করছে দল। পাশাপাশি শেখ জামাল ধানম-ির হয়ে কিরগিজস্তানে গিয়ে ‘এএফসি কাপ’ খেলার সম্প্রতি অভিজ্ঞতা আছে এই স্কোয়াডের একাধিক ফুটবলারের। কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে সে অভিজ্ঞতা কাজে লাগবে বলে মনে করেন তারা। সেই সঙ্গে দলে প্রথমবারের মতো ডাক পাওয়া টিম বিজেএমসির ২৪ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড নাবিব নেওয়াজ জীবনও সুযোগ পেলে নিজেকে প্রমাণ করতে মুখিয়ে আছেন। চুক্তি নবায়ন না হওয়াতে বিদায় নিয়ে চলে গেছেন ডাচ্ কোচ লোডভিক ডি ক্রুইফ। তার জায়গায় এসেছেন লোপেজ। ফলে এই ম্যাচটাই হতে যাচ্ছে তার জন্য প্রথম ‘অগ্নিপরীক্ষা’। গত ৮ সেপ্টেম্বর ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ‘হোম’ ম্যাচে জর্দানের বিপক্ষে বাংলাদেশের যে স্কোয়াডটি ছিল, সেই দলের অনেকেই বর্তমান দলে নেই। নতুন করে যুক্ত হয়েছেন ৭ জন। এদের মধ্যে দীর্ঘদিন পর দলে ফিরেছেন ফয়সাল মাহমুদ (৭ বছর পর), ওয়ালী ফয়সাল (২ বছর পর), মাজহারুল ইসলাম হিমেল, শাহেদুল আলম শাহেদ, শাখাওয়াত হোসেন রনি এবং রেজাউল করিম। নতুন মুখ হিসেবে দলে এসেছেন ফরোয়ার্ড নাবিব নওয়াজ জীবন। মূলত টিউমার অপারেশনের কারণে জাহিদ হাসান এমিলি দলে না থাকায় তার স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন জীবন।

এই বিশ দিনে খেলোয়াড়দের পজিশন অদল-বদল করে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন লোপেজ। যেটা নিয়ে খেলোয়াড়দের মধ্যে অসন্তুষ্টি রয়েছে বলে জানা গেছে বিভিন্ন সূত্রে। তবে কোচ লোপেজ মনে করেন তার খেলোয়াড়রা পেশাদার। আর দলের ভালর জন্য তিনি যা করবেন তা খেলোয়াড়রা মেনে নেবেন।