২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিনা দোষে ২২ বছর কারাবাসের পর মুক্তি পেলেন ফজলু

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ বিনা দোষে বিনা বিচারে ২২ বছর কারাবাসের পর বুধবার জামিনে মুক্তি পেয়েছেন সিলেটের দক্ষিণ সুরমার তেতলি এলাকার বাসিন্দা ফজলু মিয়া। দীর্ঘ সময়ে শুধু যৌবন নয়, হয়ত নিজের ঠিকানাটাও আর যথাযথ আছে কিনা কে জানে। ফজলু মিয়া ১৯৮তম হাজিরার দিনে এক শুভাকাক্সক্ষীর জিম্মায় জামিন পেয়েছেন। বেলা ১১টায় সিলেট মুখ্য মহানগর হাকিম জহুরুল হক চৌধুরীর আদালতে এই জামিন মঞ্জুর হয়।

১৯৯৩ সালের ১১ জুলাই সিলেটের আদালতপাড়া থেকে সন্দেহভাজন হিসেবে ফজলুকে আটক করেন তৎকালীন ট্রাফিক সার্জেন্ট জাকির হোসেন। সন্দেহের বশে ৫৪ ধারায় ফজলুকে ধরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। তারপর ফজলুর বিরুদ্ধে পাগল আইনে একটি প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। ২০০২ সালে ফজলুকে কারাগার থেকে ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দেয় আদালত। এই আদেশের পরও কেটে গেছে ১৩ বছর। কিন্তু কারাফটক পার হতে পারেননি ফজলু।

আদালতের চোখে কোন অপরাধ না করেও এ পর্যন্ত অন্তত ১৯৭ বার আদালতে হাজিরা দিতে হয়েছে ফজলুকে। ফজলুকে ছাড়িয়ে আনতে ২০০৫ সালে হাইকোর্টে একটি রিট করে মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্র। কিন্তু তারপরও আইনের মারপ্যাঁচের কারণে কারাগার থেকে বের হতে পারেননি ফজলু। সর্বশেষ বেসরকারী সংস্থা ব্লাস্টের সহায়তায় মামলার ধার্য তারিখে আইনজীবী জ্যোৎস্না ইসলাম ফজলু মিয়ার নিজ গ্রামের সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য কামাল উদ্দিন রাসেলের জিম্মায় জামিন আবেদন করলে আদালত তাকে জামিন দেন।