২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কুমার বাড়িতে শিশুদের খেলনা বানানোর ধুম

  • শারদ উৎসব

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস ॥ হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় উৎসবের দেবী পক্ষের ঢাকের বাদ্য বাজার সঙ্গেই কুমরো বাড়িতে মাটির খেলনা পুতুল বানানোর ধুম পড়েছে। হাতে এক দ- ফুরসুত নেই। দু’দিন পর ষষ্ঠি, এই দিন শুরু হবে মেলা। চলবে বিজয়া দশমী পর্যন্ত। যদিও কোন স্থানে এখনই মেলা বসেছে তবে কুমোররা মাটির তৈরি নানা ধরনের পণ্যের পসরা সাজাতে পারেনি। মৃৎশিল্পী বা কুমোররা পরিবারের সদস্যদের নিয়ে যত দ্রুত সম্ভব কাদামাটি ছেনে সাইজ করে শিশুদের খেলনা পুতুল বানিয়ে রোদে শুকাতে দিয়েছে। এগুলো আগুনের তাপে পুড়িয়ে শক্ত করার পর রঙের আঁচর বসানো হবে। ‘নিপুণ হাতে রং করতে হয় শিশুদের খেলনা ও হাঁড়িপাতিল। তা না হলে শিশুদের মন ভরে না...’ বললেন বগুড়ার মহিষাবান এলাকার কুমোর শুভাষ চন্দ্র পাল। তিনি ও তার স্ত্রী বাড়ির আঙ্গিনায় খেলনা পুতুল শুকাতে দিয়েছেন। জানালেন, নদীর ভিতরের আঠালো কালো মাটি মৃৎ কাজের উপযোগী। কুমোর বাড়ির বিশেষ ধরনের ছোট চুল্লীতে এগুলো পোড়ানো হয়। শিব রানী পাল বললেন, হাতে সময় নেই দুইদিনের মধ্যে কাজ শেষ করে মেলায় যেতে হবে। প্রত্যেক মেলায় খেলনা পুতুল বিক্রিবাটা ভাল হয়। তবে শারদীয় উৎসবে বেচাকেনা একটু বেশিই হয়। কারণ মেলা ছড়িয়ে পড়ে এক পুজো ম-প থেকে আরেক ম-পে।