২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আয়ু বেড়ে যাবে ৬০ শতাংশ!

আয়ু বেড়ে যাবে ৬০ শতাংশ!

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বলেছিলেন, মরিতে চাহি না আমি এ সুন্দর ভুবনে। এ সুন্দর পৃথিবী ছেড়ে কেই বা চলে যেতে চায়? কিন্তু চাইলেও তো থাকা যায় না। মানুষ মরণশীল এ যে চিরন্তন সত্য। তাহলে আয়ু যদি কিছু বাড়ানো যায় তবে, কিছু দিন বেশি পৃথিবীর সৌন্দর্য তো উপভোগ করা তো যাবে। এজন্য দীর্ঘদিন ধরে বিজ্ঞানীরা কাজ করে চলছেন। দীর্ঘ সাধনার পর উপায়ও খুঁজে পেয়েছেন তারা। তারা বুঝতে পেরেছেন যত নষ্টের গোড়া মানুষের জিন। এই জিনের কারণেই বার্ধক্য ত্বরান্বিত হয় মানুষের। অতএব দেহ থেকে ক্ষতিকর জিন মুছে ফেলতে পারাটাই সমাধান। তাতে বার্ধক্য ঠেকিয়ে রাখা হয়ত যাবে না, বিলম্বিত করা যাবে। অর্থাৎ আয়ু বাড়ানো যাবে। ক্ষতিকর জিন যদি মুছে ফেলা যায়, তবে প্রতিটি মানুষের আয়ু বেড়ে যাবে কম করে হলেও ৬০ শতাংশ। এক কোষী ছত্রাকের জিনকে অকেজো বা নিষ্ক্রিয় করে দিয়ে তারা দেখতে পেয়েছেন এতে এই ছত্রাকের জীবনকালের পরিসর বেড়ে গেছে বহুগুণ। হাতেকলমে চালানো তাদের এই পরীক্ষাটি বিজ্ঞানের ইতিহাসে বড় এক অগ্রগতি। এই অগ্রগতির পরবর্তী ধাপের সাফল্যের মধ্যেই নিহিত রয়েছে মানুষের অমর হওয়ার পথে বড় আশাবাদের বীজ। বিজ্ঞানীরা মানুষের দ্রুত বুড়িয়ে যাওয়ার জন্য দায়ী দুই’শর বেশি ক্ষতিকর জিন শনাক্ত করেছেন। এই ক্ষতিকারক জিনগুলোকে দেহ থেকে ঝেঁটিয়ে বিদেয় করতে পারলেই বার্ধ্যক্য হবে প্রলম্বিত। বেড়ে যাবে আয়ু। সুন্দর এ পৃথিবীকে আরও বেশি সময় ধরে উপভোগ করা সম্ভব হবে।

সূত্র: ওয়েবসাইট