১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মিয়াঁদাদকে ছাড়িয়ে ইউনুস খান

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ গ্রেট জাভেদ মিয়াঁদাদকে টপকে পাকিস্তান টেস্ট ইতিহাসের সর্বোচ্চ রানের (ক্যারিয়ার) মালিক এখন ইউনুস খান। ছিলেন ১৯ রান দূরে। মঙ্গলবার আবুধাবি টেস্টের প্রথম দিনে প্রথম ইনিংসে ব্যক্তিগত ৩৮ রানে আউট হওয়ার পথে অনন্য এ অর্জনে নাম লেখান ৩৭ বছর বয়সী ইউনুস। ১০২তম টেস্টে তার মোট রান এখন ৮,৮৫২। ৮,৮৩২ রান নিয়ে দুইয়ে নেমে গেলেন মিয়াঁদাদ। আবুধাবিতে টস জিতে ব্যাটিং নেন অধিনায়ক মিসবাহ-উল হক। দুই ওপেনার শান মাসুদ ও মোহাম্মদ হাফিজ আউট হওয়ার পর ক্রিজে আসেন ইউনুস। ১০১ টেস্টে যখন তার নামের পাশে ৮,৮১৪ রান। ব্যক্তিগত ১৬ রান করে প্রথমে ইনজামাম-উল হক (৮,৮২৯) ও পরে ১৯ রান করে মিয়াঁদাদককে পেছনে ফেলেন খান সাহেব।

বয়স ৩৯-এর কোঠায় পড়লেও ব্যাট হাতে দুরন্ত ছুটে চলেছেন ইউনুস। গত ১২ মাসে হাঁকিয়েছেন ৮ সেঞ্চুরি, এ সময়ে টেস্টে তার গড় ৮০’র ওপরে। স্বভাবতই ইউনুসের উচ্ছ্বসিত প্রশংসায় মেতেছেন অধিনায়ক। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মিসবাহ বলে, ‘ড্রেসিং রুমে ওর মতো একজন গ্রেট ব্যাটসম্যানকে পেয়ে আমরা গর্বিত। সেঞ্চুরি সংখ্যা, রানসহ আরও অনেক রেকর্ডই এখন ইউনুসের দখলে। মানুষ হিসেবেও চমৎকার। তরুণরা ওকে আদর্শ মানে। সুযোগ পেলে সেও তরুণদের অনেক কিছু শিখিয়ে দেয়। ইউনুস ব্যাট হাতে দলের জন্য নিবেদিতপ্রাণ সৈনিক। যে রান করতে ভালবাসে, দলকে জেতাতে চায়।’ ১৯৯৩ সালে পাকিস্তানের সর্বোচ্চ রানের মালিক হয়েছিলেন মিয়াঁদাদ। গত ২২ বছর সেটি অক্ষত ছিল। কাছাকাছি গিয়েও পারেননি ইনজামাম (২০০৭)। অবশেষে জীবন্ত কিংবদন্তিকে পেছনে ফেলে পাহাড় চূড়ায় ইউনুস।

তবে বিনয়ী ইউনুস সম্মানে, জনপ্রিয়তায় মিয়াঁদাদকেই এগিয়ে রাখেন। তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ টেস্ট রানের মালিক হওয়াটা দারুণ এক অনুভূতির। তবে নিজেকে মিয়াদাদের সঙ্গে তুলনা করতে চাই না। তিনি সত্যিকারের কিংবদন্তি।’ বলেন ইউনুস। তিনি আরও যোগ করেন, ‘আমি কিছুতেই মিয়াঁদাদ-ইনজামামদের সমকক্ষ নই। তারা পাকিস্তান ক্রিকেটের স্বপ্নপূরুষ, আমারও আইডল। তাদের সঙ্গে নিজের তুলনা করাটা ধৃষ্টতার শামিল। কেবল সামর্থ্যরে সেরাটা দিয়ে ব্যাটিং করাই লক্ষ্য। ইনজামাম-মোহাম্মদ ইউসুফদের দেখেছি, দলের জন্য জীবন বাজি রেখেছেন তারা। জয়ে অবদান রাখতে পারলে আমিও গর্ববোধ করি।’ তিনি আরও যোগ করেন, ‘রেকর্ড নয়, আমি বরং গোটা সিরিজের দিকে তাকাতে চাই। ইংল্যান্ডের সঙ্গে এই সিরিজটা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জয় পেতে সেরাটা দিতে চাই।’

কেবল সর্বোচ্চ রানই নয়, পাকিস্তানের হয়ে আরও অনেক অর্জনে ইতোমধ্যে নিজেকে শামিল করেছেন ইউনুস। দেশটির হয়ে সবচেয়ে বেশি ৩০ সেঞ্চুরির মালিক তিনিই।

বাংলাদেশেই অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ নিশ্চিত করল আইসিসি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল বাংলাদেশ সফরে না আসার পর দক্ষিণ আফ্রিকা মহিলা ক্রিকেট দলও নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে বাংলাদেশে আসেনি। এ জন্য আগামী বছর জানুয়ারিতে অনুর্ধ ১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ নিয়েও ভারতের মিডিয়া শঙ্কা প্রকাশ করেছে। কিন্তু আইসিসির সভা শেষে মঙ্গলবার ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসিই তা নিশ্চিত করে দিয়েছে। জানিয়ে দিয়েছে, বাংলাদেশেই ২২ জানুয়ারি থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি অনুর্ধ ১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ হবে।

যখন শঙ্কা প্রকাশ করা হলো, এরপরই অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ যে বাংলাদেশেই হবে; তা ইঙ্গিত দিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও। সোমবার আইসিসি সভা শুরুর আগে রবিবার বলেছিলেন, ‘অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ হবে কি হবে না, এটা মাথাতেই আসে কেন? বিশ্বকাপ যে হবে তা তো আগে থেকেই জানি আমরা। তা নিশ্চিত হয়েছে আগেই।