২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ১০ চিকিৎসক

  • শীর্ষে ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ প্যাট্রিক সুন শিয়ং

সাধারণ চিকিৎসকদের বার্ষিক আয় দুই লাখ ২১ হাজার ডলার এবং বিশেষজ্ঞদের আয় তিন লাখ ৯৬ হাজার ডলার হলে যুক্তরাষ্ট্রে তাদের ধনী চিকিৎসক বলা হয়। তবে বিশ্বের এত সম্পদশালী চিকিৎসক আছেন যে, তাদের লাভজনক ব্যবসার জন্য তারা ফোর্বসের বিলিওনিয়ারের তালিকায় স্থান পেয়েছেন। ফোর্বসের স্বাস্থ্যসেবা শিল্পে ২০১৫ সালের তালিকার শীর্ষে আছেন যুক্তরাষ্ট্রের লস এ্যাঞ্জেলসের ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার প্রফেসর প্যাট্রিক সুন শিয়ং। তার মোট সম্পদের পরিমাণ এক হাজার ৩১০ কোটি ডলার।

দক্ষিণ আফ্রিকায় জন্মগ্রহণ করা মার্কিন সার্জন, ব্যবসায়ী, গবেষক ও লোকহিতৈষী ডা. শিয়ং বিশ্বের এবং এশীয়-আমেরিকানদের মধ্যে সবচেয়ে ধনী চিকিৎসক। ক্যান্সার চিকিৎসায় বিপ্লব ঘটিয়ে তিনি সম্পদশালী চিকিৎসকে পরিণত হয়েছেন। তিনি তার অর্থ শিশু স্বাস্থ্যসেবার মতো মহৎ কাজে ব্যয় করছেন। ফোর্বসের তালিকা অনুযায়ী, স্বাস্থ্যসেবা শিল্পে তিনি সবচেয়ে ধনী আমেরিকান চিকিৎসক। এই তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে আছেন টমাস ফার্স্ট জুনিয়র। তার মোট সম্পদের পরিমাণ ৭৯০ কোটি ডলার। তিনি তার পিতার সঙ্গে একটি হাসপাতাল গড়ে তোলার আগে মার্কিন বিমানবাহিনীতে সার্জন হিসেবে কাজ করতেন। তিনি হাসপাতাল ক্রয় ও বিক্রয় ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তাকে হেলথকেয়ার হল অব ফেম হিসেবে অধিষ্ঠিত করা হয়েছে। তৃতীয় স্থানে আছেন মার্কিন উদ্যোক্তা ডাঃ ফিলিপ ফ্রস্ট। তিনি টেভা ফার্মাসিউটিক্যালসের চেয়ারম্যান। তার সম্পদের পরিমাণ ৩৮০ কোটি ডলার। তিনি চিকিৎসক নন, তবে তিনি ত্বক-বিজ্ঞানের ওপর পড়াশোনা করেছেন। তিনি ইভাক্স নামে একটি ওষুধ কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন এবং পরে তা ৭৮০ কোটি ডলারে বিক্রি করে দেন। ১৮০ কোটি ডলার সম্পদ নিয়ে ফোর্বসের তালিকায় চতুর্থ স্থানে আছে চীনা চিকিৎসক ইউ ইয়েলিং। তিনি ১৯৯২ সালে একটি আয়ুর্বেদিক ওষুধ কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। রোগীদের ব্যথা উপশমে মেডট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার নিয়ে আইনী নিষ্পত্তির পর গ্যারি মিশেলসনের সম্পদের পরিমাণ দাঁড়ায় ১৩৫ কোটি ডলার। তিনি এই সম্পদ নিয়ে তালিকার পঞ্চম স্থানে আছেন। তালিকার ষষ্ঠ স্থানে থাকা মনোচিকিৎসক ডাঃ ফিলের সম্পদের পরিমাণ ২৮ কোটি ডলার। তিনি তার টকশো ডাঃ ফিল’স টকশোর জন্য বার্ষিক আট কোটি ডলার বেতন পেয়ে থাকেন। এ্যান্ড্রুজ স্পোর্টস মেডিসিন এ্যান্ড অর্থোপেডিক সেন্টারের শীর্ষ সার্জন ডাঃ জেমস এ্যান্ড্রুজ। তার সম্পদের পরিমাণ এক কোটি থেকে ১০ কোটি ডলার। তিনি তালিকার সপ্তম স্থানে আছেন। তিন কোটি ডলার নিয়ে তালিকার অষ্টম স্থানে থাকা টেরি ডাব্রো ক্যালিফোর্নিয়ার অরেঞ্জ কাউন্টির জনপ্রিয় প্লাস্টিক সার্জন। মায়ামির সবচেয়ে ভাল এবং সুপরিচিত প্লাস্টিক সার্জন ডাঃ লিওনার্দ হোচস্টেইন। তার সম্পদের পরিমাণ দুই কোটি ডলার এবং তিনি আছেন তালিকার নবম স্থানে। বেভারলি হিলসের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্লাস্টিক সার্জন রবার্ট রে’র সম্পদের পরিমাণ এক কোটি ৫০ লাখ ডলার। তালিকার দশম স্থানে থাকা ব্রাজিলীয় এই সার্জনকে শতাধিকবার টেলিভিশনে দেখা গেছে।

-ওয়েবসাইট