১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নাইজিরিয়ায় মসজিদে আত্মঘাতী হামলায় ৪২ মুসল্লি নিহত

  • বহু আহত ॥ বোকো হারাম দায়ী

নাইজিরিয়ার মাইদুগুরি নগরীর একটি মসজিদে বৃহস্পতিবার দুই আত্মঘাতী বোমা হামলাকারী হামলা চালিয়েছে। এই ঘটনায় মসজিদের সব মুসুল্লি নিহত হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা একথা জানিয়েছেন। ইসলামপন্থী জঙ্গী সংগঠন বোকো হারাম প্রায়ই এই শহরে হামলা চালায়। খবর এএফপির।

ঘটনাস্থলের কাছেই অবস্থিত এক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক মুহতারি আহমাদু বলেন, ‘এই হামলায় মসজিদে নামাজরত সব মুসল্লি মারা গেছেন। একজনও প্রাণে রক্ষা পাননি।’ ইসলামপন্থী জঙ্গী সংগঠন বোকো হারামের বিরুদ্ধে লড়াইরত নিরাপত্তা বাহিনীকে সহায়তাকারী আমাদু মারতে বলেন, ‘আমরা মসজিদের বাইরে ৪২ জনের মৃতদেহ দেখেছি।’

বোর্নো রাজ্য পুলিশ নিশ্চিত করেছে যে মসজিদটিতে জোড়া বোমা হামলা চালানো হয়েছে।

পুলিশ এক বিবৃতিতে বলেছে, বিস্ফোরণের পর মসজিদটি ধসে গেছে এবং এই ঘটনায় নামাজরত বহু লোক আহতও হয়েছে।’ বিবৃতিটিতে আরও বলা হয়, ‘এই ঘটনায় আহতদের ইউএমটিএইচ (ইউনিভার্সিটি অব মাইদুগুরি টিচিং হসপিটাল) এবং মাউদুগুরি বিশেষায়িত হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’ হামলাকারীরা মুসুল্লি সেজে মসজিদে প্রবেশ করে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। তারা জানান, প্রথম হামলাকারী মসজিদে প্রবেশ করেই শরীরে বেঁধে রাখা বিস্ফোরকের বিস্ফোরণ ঘটায়। এই ঘটনার পর যখন অনেকে আহতদের সহায়তা করতে ঘটনাস্থলের দিকে ছুটে যায় ঠিক তখনই দ্বিতীয় হামলাকারী বিস্ফোরণ ঘটায়।

আমাদু মারতে বলেন, প্রথম বোমাটি বিস্ফোরণের পর যখন উদ্ধারকর্মী ও সহানুভূতিশীলরা ঘটনাস্থলে জড়ো হয়, তখন দ্বিতীয় বিস্ফোরণটি ঘটে। এতে তাদের অনেকেই নিহত হয়। বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় (গ্রিনিচ মান সময় ১৭৩০) মোলাইতে এই ভয়াবহ হামলার ঘটনা ঘটে। স্থানটি মাইদুগুরির পশ্চিম উপকণ্ঠে অবস্থিত। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এ সময় মুসুল্লিরা মাগরিবের নামাজ পড়ছিল। তাৎক্ষণিকভাবে কোন গোষ্ঠী বা সংগঠন এই হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেনি। তবে এই ঘটনার সঙ্গে বোকো হারামের সম্পৃক্ততার সন্দেহ করা হচ্ছে।

জঙ্গী সংগঠনটি ২০০২ সালে বোর্নো রাজ্যেই গঠিত হয়। প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারি ২৯ মে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই নগরীটিতে উপর্যুপরি হামলা চালানো হয়েছে। বুহারি জঙ্গীবাদ নির্মূল করা হবে বলে অঙ্গীকার করেছেন। মঙ্গলবার মাইদুগুরির একটি উপকণ্ঠে এক আত্মঘাতী বোমা হামলায় ৪ জন নিহত হয়।