২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আমিনুল ইসলামের মিনিয়েচার চিত্র প্রদর্শনী ‘আলোয় আঁধারে’

আমিনুল ইসলামের মিনিয়েচার চিত্র প্রদর্শনী ‘আলোয় আঁধারে’
  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেয়ালজুড়ে সাজিয়ে রাখা ছোট ছোট ক্যানভাস। চিত্রপটগুলো ছোট হলেও উদ্ভাসিত হয়েছে গভীরতা আশ্রয়ী বৈচিত্র্যময় বিষয়। রঙের বৈভবে যাপিত জীবনের নানা ঘটনাপ্রবাহে উপস্থাপিত হয়েছে শিল্পীর একান্ত ভাবনাগুলো। মনের অব্যক্ত কথাগুলো জায়গা করে নিয়েছে রঙ-তুলির ছোঁয়ামাখা সব ছবিতে। পরাবাস্তব আঙ্গিকে এসব মিনিয়েচার ছবি এঁকেছেন তরুণ চিত্রশিল্পী আমিনুল ইসলাম আকন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের জয়নুল গ্যালারিতে চলছে এই শিল্পীর চিত্রকর্ম প্রদর্শনী। শিরোনাম আলোয় আঁধারে।

সোমবার বিকেলে প্রদর্শনী প্রাঙ্গণে কথা হয় আমিনুল ইসলাম আকনের সঙ্গে। নিজের সৃজিত চিত্র-ভাবনার কথা তুলে শিল্পী বলেন, প্রতিনিয়তই আমাদের চারপাশে ঘটে যায় অনেক ঘটনা। এর ভেতর কিছু বিষয় গভীরভাবে নাড়া দিয়ে যায় আপন মনোজগতকে। চাইলেও সে কথাগুলো কাউকে বলা যায় না, কিংবা প্রকাশিত হয় না। অব্যক্তই রয়ে যায়। তেমন ভাবনাগুলোকেই আমি মেলে ধরেছি ক্যানভাসে। যাপিত জীবনের ইতিবাচক ও নেতিবাচক সে বিষয়গুলোকেই উপস্থাপন করেছি মিনিয়েচার বা ক্ষুদ্রাকৃতির ক্যানভাসে। স্বল্পপরিসরে ছড়িয়ে দিয়েছি চিন্তার বিশালতাকে।

রঙের ব্যবহারে ভীষণ সাহসিকতার স্বাক্ষর রেখেছেন স্বপ্নচারী এই চিত্রকর। এ্যাক্রিলিক রঙে এঁকেছেন যাপিত জীবনের নানা অনুষঙ্গ। সেখানে আছে ভালবাসা, বিরহ, আনন্দ-বেদনা, ক্ষোভ-ঘৃণাসহ বিচিত্র বিষয়। আছে সামাজিক অবক্ষয়ের দৃশ্যপট। এমনকি শিল্পীর চিত্রপট থেকে বাদ যায়নি নিসর্গের নান্দনিকতা। সেই সঙ্গে উত্তর আধুনিক ও পরাবাস্তবতার পথে প্রকাশিত হয়েছে স্বপ্নভঙ্গের বেদনাও। নিরীক্ষাধর্মিতার সঙ্গে বর্ণের বিভায় স্বতন্ত্রশৈলীতে আঁকা ছবিগুলো তাই সহজেই নজর কাড়ে শিল্পানুরাগীর। এ্যাক্রিলিক, কালি-কলম, জলরং ও মিশ্র মাধ্যমে সৃজিত চিত্রকর্মগুলোর বিন্যাসেও রয়েছে নিপুণতার ছাপ।

পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার দৈন্যতার কথা বলে যায় রক্তক্ষরণ শিরোনামের ছবিটি। চিত্রপটজুড়ে উদ্ভাসিত হয়েছে নারী ও পুরুষের অবয়ব। লোভাতুর চোখে নাীরর মুখটি চেপে ধরে নির্যাতনে মেতে উঠেছে পুরুষটি। নারী নির্যাতিত হওয়ার পরে তার বাইরের আঘাত দৃশ্যমান হলেও ভেতরের বেদনাটা যেন সুপ্তই রয়েছে। তাই তো ছবির বর্ণনায় শিল্পী বলেছেন- ‘পুরুষ তোমার চোখে লোভ/আর কত রক্তক্ষরণ হলে/বন্ধ হবে পুরুষতান্ত্রিক এই আদিম আদিম খেলা।’ স্তব্ধ নিউরোন শিরোনামের চিত্রকর্মটি ভাবিয়ে তোলে শিল্পানুরাগীকে। রঙ-তুলির আঁচড়ে শিল্পী তুলে এনেছেন একজন মানুষের মস্তিকের কোষগুলোকে, যা সব সময় প্রতিবাদী হলেও ভয় পায় সোচ্চার হতে। মানুষের বিদায় যাত্রার চিত্র তুলে এনেছেন শেষযাত্রা শিরোনামের চিত্রকর্মে। এ ছবির মাধ্যমে জানান দিয়েছেন একজন মৃত্যুর পর হয়ত বাক্সবন্ধী হয়ে হারিয়ে যায় অজানায়, তবে তার দেহের ছায়ায় আমাদের মাঝে সব সময়ই থেকে যায়। বৃষ্টির বিষণœ শিরোনামে ছবিটি যেন বলে প্রকৃতির সঙ্গে মানুষের নিগূঢ় সম্পর্কের কথা। তুমুল বর্ষণের মাঝে নতমস্তকে দেয়ালে পিঠ ঠেকিয়ে দাঁড়িয়ে আছে এক নারী। উল্টোদিকে পড়েছে ভাঙচুর হয়ে যাওয়া তার প্রতিবিম্ব। এভাবেই বেদনার দৃশ্যকল্প উঠে এসেছে ছবিটিতে। বর্ণচোরা, বহুরূপী, বৃত্তের বাইরে, ঝরে পড়ার অপেক্ষা, আলোয় আঁধারে, নীরব উল্লাস, রৌদ্রস্নান, চরিত্র কিংবা খোলা হাওয়া শিরোনামের নানাভাবে প্রকাশিত হয়েছে মানবিক মূল্যবোধ ও যাপিত জীবন নিয়ে শিল্পীর মনোভাবনা।

১৩৭টি মিনিয়েচার চিত্রকর্ম দিয়ে সাজানো হয়েছে প্রদর্শনীটি। রবিবার থেকে শুরু হওয়া পাঁচ দিনের এ প্রদর্শনী শেষ হবে ১৫ অক্টোবর। প্রতিদিন সকাল দশটা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

বাংলার মুখ লোকোৎসব ও গুণীজন সম্মাননা ॥ ৬৯তম জন্মজয়ন্তীতে দেশরতœ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্জন করেছেন দুটি গুরুত্বপূর্ণ পুরস্কার। এ দুটি সম্মাননা হচ্ছে- পরিবেশ ও জলবায়ু বিষয়ক পুরস্কার ‘চ্যাম্পিয়ন্স অব দ্য আর্থ’ এবং আন্তর্জাতিক টেলিকম টেকসই উন্নয়ন পুরস্কার। প্রধানমন্ত্রীর এই প্রাপ্তি উপলক্ষে সাংস্কৃতিক সংগঠন বাংলার মুখ আয়োজন করেছে বাংলার মুখ লোকোৎসব ও গুণীজন সম্মাননা শীর্ষক অনুষ্ঠানের। আগামী ২২ অক্টোবর থেকে শিল্পকলা একাডেমির উন্মুক্ত মাঠে তিন দিনের এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এ উপলক্ষে সোমবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সভাপতি গীতিকার সাইফুল আজম বাশার। সূচনা বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শিল্পী সঞ্জীব দাস অপু। এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- নাট্যজন ইনামুল হক, নাট্যজন এস এম মহসীন, বাউলশিল্পী আলম দেওয়ান, সাংবাদিক শাবান মাহমুদ প্রমুখ।

কাজী সালাউদ্দিনের চিত্রপ্রদর্শনী আজ ॥ রাজধানীর ধানম-ির আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ দো ঢাকার লা গ্যালারি আয়োজন করেছে শিল্পী কাজী সালাউদ্দিনের ৩৩তম একক চিত্রপ্রদর্শনী। প্রদর্শনীতে ঠাঁই পাবে শিল্পীর প্রায় ৩০টি চিত্রকর্ম। ‘অরগানিক সিটি’ শীর্ষক এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন হবে আজ মঙ্গলবার। সন্ধ্যা ৬টায় আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ দো ঢাকার ক্যাফে-লা ভেরান্দায় প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন ভাস্কর হামিদুজ্জামান খান। বিশেষ অতিথি থাকবেন স্থপতি জালাল আহমদ এবং শিল্পী আব্দুস শাকুর শাহ। সভাপতিত্ব করবেন আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ দো ঢাকার পরিচালক ব্রুনো প্লাস।

শিল্পকলার নাট্যশালায় তিন নাটকের মঞ্চায়ন ॥ সোমবার শরত সন্ধ্যায় মঞ্চস্থ হলো ‘ঘরজামাই’, ‘সাইকেলঅলা’ ও ‘শিকারী’ শিরোনামের তিনটি নাটক। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল হলে মঞ্চস্থ হয় ঢাকা থিয়েটার মঞ্চের নাটক ঘরজামাই, পরীক্ষণ থিয়েটার হলে গতি থিয়েটারের নাটক শিকারী এবং স্টুডিও থিয়েটার হলে নাট্যম রেপার্টরির নাটক সাইকেলঅলা।

ফরাসী ভাষায় রচিত মলিয়ের জর্জেস ড্যানডিন ও লে কউফোন্ডি অবলম্বনে ‘ঘরজামাই’ নাটকটির রূপান্তর ও নির্দেশনায় ছিলেন গোলাম সারোয়ার। সোমবার ছিল নাটকটির ৩৪২তম মঞ্চায়ন। নাটকটিতে অভিনয় করেছেন- রিপন, লিজা, তোড়া, মাহতাব, কাওসার, টিপু, প্রীতি, ইসহাক প্রমুখ।

অন্যদিকে একই সময়ে স্টুডিও থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হয় প্রখ্যাত নাট্যকার বিজয় টেন্ডুলকারের ‘দ্য সাইক্লিস্ট’ অবলম্বনে নির্মিত নাটক ‘সাইকেলঅলা’। নাট্যম রেপার্টরি প্রযোজিত নাটকটির নির্দেশনায় ছিলেন আইরিন পারভীন লোপা। সোমবার ছিল নাটকটির অষ্টম মঞ্চায়ন। এতে অভিনয় করেন- জুনায়েদ ইউসুফ, শুভাশীষ দত্ত তন্ময়, জান্নাতুল ফেরদৌস, তাহমিনা খাতুনসহ অনেকে।

একই সময়ে পরীক্ষণ থিয়েটার হলে গতি থিয়েটারের মঞ্চস্থ হওয়া ‘শিকারী’ নাটকটির নির্দেশনা দিয়েছেন আশিক সুমন। শিকারী একদিকে বন্দীদশা, অন্যদিকে বাঁধার সমস্ত দেয়াল দলিত করে মুক্তপ্রাণের নিজেকে খুঁজে পাবার গল্প। নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন- আবদুল্লাহ আল মামুন, মনি পাহাড়ি, আশিক সুমন ও উপল সরকার।