২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

প্রাণহীন এক শহরের কথা

  • খন্দকার মাহ্বুবুল আলম

ঢাকা রাজধানীর বহুতল ফ্ল্যাটবাড়ির কারণে মুক্তাকাশ যেন দিন দিন ঢেকে যাচ্ছে। এসব বহুতল ভবন আধুনিক দৃষ্টিতে দৃষ্টিনন্দন লাগলেও প্রকৃতির নৈসর্গিক শোভাও হারাতে বসেছে। বিষয় প্রাসঙ্গিকতায় উল্লেখ্য, পল্লীগ্রাম অঞ্চলের মানুষ তথায় বসবাস হেতু সমাজ-সংস্কৃতির বলয়ে এবং মানসিকভাবে পরস্পর ছন্দোবদ্ধতায় একে অপরের খুবই আপন হয়ে থাকে। ওরা একে অপরের সুখ-দুঃখের অংশীদার হয়ে ওঠে। কিন্তু ফ্ল্যাটবাড়ি কালাচারে একই ফ্ল্যাটে বাস করেও যেন সবাই সবার অচেনা থেকে যায়। ওদের মধ্যে গড়ে ওঠে না প্রতিবেশীসুলভ সম্পর্ক। এখানে যে যার আঙ্গিকে আত্মকেন্দ্রিকতায় আপন আপন স্বার্থের পরিম-লে আবদ্ধ। যেখানে প্রতিবেশীসুলভ সম্পর্ক গড়ে ওঠে না, সেখানকার মানুষ মানুষ হয়েও এক ধরনের যন্ত্রে পরিণত হয়ে ওঠে। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, এ রকম পরিবেশে মানবতা বা মানবিক মূল্যবোধ গড়ে ওঠে না।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, এ রকম আকাশছোঁয়া বা বহুতল ভবন ফ্ল্যাটবাড়ি কালচারের প্রাদুর্ভাব বাড়ছে কেন? এক কথায় উত্তর- প্রয়োজনের তাগিদেই। এই প্রয়োজনের তাগিদটা সৃষ্টি হয়েছে অধিক জনসংখ্যার চাপ থেকে আবাসিক সমস্যার সমাধান দিতেই। কালক্রমে জনসংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এই বহুতল ফ্ল্যাটবাড়ি কালচারের বিস্তৃতি সর্বত্রই ঘটতে থাকবে। তখন মানুষ মানুষের কাছে আরও অচেনা হয়ে পড়বে। সমাজ-সংস্কৃতিও বিলুপ্ত হতে থাকবে। তখন আমরা অন্য রকম মানুষে পরিণত হতে থাকব।

বহুতল ফ্ল্যাটবাড়ি কালচার যদিও অধিক জনসংখ্যার চাপানুপাতে আবাসিক সঙ্কট সমাধানের আপাত উপায়, তবু এ ব্যবস্থা প্রাকৃতিক পরিবেশের জন্যও একদিন হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে। বহুতল ফ্ল্যাটবাড়ি কালচারের বিস্তৃতি ঘটতে থাকলে বাতাসের অবাধ চলাচলে বাধার সৃষ্টি হতে পারে। ফলে প্রাকৃতিক পরিবেশের জন্য তা সুখকর নাও হতে পারে। প্রকৃতি ও পরিবেশ বিজ্ঞানীরাই বিষয়টি ভাল বুঝবেন।

যে কোন সমস্যা থেকে উত্তরণের পথ খুঁজতেই মানুষ চিন্তাভাবনা করে। বিশেষত জ্ঞাননির্ভরতার যৌক্তিক ভাবনা থেকেই সমাধান খুঁজে পায়। এক্ষেত্রেও হয়েছে তাই। তাই বলে ‘বিজ্ঞান দিয়েছে বেগ, কেড়ে নিয়েছে আবেগ’, এমনটি ভাবাও ঠিক নয়। যুক্তিহীন সস্তা আবেগের চাইতে মানবিক মূল্যবোধের যৌক্তিক আবেগ অনেক অর্থবহ। আর তাই এক্ষেত্রে বাসিন্দাদের মধ্যে সেই অর্থবহ দিকের উন্মেষ ঘটাতে হলে তাদের নিজেদেরই এগিয়ে আসতে হবে সমাজ-সংস্কৃতির সোপান বেয়ে। সেই সঙ্গে ভবিষ্যত প্রাকৃতিক পরিবেশের কথা মাথায় রেখে বহুতল ফ্ল্যাটবাড়ি কালচারের দৌরাত্ম্যও কমানো দরকার। এজন্য প্রয়োজন সংশ্লিষ্ট সবার জ্ঞান ও যুক্তিনির্ভর আন্তরিক প্রচেষ্টা।

হালিশহর, চট্টগ্রাম থেকে