২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্টাফ সঙ্কটে ব্রিটিশ কারিশিল্প চরম সঙ্কটে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ব্রিটেনে বাংলাদেশীদের শ্রমে গড়া প্রায় দু’শ’ বছর পুরনো কারিশিল্প। আর এর ওপর ভিত্তি করেই ব্রিটেনে সুপ্রতিষ্ঠিত পুরো বাংলাদেশী কমিউনিটি। শুধুমাত্র স্টাফ সঙ্কটের কারণেই ব্রিটেনে একের পর এক বন্ধ হয়ে যাচ্ছে রেস্টুরেন্টগুলো। ব্রিটেনে বাংলাদেশ থেকে দক্ষ শেফ নেয়ার সুযোগ থাকলেও নানা কারণে রেস্টুরেন্ট মালিকের পক্ষে তা সম্ভব হয়ে উঠে না।

প্রায় সাড়ে ৪শ’ কোটি পাউন্ড অর্থের যোগানদাতা এবং লক্ষাধিক লোকের কর্মসংস্থানের ব্রিটিশ কারি ইন্ডাস্ট্রি আজ চরম সঙ্কটের মুখে। দক্ষ শেফ ও স্টাফ সঙ্কটের কারণে ধীরে ধীরে তা বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। ইতোমধ্যে ব্রিটেনে প্রতি সপ্তাহেই বন্ধ হচ্ছে একের পর এক রেস্টুরেন্ট।

বাংলাদেশসহ অন্যান্য দেশ থেকে ব্রিটেনে দক্ষ শেফ নেয়ার সুযোগ রয়েছে। তবে, এসব শেফের অনেক বেশি বেতন প্রদানের আইনের কারণে রেস্টুরেন্ট মালিকদের পক্ষে তাও সম্ভব হয়ে ওঠে না।

এ অবস্থায় বাংলাদেশী রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী নেতারা চেষ্টা করছেন সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করে এই বেতন কাঠামো কমিয়ে আনতে। আর প্রস্তাবিত ইমিগ্রেশন নীতিমালায় স্টাফদের বৈধতার কাগজপত্র যাচাই-বাছাই না করে নিয়োগ দিলে জেল জরিমানার পাশাপাশি রেস্টুরেন্টের লাইসেন্স বাতিলের সিদ্ধান্তে নতুন সঙ্কটে পড়তে যাচ্ছে এই কারিশিল্প।

এই কারিশিল্প রক্ষায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীসহ অনেক এমপি, মন্ত্রী নানা প্রতিশ্রুতি দিলেও তা কার্যকরে কেউই কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি। পুরো ব্রিটেনজুড়ে বাংলাদেশী মালিকানাধীন প্রায় ১২ হাজার রেস্টুরেন্ট রয়েছে। রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীরা মনে করছেন, এই শিল্পের বর্তমান সঙ্কট সমাধানে এখনই জোর পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন। তা না হলে বাংলাদেশীদের শ্রমেগড়া এই বিশাল শিল্পটি চলে যেতে পারে ইউরোপিয়ানদের দখলে।

এম এ কাইয়ূম সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের নতুন জেনারেল ম্যানেজার

এম এ কাইয়ূম জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে পদোন্নতি লাভ করে সম্প্রতি সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের বঙ্গবন্ধু এভিনিউ কর্পোরেট শাখায় জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে যোগদান করেছেন। এর আগে তিনি চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ কর্পোরেট শাখায় ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৮০ সালে বি, কম (সম্মান) এবং ১৯৮২ সালে এম কম ডিগ্রী লাভ করে ১৯৮৪ সালে ফিন্যান্সিয়াল এনালিস্ট হিসেবে সোনালী ব্যাংকে যোগদান করেন। তিনি ১৯৮৪ থেকে ১৯৮৫ সালে ঢাকা কাজী জহির এ্যান্ড কোম্পানি থেকে সিএ কোর্স সম্পন্ন করেন।

এম এ কাইয়ূম চট্টগ্রাম জেলার মীরসরাই উপজেলার মুরাদপুর গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। -বিজ্ঞপ্তি।