১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শুরুর আগেই ধাক্কা, খেলতে চায় না বাজান!

  • শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ ফুটবল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মঞ্চ প্রস্তুত। চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে আগামী ১৯ অক্টোবর উদ্বোধন। পরদিন ২০ অক্টোবর খেলা শুরু। ১২ অক্টোবর এ উপলক্ষে হয়ে গেছে লোগো উন্মোচন এবং গ্রুপিং ড্র। টুর্নামেন্টের খেলার তারিখ ও সময় পরে জানাবে আয়োজক কর্তৃপক্ষ। শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ ফুটবলের কথাই বলা হচ্ছে। এতে অংশ নেবে আটটি ফুটবল ক্লাব। যার মধ্যে বিদেশী ক্লাবই পাঁচটি। এদেরই একটি হচ্ছে আফগানিস্তানের ডি স্পিন ঘার বাজান ফুটবল ক্লাব। তারা আছে ‘এ’ গ্রুপে। তাদের সঙ্গে আছে ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড, কলকাতা মোহামেডান এবং শ্রীলঙ্কার সলিড এসসি। অথচ মঙ্গলবার শোনা গেল ভিন্ন কথা। গ্রুপিং ড্র হওয়ার পর এখন এই আলোচিত টুর্নামেন্টে খেলতে চাইছে না বাজান ক্লাব। নিজেদের অভ্যন্তরীণ সমস্যাই এর প্রধান কারণ। কেন খেলতে চাইছে না আফগান প্রিমিয়ার লীগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাজান? ‘মঙ্গলবার সকালে আফগান ক্লাবটি আমাদের একটি ই-মেইল পাঠায়। সেখানে তারা টুর্নামেন্টে না খেলার বিষয়ে ইঙ্গিত দেয়। তখন তাদের আমরা জানাই- আমাদের এখানে খেলতে তাদের কোন সমস্যা হবে না। তাদের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হবে। জবাবে তারা জানায় সমস্যাটা বাংলাদেশের নয়, সমস্যাটা তাদের অভ্যন্তরীণ। বিষয়টি নিয়ে তারা নিজেদের মধ্যে আলোচনা করছে।’ চট্টগ্রাম আবাহনীর টিম ম্যানেজার এবং টুর্নামেন্ট কো-অর্ডিনেটর শাকিল মাহমুদ চৌধুরীর ভাষ্য। জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতেই বিষয়টি নিয়ে আলোচনায় বসার কথা রয়েছে বাজান ক্লাবের। বাজানের আগেও এই টুর্নামেন্টে খেলার বিষয়ে আগ্রহ জানিয়ে পরে নিজেদের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিল আফগানিস্তানের আরেকটি ক্লাব শাহিন আসমায়ি (আফগান প্রিমিয়ার লীগের বর্তমান রানার্সআপ)। শুধু তারাই নয়, ভারতের কলকাতা মোহনবাগান, নেপালের পুলিশ ক্লাব, ভুটানের থিম্পু এফসিরও টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণের কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা কেউই অংশ নেয়নি। ভুটানের থিম্পু এফসির আগ্রহ থাকলেও তাদের বাদ দিয়ে পাকিস্তানের করাচী ইলেকট্রিক ক্লাবকে অন্তর্ভুক্ত করে আয়োজক চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেড। এখন আফগানিস্তান না আসলে তাদের স্থানে ভুটানের ক্লাবটিকে নেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে একটি সূত্র থেকে। ‘বি’ গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশের ঢাকা আবাহনী ও চট্টগ্রাম আবাহনী, ভারতের কিংফিশার ইস্ট বেঙ্গল ও পাকিস্তানের করাচী ইলেকট্রিক ক্লাব। প্রতিদিন দুটি করে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে। দুই গ্রুপে সেরা দুটি দল খেলবে সেমিফাইনাল। এরপর ৩০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল। উদ্বোধনী দিনে প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে ঢাকা মোহামেডান ও শ্রীলঙ্কার ক্লাব সলিড এসসি। দ্বিতীয় ম্যাচে কলকাতা মোহামেডান খেলার কথা রয়েছে বাজান ক্লাবের বিপক্ষে। যদি তারা না আসে তবে বিকল্প যে দল অংশ নেবে তারা খেলবে। অনেকে অবশ্য বলছেন যদি আফগান ক্লাবটি না আসে তবে তাদের জায়গায় শেখ জামাল ধানম-িকে নেয়া যেতে পারে। তবে শেখ জামাল এবং আয়োজকদের মধ্যে বিবাদমান দ্বন্দ্বের কারণে সেটি হয় তো সম্ভব নয়। টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন দল পাবে ২৫ হাজার ডলার। রানার্সআপ দল পাবে ১০ হাজার ডলার।