২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সময়ের অপচয় ভেবে...

  • সঞ্চিতা পোদ্দার

মানুষ সামাজিক জীব। কথাটি ধ্রুব সত্য। সবাই মিলে একসঙ্গে বসবাস করা, একে অন্যের সুখে-দুঃখে, আপদে-বিপদে পাশে থাকা, এটাই আমরা ছোটবেলা থেকে দেখে আসছি। কিন্তু ঢাকাতে বিশেষ করে আবাসিক এলাকায় তা দেখা যায় না বললেই চলে। আগে যে একান্নবর্তী পরিবারের প্রচলন ছিল, সেটাও যেন ক্রমে ক্রমে হ্রাস পেতে চলেছে। একান্নবর্তী পরিবার যে কী সেটা আমাদের সন্তানরা শুধু বইয়ে পড়ছে। কিন্তু বাস্তবের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক খুবই কম। তবে এর জন্য হয়ত আমরা বাবা-মাই দায়ী। কারণ আমরাই তাদের সেভাবে গড়ে তুলতে পারছি না।

মানুষের সামাজিকীকরণে সাংস্কৃতিক প্রভাবও গভীর। উন্নত সাংস্কৃতিক পরিবেশে মানুষের মানবিক গুণাবলী বিকশিত এবং মনের প্রসারতা বাড়লেও এগুলো কৃত্রিমতার বেড়াজালে আটকে আছে। কারণ যান্ত্রিক সভ্যতা আমাদের যেমন উন্নত করছে, ঠিক একইভাবে এর প্রভাবে মানুষ একে অন্যের থেকে দূরে সরে যাচ্ছে। যেমন একই ফ্ল্যাটে বছরের পর বছর বসবাস করলেও একটি পরিবারের সঙ্গে আরেকটি পরিবারের যোগাযোগ নেই বললেই চলে। এমনকি সামনা-সামনি দেখা হলেও কথা বলা দূরে থাক, সৌজন্যমূলক আচরণটুকুও অনেক ক্ষেত্রে করা হয় না।

আসলে এটার মূল কারণ খুঁজতে গিয়ে আমার মনে হচ্ছেÑ উন্নত প্রযুক্তিগত আবিষ্কার; যেমনÑ কম্পিউটার, টেলিভিশন, ইন্টারনেট প্রভৃতি মানুষের আচার-আচরণকে প্রভাবিত করছে। আর এটাকেই মানুষ বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছে। কারণ তারা হয়তো মনে করেন একে অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা নিছক সময় অপচয় ছাড়া আর কিছুই না। আসলে এটা কোন জীবন হতে পারে না। এই কালচার থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। নতুবা অদূর ভবিষ্যতে আমাদের সন্তানরা সময়ের অপচয় ভেবে আমাদের সঙ্গেও যোগাযোগ কমিয়ে দেবে।

মেহেরপুর সদর থেকে