২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিদেশী হত্যার নতুন ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে ॥ আমু

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, স্বাধীনতাবিরোধী চক্র দেশের মধ্যে নতুন করে হত্যা, খুনের চর্চা শুরু করেছে। এর উদ্দেশ্যে দেশের মানুষের পাশাপাশি বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করা। আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্যই স্বাধীনতাবিরোধী চক্র হত্যার ক্ষেত্রে বিদেশী নাগরিকদের বেছে নিয়েছে। বিদেশে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করাই ছিল খুনী চক্রের উদ্দেশ্য।

শনিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ শিল্পকলা একাডেমিতে যুবলীগ আয়োজিত ‘তোমার কীর্তি মোদের গর্ব’ শীর্ষক সংবাদ চিত্র প্রদর্শনী ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ যখন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সব দিক থেকে এগিয়ে যাচ্ছে, তখনই শুরু হলো এই বিদেশী হত্যার নতুন ষড়যন্ত্র। স্বাধীনতাবিরোধীরা নতুন উদ্যমে বিদেশীদের হত্যা করে আন্তর্জাতিকভাবে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করতে চাইছে।

আওয়ামী লীগের এই প্রবীণ নেতা ভারতের সঙ্গে সমুদ্রসীমা নির্ধারণের প্রসঙ্গ তুলে ধরে বলেন, কথায় কথায় আমাদের বলা হয় ভারতের দালাল। কিন্তু আমরাই ভারতের বিরুদ্ধে মামলা করেছি। এই দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় শেখ হাসিনাই মামলা করেছিলেন। ’৭৫-এর পর অনেকেই সরকারে এসেছেন, তারা কেউ কোনদিন সরকারপ্রধান হয়ে দেশের স্বার্থে ভারতের কাছ থেকে নিজেদের ভূমি আনতে পারেনি। আওয়ামী লীগই কেবল আন্তরিকতার সঙ্গে তা করতে সক্ষম হয়েছে।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল, যারা ২০১৩ সালে নির্বাচন ঠেকানোর নামে সাংবিধানিক সঙ্কট সৃষ্টি করতে চেয়েছিল- তারাই ২০১৪ সালে আন্দোলনের নামে নির্বিচারে মানুষকে পুড়িয়ে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। এত ষড়যন্ত্রের পরও বাংলাদেশ আজ সাড়ে ৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। এটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঠিক নেতৃত্বের কারণেই সম্ভব হয়েছে। তাই দলীয় নেতাকর্মীদের বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে।

যুবলীগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ, যুবনেতা শহীদ সেরনিয়াবাত, মুজিবুর রহমান চৌধুরী, মাহবুবুর রহমান হিরন, আতাউর রহমান আতা, আবদুস সাত্তার মাসুদ, এবিএম আমজাদ হোসেন, মনজুর আলম শাহীন, মাঈনুল হোসেন খান নিখিল প্রমুখ।

লন্ডনে বাড়ি ভাড়ার খবরে বিএনপি নেতারা হতাশ- ড. হাছান ॥ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জন্য লন্ডনে বাড়ি ভাড়ার খবরে দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে এখন হতাশা বিরাজ করছে।

শনিবার সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি আরও বলেন, বিএনপি এখনও বিলীন হয়ে যায়নি এমন তথ্য জানান দিতেই প্রতিদিন পল্টন কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করা হয়। বিএনপিকে সাংবাদিক সম্মেলন নির্ভর দল থেকে বেরিয়ে এসে জনগণের মাঝে যাওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

হাছান মাহমুদ বলেন, খালেদা জিয়া লন্ডনে গিয়ে ভিন্ন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন। চিকিৎসার কথা বলে উনি মূলত সেখানে দেশ ও গণতান্ত্রিক সরকারের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্রের জাল বুনছেন। যা বিএনপির জন্মগত অভ্যাস। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের জন্য সম্মান বয়ে নিয়ে এলেও কিছু মানুষ আছেন যারা তা মানতে পারছেন না। জার্মানির লোকালয়ে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুত কেন্দ্র হয়। আর সুন্দরবন থেকে ১৮ কিলোমিটার দূরের বিদ্যুত কেন্দ্রে পরিবেশ বিপর্যয় নিয়ে তাদের মায়াকান্না। লং মার্চের নামে শীত এলেই পিকনিক করার আয়োজন চলে। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা কখনই জীববৈচিত্র্য ধ্বংস করেন না, সৃষ্টি করেন। যার প্রমাণ বিশ্বসভা (জাতিসংঘ) থেকে তার চ্যাম্পিয়ন্স অব দ্য আর্থ পুরস্কার অর্জন।

খাদ্যমন্ত্রী এ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, অনেকেই আজ শেখ হাসিনার অর্জনকে মøান করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। নতুন করে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু করেছেন। আসন্ন দুর্গাপুজোকে কেন্দ্র করে নতুনভাবে ষড়যন্ত্র করছেন। ধর্মীয় সম্প্রীতি নষ্ট করতে চাইবেন। তাই সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

তিনি বলেন, বিএনপির নেতাদের মধ্যে এখন হতাশা-দুশ্চিন্তা দেখা দিয়েছে। তাদের নেত্রী দেশে ফিরেন কি-না সে ব্যাপারে তারা নিশ্চিত নন। খালেদা জিয়া আজ মামলার ভয়ে ভীত। তাই তিনি দেশ ছেড়ে বিদেশে আছেন। কারণ মামলাগুলোর ভবিষ্যত সম্পর্কে তিনি জানেন। তাই ষড়যন্ত্রের পথ খুঁজছেন। কিন্তু খালেদা জিয়ার কোন ষড়যন্ত্রেই সফল হবে না। তিনি জ্বালাও-পোড়াও করেও সফল হতে পারেননি, আগামীতেও হতে পারবেন না।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ব্যারিস্টার জাকির আহম্মদের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য সুজিত রায় নন্দী, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিক প্রমুখ।

নির্বাচিত সংবাদ