২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চট্টগ্রামভিত্তিক কোম্পানিগুলোর তালিকাভুক্তির আহ্বান

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ চট্টগ্রামভিত্তিক গ্রুপ অব কোম্পানিগুলোকে দেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির আহ্বান জানিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যে দিয়ে কোম্পানিগুলোকে অর্থনীতির মূল ধারার সঙ্গে সংযুক্ত করারও দাবি জানিয়েছে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার। এর পাশাপাশি বাজারে আসার জন্য সহায়ক গাইডলাইনও প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য, ইতোমধ্যে গ্রুপগুলোর মধ্যে কেডিএস এক্সেসরিজের আইপিও আবেদনের লটারি শেষে তালিকাভুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে।

শুক্রবার চট্টগ্রামের বিভিন্ন গ্রুপ অব কোম্পানির প্রতিনিধিদের সঙ্গে ডিএসইর ম্যানেজমেন্ট টিমের বৈঠকে এ আহ্বান জানান ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. স্বপন কুমার বালা। এ সময় কেডিএস, পিএইচপি এবং মোস্তফা গ্রুপের উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। ডিএসইর পক্ষ থেকে চট্টগ্রামভিত্তিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোকে অর্থনীতির মূলধারার সঙ্গে সংযুক্ত হতে তালিকাভুক্তির প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরা হয়।

অন্যদিকে কোম্পানির মালিকানার সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ হাতছাড়া হয়ে যাবার ব্যাপারে কর্তৃপক্ষকে আশ্বস্ত করা হয়। ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রক্রিয়াটিকে মালিকানা হারানো বিষয় হিসেবে না দেখে, জনসাধারণের অংশীদারিত্বের হিসেবে দেখার আহ্বান জানান। ডিএসইর উপস্থাপনা শেষে, কোম্পানিগুলোর কর্তৃপক্ষ যথাযথ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের কোম্পানিকে বাজারে অন্তর্ভুক্ত করার আগ্রহ দেখায়।

সভায় ড. স্বপন কুমার বালা আরও বলেন, দেশকে দ্রুত শিল্পায়িত করার ক্ষেত্রে পুঁজিবাজারের কোন বিকল্প নেই। আর কোন দেশের আর্থিক উন্নয়নের ব্যারোমিটার হচ্ছে পুঁজিবাজারের সূচক। তাই এসব কোম্পানির বাজারে অন্তর্ভুক্তি কোম্পানির ভিত্তিই শক্তিশালী করবে। এই বৈঠকে ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সঙ্গে মার্কেট ডেভেলপমেন্ট বিভাগের মহাব্যবস্থাপক সামিউল ইসলাম, প্রকাশনা ও জনসংযোগ বিভাগের উপ-মহাব্যবস্থাপক মোঃ শফিকুর রহমান ও লিস্টিং বিভাগের সহকারী মহাব্যবস্থাপক শফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ইনফরমেশন টেকনোলজির আইপিও আবেদন শুরু ১ নবেম্বর

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ইনফরমেশন টেকনোলজি কনসালট্যান্টসের প্রাথমিক প্রস্তাব (আইপিও) আবেদন আগামী ২ নবেম্বর থেকে শুরু হয়ে চলবে ১১ নবেম্বর পর্যন্ত। এ সময়সীমা দেশী ও প্রবাসী উভয় ধরনের বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রযোজ্য। কোম্পানিটির প্রসপেক্টাস সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫৫৪তম সভায় কোম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়।

কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ১ কোটি ২০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ১২ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। কোম্পানিটিকে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে শেয়ার ইস্যুর অনুমোদন দিয়েছে কমিশন। কোম্পানিটি পুঁজিবাজার থেকে টাকা সংগ্রহ করে ব্যবসা সম্প্রসারণ, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে। ২০১৪ সালের ৩০ জুনে সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.০৪ টাকা ও নেট এসেট ভ্যালু (এনএভি) হয়েছে ১৮.২৮ টাকা। কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে বেটাওয়ান ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।