২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সরকারকে আন্তর্জাতিক চাপে ফেলতেই যাজক হত্যাচেষ্টা

  • পাঁচ জেএমবি জঙ্গী গ্রেফতার ॥ আদালতে স্বীকারোক্তি

নিজস্ব সংবাদদাতা, পাবনা, ১২ অক্টোবর ॥ মহাজোট সরকারকে আন্তর্জাতিক চাপের মুখে ফেলার উদ্দেশ্যেই নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গী সংগঠন জেএমবি বিদেশী কাউকে কিংবা খ্রীস্টান সম্প্রদায়ের কোন ব্যক্তিকে হত্যার সিদ্ধান্ত নেয় বলে পাবনায় গ্রেফতার হওয়া জেএমবি সদস্যরা স্বীকার করেছে। ঈশ্বরদীর ‘ফেইথ বাইবেল চার্চ অব গড’ গীর্জার যাজক লুক সরকারকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় জেএমবির পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার পাবনার অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রেজাউল করিমের আদালতে গ্রেফতারকৃত রাকিব ওরফে রাব্বি ৬৪ ধারায় জবানবন্দীতে স্বীকার করেছে যে, তারা জেএমবির সক্রিয় সদস্য। দেশকে অস্থিতিশীল অবস্থায় ফেলতে কমান্ডারের নির্দেশে তারা যাজক লুক সরকারকে হত্যার চেষ্টা চালায়। পুলিশ গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে আরও তথ্য সংগ্রহের জন্য আদালতের কাছে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করে। আদালত মঙ্গলবার শুনানির দিন ধার্য করেছে। সোমবার পাবনা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার (এসপি) আলমগীর কবির এ কথা জানান।

পাবনা জেলা পুলিশ এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টারের এলআইসি শাখার যৌথ আভিযানে রাজধানী ঢাকা, পাবনা ও সিরাজগঞ্জ থেকে বিভিন্ন সময় তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে বেশকিছু জেহাদী বইও জব্দ করা হয় । এরা হলোÑ পাবনা সদর উপজেলার নূরপুর গাংকোলা গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে আব্দুর রাকিব ওরফে রাব্বি (২২), সিঙ্গা পালপাড়া গ্রামের আব্দুল রহিম শেখ, নাজিরপুর গ্রামের নওশের প্রামাণিকের ছেলে আব্দুল আলিম (৩৬), মজিদপুর মধ্যপাড়া গ্রামের মুনসুর আলীর ছেলে শরিফুল ইসলাম ওরফে তুলিব (২২), সিঙ্গা মহল্লার আব্দুর রহিমের ছেলে জিয়াউর রহমান (৩২) ও সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার রাঘববাড়িয়া গ্রামের কাশেম আলীর ছেলে আমজাদ হোসেন (৩০)।

গ্রেফতারকৃত শরিফুল ইসলাম তুলিব ডিপ্লোমা প্রকৌশলী। সে ঢাকার একটি বেসরকারী ফার্মে চাকরি করত। চাকরি ছেড়ে এখন সর্বক্ষণিক জেএমবির হয়ে কাজ করে। জিয়াউর রহমান বিদ্যুত মিস্ত্রী, রকিব ও আলীম হোসিয়ারি শ্রমিক এবং আমজাদ হোসেন ভ্যানচালক।

গ্রেফতাকৃতরা আগে জামায়াত সমর্থিত ছাত্রশিবিরের সদস্য ছিল বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। তারা পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ মাঠে সন্ধ্যায় প্রায়ই মিটিং করত বলে জানায়। পাবনা জেলায় শতাাধিক সদস্য তৎপর আছে বলেও তারা জানায়।

পুলিশ সুপার আরও জানান, গ্রেফতারকৃত জঙ্গীরা ওপরের নির্দেশে সরকারকে আন্তর্জাতিকভাবে চাপে ফেলতে পাবনায় কর্মরত কোন বিদেশী নাগরিক কিংবা খ্রীস্টান সম্প্রদায়ের কোন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে হত্যার পরিকল্পনা করে। সে অনুযায়ী তারা ধর্মযাজক লুক সরকারকে হত্যার চেষ্টা করে বলে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। ঈশ্বরদী পৌর এলাকার স্কুলপাড়ায় গত ৫ অক্টোবর সকালে অজ্ঞাতপরিচয় তিন যুবক ধর্মদীক্ষা নেয়ার কথা বলে লুক সরকারের ভাড়াবাসায় ঢুকে তাকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করে।

এ ঘটনায় আহত লুক সরকার নিজেই বাদী হয়ে ওই দিন রাতে অজ্ঞাতপরিচয় তিন যুবককে আসামি করে একটি মামলা করেন। এদিকে পাবনা সদর থানায় সাব-ইন্সপেক্টর মোহাম্মদ আলী বাদী হয়ে গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে দ্রুতবিচার আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।