২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শঙ্করের রেস্তরাঁয় বৈঠক- টক অব দ্য কান্ট্রি!

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর শঙ্করের একটি রেস্তরাঁর বৈঠকটি এখন টক অব দ্য কান্ট্রি। গোয়েন্দারা বৈঠকটিকে উত্তরা ষড়যন্ত্রের মতো আরেকটি চক্রান্ত কিনা তা খতিয়ে দেখছেন। শনিবার রাতে ফোর সিজনস রেস্টুরেন্টে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে একজন উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তা, বেশ ক’জন জেলা জজ, অতিরিক্ত জেলা জজ, সুপ্রীমকোর্টের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার, সুপ্রীমকোর্টের আইনজীবী, তাঁতী লীগের আহ্বায়কসহ অন্তত ২০ জন অংশ নেন।

গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, বৈঠকে যারা অংশগ্রহণ করেছিলেন তাদের বিষয়ে চুলচেরা তদন্ত করা হচ্ছে। গোয়েন্দাদের হাতে বৈঠকে অংশগ্রহণকারীদের যে ছবি আছে তা দেখে তাদের ছাত্রজীবন ও বর্তমান কর্মকা- সম্পর্কে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে কি উদ্দেশে সেখানে তারা উপস্থিত হয়েছিলেন। গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, সুপ্রীমকোর্টের এক এডিশনাল রেজিস্ট্রার ও এক মহিলা কর্মকর্তাসহ বেশ কিছু কর্মকর্তার পরিচয় পাওয়া গেছে। অন্যান্যের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। উল্লেখ্য, ২০০৬ সালের ২৪ নবেম্বর সাবেক জ্বালানি উপদেষ্টা মাহামুদুর রহমানের নেতৃত্বে উত্তরার একটি বাড়িতে এক বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। এতে সরকারী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সেক্টরের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা অংশ নিয়েছিলেন। বহুল আলোচিত এই বৈঠক ‘উত্তরা ষড়যন্ত্র’ হিসেবে পরিচিতি।

প্রতিবাদ ॥ এদিকে রাজধানীর রেস্তরাঁয় একটি বৈঠক নিয়ে নানা গুঞ্জন শিরোনামে প্রকাশিত খবরের প্রতিবাদ জানিয়েছেন তাঁতী লীগের আহ্বায়ক এনাজুর রহমান চৌধুরী। তিনি বলেছেন, তার নাম জড়িয়ে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। কারণ ‘এ ধরনের কোন সভায় আমি উপস্থিত ছিলাম না। আমি বাংলাদেশ তাঁতী লীগের সভাপতি নই, আহ্বায়ক। তিনি আরও বলেন, আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা, আমার বয়স ৭৫। তাই আমার পক্ষে কোন ব্যক্তিকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা কিভাবে সম্ভব সে প্রশ্ন রাখছি।