২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

প্রার্থিতা ফিরে পেতে কাদের সিদ্দিকীর আপীল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ টাঙ্গাইল-৪ আসনের উপ-নির্বাচনে প্রার্থিতা ফিরে পেতে আপীল করেছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী ও তার স্ত্রী নাসরীন সিদ্দিকী। শুক্রবার দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সিদ্দীকী তার পক্ষে নির্বাচন কমিশনের গিয়ে এ আপীল করেন। আগামীকাল রবিবার সকাল ১১টায় এ আপীল শুনানি হতে পারে বলে জানিয়েছেন তার পক্ষের আইনজীবী।

গত মঙ্গলবার টাঙ্গাইল-৪ কালিহাতী-সখিপুর আসনের উপ-নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে ঋণখেলাপির অভিযোগে কাদের সিদ্দিকী, নাসরিন সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে যায়। এছাড়া দলীয় মনোনয়নের পক্ষে যথাযথ প্রমাণপত্র না থাকায় জাতীয় পার্টির সৈয়দ মুশতাক হোসেন রতন ও ১ শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষরে গরমিল থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল আলীমের মনোনয়নপত্রও বাতিল হয়।

আর আওয়ামী লীগ মনোনীত হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারীসহ ছয় জনকে বৈধ প্রার্থী ঘোষণা করে রিটার্নিং কর্মকর্তা।

নির্বাচন কমিশনে কাদের সিদ্দীকীর পক্ষে আপীলে ঋণ খেলাপি নয় এ অভিযোগ প্রমাণ করতে আপীলের সঙ্গে অগ্রণী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে দেয়া বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি কারণ দর্শানোর নোটিসও সংযুক্ত করা হয়েছে। ওই নোটিসে কেন কাদের সিদ্দিকীর নাম ঋণখেলাপিদের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তা জানতে চাওয়া হয়েছে। এ সময় দলের কেন্দ্রীয় নেতা ফরিদ আহমেদ, এ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম ও ছাত্র আন্দোলনের আহ্বায়ক রিফাতুল ইসলাম দীপ উপস্থিত ছিলেন।

টাঙ্গাইল-৪ আসনের উপ-নির্বাচনে গত ১৩ অক্টোবর প্রার্থীদের মনোনয়পত্র বাছাই করা হয়। ওই বাছায়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ আলীমুজ্জামান সম্ভাব্য প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বাছাইকালে কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল করেন। এ সময় তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরো (সিআইবি) জানিয়েছে, সোনার বাংলা প্রকৌশলী সংস্থা নামে কাদের সিদ্দিকীর একটি প্রতিষ্ঠানের নামে অগ্রণী ব্যাংকে ১০ কোটি ৮৮ লাখ টাকা ঋণ রয়েছে। কাদের সিদ্দিকী এ প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান এবং নাসরিন সিদ্দিকী যার পরিচালক। ওই ঋণখেলাপি হওয়ার কারণে তাদের দু’জনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়।

টাঙ্গাইল-৪ আসনের সাবেক এমপি লতিফ সিদ্দিকী পদত্যাগ করায় গত ১ সেপ্টেম্বর আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। হজ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত লতিফ সিদ্দিকী পরে সংসদ সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ করেন। ঘোষিত তফসীল অনুযায়ী আগামী ২১ অক্টোবর এ আসনের উপ-নির্বাচনে মনোনয়পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ধার্য করা হয়েছে। ২২ অক্টোবর প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্ধ দেয়া হবে। আর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১০ নবেম্বর।

টাঙ্গাইল-৮ (বাসাইল-সখিপুর) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য কাদের সিদ্দিকী ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগের সাংসদ শওকত মোমেন শাজাহানের মৃত্যুতে শূন্য টাঙ্গাইল-৮ আসনে উপ-নির্বাচনেও প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন।

তখন ঋণখেলাপি হওয়ায় রিটার্নিং কর্মকর্তা মনোনয়নপত্র বাতিল করে দিলে তিনি আদালতে যান। কিন্তু হাইকোর্ট তার আবেদন খারিজ করে দিলে আর নির্বাচন করা হয়নি আওয়ামী লীগের এক সময়ের এই নেতার।

টাঙ্গাইল ০৪ আসনের উপ-নির্বাচনে বৈধ প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন আওয়ামী লীগের হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী। নৌকা প্রতীকের সোহেল হাজারীর সঙ্গে এ নির্বাচনে লড়বেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের ইকবাল হোসেন সিদ্দিকী ও হাসমত আলী, এনপিপির ইমরুল কায়েস, জাতীয় পার্টির (জেপি) সাদেক সিদ্দিকী ও বিএনএফের আতাউর রহমান খান।