১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রূপসা ও গড়াইয়ে নৌকাবাইচ

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ উৎসবমুখর ও আনন্দঘন পরিবেশে শনিবার বিকেলে খুলনার রূপসা নদীতে আবহমান বাংলার ঐতিহ্যবাহী ১০ম নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। মোবাইল অপারেটর কোম্পানি গ্রামীণফোনের সহযোগিতায় নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র এ নৌকা বাইচের আয়োজন করে। বেলা আড়াইটায় ১নং কাস্টমস ঘাট থেকে রূপসা সেতু পর্যন্ত এ নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা শুরু হয়। এতে মোট ২৬ নৌকা অংশগ্রহণ করে।

মাঝিদের সাজ আর বাদ্যের ঝংকার ও অনবরত বৈঠা চালানোর তালে তালে ‘চলরে চলো হেইয়ো, আরও জোরে হেইয়ো’ ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে ওঠে নদীর দুই তীর। সর্বস্তরের হাজার হাজার নারী, পুরুষ ও শিশু রূপসা নদীর দুই তীরে দাঁড়িয়ে এবং নদীতে নৌকায় ও রূপসা সেতুতে অবস্থান নিয়ে মনোমুগ্ধকর এ দৃশ্য উপভোগ করে। প্রতিযোগিতায় দুটি গ্রুপে বিভক্ত বড় গ্রুপে ডুমুরিয়া উপজেলার মা গঙ্গা দল প্রথম, তেরখাদার ময়ুরকণ্ঠী দল দ্বিতীয় ও তেরখাদার ভাইভাই জলপরী দল তৃতীয় এবং ছোট গ্রুপে কয়রা উপজেলার সোনারতরী দল প্রথম, একই উপজেলার ভাই ভাই টাইগার দল দ্বিতীয় ও সাতক্ষীরার জয় মা কালী দল তৃতীয় স্থান লাভ করেছে। নৌকাবাইচ উপলক্ষে কাস্টমস ঘাট এলাকায় অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা জেলা পরিষদের প্রশাসক শেখ হারুনুর রশিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি এস এম মনিরুজ্জামান, খুলনার জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল, পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা গোকুল কৃষ্ণ ঘোষ, গ্রামীণফোন খুলনার হেড অব রিজিওনাল সেল্স এম সাজ্জাদ হোসেন ও বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফ উজ জামান। সভাপতিত্ব করেন নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সভাপতি মোল্লা মারুফ রশীদ। পরে সন্ধ্যায় রূপসা সেতু এলাকায় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

নিজস্ব সংবাদদাতা মাগুরা থেকে জানান, শ্রীপুরের গড়াই নদীতে শুক্রবার বিকেলে গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ বছর ছিল সপ্তম বার্ষিকী নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা। নদীর মাটিকাটা থেকে গোয়ালবাড়ি পর্যন্ত তিন কিলোমিটারব্যাপী এ নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতায় মাগুরা সদর উপজেলার কাপাশহাটির চাঁদ টাইগার নৌকা প্রথম, রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির শেরেবাংলা নৌকা দ্বিতীয় এবং ফরিদপুরের মধুখালীর পবনগতি নৌকা তৃতীয় স্থান অধিকার করে। আনান্দঘন পরিবেশের মধ্য দিয়ে নৌকাবাইচ উদ্বোধন ও বাইচ শেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন প্রধান অতিথি হিসেবে বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) এটিএম আব্দুল ওয়াহ্হাব এমপি। নদী তীরে বসে মেলা।

নির্বাচিত সংবাদ