১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

থার্ড জেন্ডারসহ বাংলাদেশের সকল নাগরিক পাবে জাতীয় পরিচয়পত্র স্মার্ট কার্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা, সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ ॥ নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অবঃ) মোঃ জাবেদ আলী বলেছেন, বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের দোড়গোড়ায় সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য দেশের ৫১৪টি থানা এবং উপজেলায় সার্ভার স্টেশন (সেবাকেন্দ্র) স্থাপন করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন থেকে পরবর্তী আদেশ না দেয়া পর্যন্ত ২৪ ঘন্টা নির্বাচন অফিস খোলা থাকবে এবং এই কার্যক্রম চলবে। তিনি বলেন, কারো জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে গেলে নতুন করে তোলা, স্থানান্তর বা সংশোধনের ক্ষেত্রে সরকারি ফি দিতে হবে। এছাড়া বেদে ও থার্ড জেন্ডারদেরকেও ভোটার তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করতে হবে। এক্ষেত্রে তাদের কাছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সত্যায়িত নাগরিক সনদপত্র থাকতে হবে। তিনি বলেন, আঠার বছর পূর্ণ হয়েছে এবং আগামী জানুয়ারি মাসে ১৮ বছর পূর্ণ হবে বাংলাদেশের এমন সকল নাগরিক জাতীয় পরিচয়পত্র স্মার্ট কার্ড পাবে।

শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সভা কক্ষে ভোটার তালিকা হাল নাগাদ কার্যক্রম ২০১৫ উপলক্ষে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে নির্বাচন কমিশনার অবসর প্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো: জাবেদ আলী এসব কথা জানান। জেলা প্রশাসক মোঃ আনিছুর রহমান মিয়ার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা পুলিশ সুপার ড.খন্দকার মহিদ উদ্দিন, নির্বাচন বিভাগের কর্মকর্তা মিহির সারোয়ার, তোলারাম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ শিরিন বেগম, মহিলা নেত্রী আঞ্জুমান আরা আকসির।

নির্বাচন কমিশনার আরো বলেন, একটি নির্ভুলে নিখুঁত এবং সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য ভোটার তালিকা প্রনয়নে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মেম্বার, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলরদের দায়িত্ব হবে নিজ নিজ এলাকার মৃত ব্যক্তিদের তালিকা দিয়ে নির্বাচন কমিশনকে সহযোগীতা করা। স্মার্ট কার্ড পাওয়ার আগে জাতীয় পরিচয় পত্রের ভুল সংশোধনের জন্য ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত সময় আছে। স্মার্টকার্ড তৈরী করার জন্য বিশ্ব ব্যাংকের সাথে চুক্তি হয়েছে। প্রতিটি কার্ডে ৮০ টাকা খরচ হলেও নাগরিকদের নিকট থেকে কোন টাকা বা ফি নেয়া হবে না।