২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ ভাগ্য নির্ধারণ আইকনদেরও!

  • বিপিএল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বিশ্বের টি২০ লীগগুলোতে তার কদরের শেষ নেই। ভারতের আইপিএল, অস্ট্রেলিয়ার বিগব্যাশ, ওয়েস্ট ইন্ডিজের সিপিএল, ইংল্যান্ডের কাউন্টিতে বাংলাদেশের একমাত্র ক্রিকেটার সাকিবেরই বিচরণ। আর নিজ দেশ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল-টি২০) কথাই নেই। এ এক ক্রিকেটারকেই সবাই দলে ভেড়াতে চায়। ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রংপুর, বরিশাল-এ পাঁচ দলের প্রথম পছন্দ সাকিবই। আইকন ক্রিকেটারদের মধ্য থেকে সবাই সাকিবকেই চায়। আর তাই বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল খানিক বিপাকেই পড়ে গেছে। এ জন্য শেষ পর্যন্ত ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ই থাকতে পারেন আইকন ক্রিকেটাররাও। লটারির মাধ্যমেই শেষপর্যন্ত আইকন ক্রিকেটারদের ভাগ্য নির্ধারণ হতে পারে। এমনটিই জানা গেল বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলের এক কর্মকর্তা সূত্রে।

কর্মকর্তা জানালেন, ‘সবাই সাকিবকেই চায়। স্বাভাবিকভাবেই দেশের সেরা ক্রিকেটারকেই সবাই দলে ভেড়াতে চাইবে। দল যে আরও চাঙ্গা হয়ে যাবে। কিন্তু সমস্যা হলো, সবাইকে তো আর এক সাকিবকে দেয়া যাবে না। এ জন্য শেষপর্যন্ত আইকন ক্রিকেটারদের ভাগ্য ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’র মাধ্যমেই নির্ধারণ হতে পারে।’

এ সিদ্ধান্ত আজ-কালের মধ্যেই হয়ে যেতে পারে বলেও বুধবার ইঙ্গিত দিলেন কর্মকর্তা। জানালেন, ‘আইসিসি সভা শেষে দুবাই থেকে আজ (বুধবার) রাতেই বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের এসে পড়ার কথা রয়েছে। তিনি আসলেই এ নিয়ে আলোচনা হবে। সেখানেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। সেই সিদ্ধান্ত জানিয়েও দেয়া হবে।’

২৬ অক্টোবর হবে বিপিএলের তৃতীয় আসরের জন্য ক্রিকেটারদের দলে নেয়ার কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে। ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’র মাধ্যমে বিদেশী ১৯৫ ও দেশী ১২২ ক্রিকেটারের দল নির্ধারণ হবে। বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে ২০ নবেম্বর। ২২ নবেম্বর খেলা মাঠে গড়াবে। ১৫ ডিসেম্বর হবে ফাইনাল। কথা ছিল দেশের ৬ আইকন ক্রিকেটার (মাশরাফি বিন মর্তুজা, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও নাসির হোসেন) প্রথমে কোন দলে খেলতে চান, তা বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলকে জানাবেন। দল বাছাই করার স্বাধীনতা দেয়া হয়। এরপর লীগে অংশ নিতে যাওয়া ৬ দল (ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, রংপুর, কুমিল্লা) কোন আইকন ক্রিকেটারকে দলে ভেড়াতে চান, তা জানাবে। দুই দিকের মত জেনে বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল একটা সিদ্ধান্ত নেবে।

তা বুধবার আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়ে ছিলেনও বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক। বলেছিলেন, ‘সপ্তাহখানেকের মধ্যে আইকন ক্রিকেটারদের দল ঠিক করে দেয়া হবে। যাতে আইকন ক্রিকেটাররা দল নির্বাচনের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে পারে, পেয়ার্স বাই চয়েজে দলের টেবিলে থেকে ক্রিকেটারদের নিতে পারেন। আইকন ক্রিকেটারদের দল ঠিক করায় দুটি পদ্ধতি আছে। আমরা ক্রিকেটারদের থেকেও মতামত নেব। কারণ ধরেন সাকিব, সে কিন্তু ৩৫ লাখ টাকার ক্রিকেটার নয়। কিংবা তামিম-মুশফিক, আরও বেশি পাওয়ার কথা। কিন্তু যেহেতেু এবার আমরা একটা আর্থিক বাধ্যবাধকতা দিয়ে রেখেছি, এ জন্য আইকন ক্রিকেটাররা কোন দলে খেলতে চায় এটা শুনব। ফ্র্যাঞ্চাইজিরা কাকে চায়, এটাও শুনব। বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল আমরা বসে ঠিক করে দেব।’

কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, চাহিদা সাকিবকে দলে ভেড়ানোর দিকেই বেশি। এতে করে সমস্যা তৈরি হয়ে যেতে পারে। একটি দলই সাকিবকে পাবে। বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল যদি কোন দলে সাকিবকে দেয়, তাহলে অন্য দলগুলো নারাজ হতে পারে। তাই ঝামেলা এড়াতে শেষপর্যন্ত আইকন ক্রিকেটারদেরও ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ই রাখা হতে পারে। শুধু সাকিবই নন, তামিমকে নিয়েও একাধিক দলের আগ্রহ আছে। যদি সাকিবকে না মিলে, তাহলে তামিমকেই দ্বিতীয় পছন্দ দলগুলোর। একাধিক দল যেহেতু এক ক্রিকেটারকেই চাচ্ছে, তাই আইকন ক্রিকেটারদের ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ই ভাগ্য নির্ধারণ হবে।