২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জাতীয় ক্রিকেট লীগে তামিমের শতক

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ওয়ালটন ১৭তম জাতীয় ক্রিকেট লীগের (এনসিএল) তৃতীয় রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনে শতক পেয়েছেন চট্টগ্রামের ওপেনার তামিম ইকবাল। বরিশালের বিপক্ষে প্রথমদিনে ১০ রানের জন্য শতক পাননি। তবে অপরাজিত ছিলেন। দ্বিতীয় দিন ১০ রানের সঙ্গে আরও ৩৭ রান যোগ করে ২২৯ বলে ১৭ চার ও ৩ ছক্কায় ১৩৭ রান করে আউট হন তামিম। তার সঙ্গে তাসামুল হকও (১০৭) শতক করলে চট্টগ্রাম প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেটে ৪৪৪ রানের বিশাল স্কোর দাঁড় করায়। ইমতিয়াজ হোসেনের অপরাজিত ১২৫ রানে প্রথমদিনে রাজশাহীর বিপক্ষে ৪ উইকেটে ২৩৬ রান করেছিল সিলেট। দ্বিতীয় দিন ইমতিয়াজ ১৫৪ রান করেন। দলও ৩২৮ রানের বিশাল স্কোর গড়ে। রাজশাহীও দিন শেষ হওয়ার আগে ৩ উইকেটে ১৮৩ রান করে ১৪৫ রানে পিছিয়ে রয়েছে। ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে প্রথমদিনে ৪ উইকেটে ২৬১ রান করেছিল ঢাকা বিভাগ। দ্বিতীয় দিন ৩২৭ রান করে গুটিয়ে যায় ইনিংস। রকিবুল হাসান ১ রানের জন্য শতক করতে পারেননি। আরাফাত সানি ৬ উইকেট নেন। তবে ঢাকা মেট্রোর শামসুর রহমান শুভ (১১৮) ঠিকই শতক করেছেন। তার এ ইনিংসে ৪ উইকেটে ২২১ রান করে ১০৬ রানে পিছিয়ে রয়েছে ঢাকা মেট্রো। প্রথমদিনে ২১১ রানেই অলআউট হয়ে গিয়েছিল খুলনা। রংপুর ২ উইকেটে ২৩ রান করে প্রথম ইনিংসে ১৮৮ রানে পিছিয়ে ছিল। দ্বিতীয় দিনে ২২০ রানেই অলআউট হয়ে যায় রংপুর। মেহেদী হাসান মিরাজ ৬ উইকেট ও আব্দুর রাজ্জাক ৪ উইকেট নেন। নাসির হোসেন ৯৬ রান করেন। খুলনা দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নেমে ৩০ রান করে ২১ রানে এগিয়ে যায়।

প্রথম স্তর

ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে বড় সংগ্রহই গড়েছে ঢাকা বিভাগ। কিন্তু দুঃখ থেকে গেছে। রকিবুল হাসান প্রথমদিনে ৮৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। দ্বিতীয় দিন ১ রানের জন্য শতক করতে পারেননি। তবে দল ঠিকই ৩২৭ রান করেছে। জবাবে ঢাকা মেট্রো প্রথম ইনিংসে শামসুর রহমান শুভর শতকে ৪ উইকেটে ৬৬ ওভারে ২২১ রান করে।

খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে তৃতীয় রাউন্ডের প্রথম দিনেই বিপাকে পড়ে যায় খুলনা। ২১১ রান করে অলআউট হয়। দিন শেষ হওয়ার আগে ১৮ ওভারে ২৩ রান করে রংপুর ১৮৮ রানে পিছিয়ে থাকে। দ্বিতীয় দিন রংপুরও বিপাকে পড়ে। মিরাজ ও রাজ্জাকের বোলিং নৈপুণ্যে ২২০ রানেই গুটিয়ে যায়। নাসির হোসেন ৪ রানের জন্য শতক করতে পারেননি। দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নেমে মেহেদী হাসান (১৭*) ও ইমরুল কায়েস (১৩*) মিলে ৩০ রান করে ২১ রানে এগিয়ে দেয় খুলনাকে।

দ্বিতীয় স্তর ॥ চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে প্রথমদিন বৃষ্টির বাধার পরও ৫৭.১ ওভারে ২ উইকেটে ২০৬ রান করেছিল চট্টগ্রাম। দ্বিতীয় দিন আরও ৫ উইকেট হারিয়ে ২৩৮ রান যুক্ত করে চট্টগ্রাম। ১০ রানের জন্য তামিম শতক করতে পারেননি প্রথমদিনে। দ্বিতীয় দিনে খেলতে নেমে ১৩৭ রান করেন। তাসামুল হক ৩৯ রান করে প্রথমদিন অপরাজিত ছিলেন। দ্বিতীয়দিন তিনিও শতক করেন। চট্টগ্রাম রানের পাহাড় গড়ে। বগুড়ায় শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে সিলেট-রাজশাহী দুই দলই দুর্দান্ত খেলছে। ম্যাচের প্রথম দিনে সিলেটের ইমতিয়াজের শতকে ২৩৬ রান করে সিলেট। দ্বিতীয় দিন ইমতিয়াজও ১৫৪ রান করেন। সিলেটও ৩২৮ রান করে থামে। রুমন আহমেদও ৮২ রান করেন। সিলেটের ইনিংস শেষে রাজশাহীও ভালই খেলছে। ফরহাদ হোসেনের অপরাজিত ৮০ ও নাজমুল হোসেন শান্তর ৬২ রানে ৩ উইকেটে ৪৫.৪ ওভারে ১৮৩ রান করে রাজশাহী।

স্কোর ॥ তৃতীয় রাউন্ড-দ্বিতীয়দিন শেষে

প্রথম স্তর

ঢাকা বিভাগ-ঢাকা মেট্রো ম্যাচ

ঢাকা বিভাগ প্রথম ইনিংস প্রথমদিন ২৬১/৪; রকিবুল ৮৯*; আরাফাত ৩/৭৯ ও দ্বিতীয়দিন ৩২৭/১০; ১১৩.৪ ওভার (রকিবুল ৯৯, নাদিফ ৩৯, শরীফ ২০; আরফাত ৬/৯৬)।

ঢাকা মেট্রো প্রথম ইনিংস ২২১/৪; ৬৬ ওভার (শামসুর ১১৮, সৈকত ৪৮, মার্শাল ২৪; মোশাররফ ২/৭৩)।

খুলনা-রংপুর বিভাগ ম্যাচ

খুলনা প্রথম ইনিংস ২১১/১০; মেহেদী ৬৩; সানজিত ৪/৩৭, সোহরাওয়ার্দী ৪/৮১ ও দ্বিতীয় ইনিংস ৩০/০; ১৭ ওভার (মেহেদী ১৭*, ইমরুল ১৩*)।

রংপুর প্রথম ইনিংস প্রথমদিন ২৩/২; নাঈম ৫* ও দ্বিতীয়দিন ২২০/১০; ৯৮.২ ওভার (নাসির ৯৬, নাঈম ৪৪, সোহরাওয়ার্দী ২৪; মেহেদী ৬/৫০, রাজ্জাক ৪/৭৭)।

দ্বিতীয় স্তর

চট্টগ্রাম-বরিশাল ম্যাচ

চট্টগ্রাম প্রথম ইনিংস প্রথমদিন ২০৬/২; তামিম ৯০*, তাসামুল ৩৯* ও দ্বিতীয় দিন ৪৪৪/৭; ১৫১ ওভার (তামিম ১৩৭, তাসামুল ১০৭, ইরফান ৪৭; সোহাগ ৩/১১৪, আল আমিন ২/৫৬)।

সিলেট-রাজশাহী ম্যাচ

সিলেট প্রথম ইনিংস প্রথমদিন ২৩৬/৪; ইমতিয়াজ ১২৫*, রুমন ৮১* ও দ্বিতীয়দিন ৩২৮/১০; ১২৮.৫ ওভার (ইমতিয়াজ ১৫৪, রুমন ৮২, এনামুল জুনিয়র ২৯)।

রাজশাহী প্রথম ইনিংস ১৮৩/৩; ৪৫.৪ ওভার (ফরহাদ ৮০*, নাজমুল ৬২, জুনায়েদ ১৪)।