২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

'পেলেকে নিয়ে ভারতীয় ফুটবল কর্মকর্তারা আগ্রহী নন'

'পেলেকে নিয়ে ভারতীয় ফুটবল কর্মকর্তারা আগ্রহী নন'

অনলাইন ডেস্ক॥ প্রায় ৩৮ বছর পর কলকাতায় এসেছেন ব্রাজিলের কিংবদন্তী ফুটবল খেলোয়াড় পেলে। ইন্ডিয়ান সকার লীগ উপলক্ষেই মূলত কলকাতায় এসেছেন পেলে। ১৯৭৭ সালে একবার ভারত ঘুরে গিয়েছিলেন পেলে। ইডেন গার্ডেনে মোহনবাগানের সাথে তার তৎকালীন ক্লাব কসমসের হয়ে খেলেছিলেন তিনি। এমন এক সময়ে তিনি এলেন যখন সকার লীগের মাধ্যমে ভারতজুড়ে ফুটবলের একটি নতুন উম্মাদনা দেখা যাচ্ছে। এ নিয়ে সেখানকার ফুটবলপ্রেমী এবং সংশ্লিষ্টদের মধ্যে কেমন প্রতিক্রিয়া?

কলকাতার ক্রীড়া সাংবাদিক গৌতম ভট্টাচার্য বিবিসিকে বলছিলেন, “এটা খুব অদ্ভুত ব্যাপার পেলের সফর নিয়ে ফুটবল কর্তারা আলোড়িত নন। রাজ্য সংস্থার কর্তারা আলোড়িত নন, তারা মনে করছেনননা পেলের সাথে দেখা করে কোন টিপস নেবেন ভারতের ফুটবলের জন্যে। তাকে নিয়ে ভারতীয় ফুবলের ফেডারেশনের কর্মকর্তাদের মধ্যে তেমন কোন আগ্রহ দেখা যাচ্ছেনা”।

“পেলেকে নিয়ে আলোড়িত শুধুমাত্র ক্রীড়াপ্রেমী মানুষ” -বলেন গৌতম ভট্টাচার্য। “অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ যেদিন খেলবে সেদিন দর্শক সারিতে বসে খেলা দেখবেন পেলে আর সেদিনের সব টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। মনে হচ্ছে যেন কলকাতার দর্শকদের মধ্যে একধরনের নস্টালজিয়া কাজ করছে”। তিনদিনের সফরে পেলের বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে অন্যতম হলো তার হাত দিয়ে ১৯৭৭-এর মোহনবাগান ফুটবল দলকে সংবর্ধনা দেওয়া হবে। এছাড়া মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মাঠে বসে ইন্ডিয়ান সকার লিগ (আইসিএল) এর খেলা দেখবেন তিনি। সৌরভ গাঙ্গুলির দল অ্যাতলেটিকো ডি কলকাতার ম্যাচ রয়েছে মঙ্গলবার। ঐতিহাসিকভাবে কলকাতাই ভারতে ফুটবলের তীর্থস্থান, বিদেশের অনেক খেলোয়াড় সকার লীগে খেলছেন, পেলের মতো তারকারা আসছেন।

ফুটবলের প্রতি ভারতের তরুণদের আগ্রহ বাড়ছে কিনা এমন প্রশ্নে গৌতম ভট্টাচার্য বলেন, তরুণদের মধ্যে আগ্রহ বাড়ছে তা কিছু ম্যাচের টিকিট বিক্রি দেখে বুঝা যায়।

তবে ফুটবল নিয়ে ভারতীয় ফেডারেশনের কর্মকর্তাদের মধ্যে তেমন কোনও পরিকল্পনা নেই বলে জানালেন মি: ভট্টাচার্য।

“এই পরিকল্পনা করছেন মূলত নিতা আম্মানি যিনি আইসিএল চালান আর কিছু ক্রিকেটার বিশেষ করে সৌরভ গাঙ্গুলি যিনি অনুর্ধ্ব১৭ বিশ্বকাপের মূল অ্যাম্বাসেডর”।

“দেখা যাচ্ছে শিল্পপতির হাত ধরে , ভারতীয় ক্রিকেট সুপারস্টারের মধ্য দিয়ে ফুটবল নতুন মুখ দেখছে। তরুণরাও আগ্রহী হচ্ছে কারণ আইপিএলের ঢঙে ফুটবল ম্যাচগুলো হচ্ছে, বিদেশীরা আসছে। কিন্তু ফুটবল কর্তাদের কোনও প্রভাব নেই এতে”- বলেন ক্রীড়া সাংবাদিক গৌতম ভট্টাচার্য।

সূত্র : বিবিসি বাংলা