২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিশু নির্যাতন বন্ধে সামাজিক সচেতনতা জরুরী ॥ শিক্ষামন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শিশু নির্যাতন বন্ধ করতে হলে সুশাসনের পাশাপাশি সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করা দরকার বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, এমপি। তিনি শ্ক্রুবার সকাল বাংলাদেশ শিশু একাডেমী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক বিতর্ক প্রতিযোগিতায় এ মন্তব্য করেন। শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ছায়া সংসদ ‘সুশাসন নয়, সামাজিক অবক্ষয়ই শিশু নির্যাতনের প্রধান কারণ’ শীর্ষক বিশেষ সচেতনাবৃদ্ধিমূলক বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে জাতীয় কন্যাশিশু এডভোকেসি ফোরাম ও ডিবেট ফর ডেমোক্রসি। এ অনুষ্ঠানে সহযোগিতা করে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার শিশু নির্যাতন বন্ধে সচেষ্ট রয়েছে। আমাদের শিক্ষার উদ্দেশ্য হলো মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন নাগরিক তৈরি করা এবং তাদেরকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করা। আমরা চাই, সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ। এজন্য রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনতে হবে। আর এ পরিবর্তন আনয়নে নেতৃত্ব দিবে আমাদের তরুণ প্রজন্ম। নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও আমাদের শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে মেধার পরিচয় দিচ্ছে। আমরা আশা করি, তারা জ্ঞানার্জনের পাশাপাশি মূল্যবোধসম্পন্ন মানুষ হিসেবেও গড়ে উঠবে।

তিনি বলেন, সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের শিক্ষাক্ষেত্রে এমডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আমরা সফল। বর্তমানে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছেলেশিশুর চেয়ে মেয়েশিশুর ভর্তির হার বেশি। মাধ্যমিকেও প্রায় সমান। এটা এক বিরাট অর্জন। আমরা দারিদ্র দূরীকরণেও সফলতা অর্জন করেছি। আমরা আশা করি, ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিতে সক্ষম হবো।

ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান জনাব হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ-এর সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় ‘সুশাসন নয়, সামাজিক অবক্ষয়ই শিশু নির্যাতনের প্রধান কারণ’Ñ শীর্ষক বিষয়ে সরকারি দল হিসেবে বজ্রযোগিনী জে. কে উচ্চ বিদ্যালয়, মুন্সীগঞ্জ এবং বিরোধী দল হিসেবে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, ঢাকা অংশগ্রহণ করে।

অনুষ্ঠানে পর্যালোচক অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শিশু একাডেমী পরিচালক মোশাররফ হোসেন এবং জাতীয় কন্যাশিশু এডভোকেসি ফোরাম-এর স¤পাদক নাছিমা আক্তার জলি ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সেন্ট যোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ব্রাদার রবি পিউরিফেকশন সি.এস.সি বলেন, শিশুরা দুর্বল, তাই তাদের ওপর বিভিন্ন ধরনের নির্যাতন হয়। শিশুদের ওপর নির্যাতন বন্ধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে সোচ্চার থাকতে হবে। পাশাপাশি আমাদেরকে সচেতন থাকতে হবে এবং সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।’