১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাঁশখালীতে পুজায় শৃংখলা বাজয় রাখার কথা বললেন - সাংসদ মোস্তাফিজ

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁশখালী॥ চট্টগ্রামের বাঁশখালীর সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মহোৎসব দূর্গাপূজাকে ঘিরে আইনশৃংখলা বাহিনী নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলেছে পুরো উপজেলা। পূজাকে ঘিরে অতিরিক্ত আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্য নিয়োগ করা হয়েছে বলে অফিসার ইনচার্জ স্বপন কুমার মজুমদার জনকন্ঠকে নিশ্চিত করেছে। সোমবার থেকে শুরু হওয়া পূজায় স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে বিজিবি ও র‌্যাব। এদিকে পূজা সুষ্ঠ ভাবে সম্পন্নের লক্ষ্যে বাঁশখালী পূজা উদ্যাপন পরিষদের উদ্যোগে শারদীয় দূর্গা পূজা উদ্যাপন উপলক্ষ্যে মত বিনিময় সভা রবিবার বাঁশখালী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়। বাঁশখালী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও বাঁশখালী পূজা উদ্যাপন পরিষদের আহবায়ক সুভাষ আচার্য্যরে সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সদস্য সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী। অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন এবং বক্তব্য রাখেন, বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ স্বপন কুমার মজুমদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আবদুল গফুর, পূজা উদ্যাপন পরিষদের উপদেষ্টা তাপস কুমার নন্দী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন চৌধুরী খোকা, দপ্তর সম্পাদক শ্যামল দাশ, উপজেলা যুব লীগের আহবায়ক চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক সিকদার, যুগ্ম আহবায়ক ও এমপি’র একান্ত সচিব অধ্যাপক তাজুল ইসলাম, নীলকন্ঠ দাশ, রানা কুমার দেব, ঝুন্টু দাশ প্রমুখ। বাঁশখালী পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ গুহ’র সঞ্চালনে পূজা উদ্যাপন পরিষদের উপদেষ্টা পুলিন বিহারী সুশীল, মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী রেহানা আক্তার কাজেমী, মুক্তিযোদ্ধা শেখ সেলিমুল হক চৌধুরী প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংসদ মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, এদেশে সাম্প্রদায়িকতার কোন ধরনের স্থান নেই। ধর্ম যার যার উৎসব সবার। এই আলোকে আগামী দূর্গা পূজা উৎসবে দলমত নির্বিশেষে সকলে অংশগ্রহণ করে পূজা উৎসব সুষ্ঠ ও শান্তি পূর্ণ ভাবে সম্পাদন করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন, পূজা উৎসবে কোন ধরনের অনিয়ম ও বিশৃংখলা কঠোর হস্তে দমন করা হবে। এর জন্য তিনি আইনশৃংখলা বাহিনীকে নির্দেশ দেন। উল্লেখ্য এবার বাঁশখালীতে সার্ব্বজনীন, ব্যক্তিগত ও ঘট পূজা সহ ১৩৫টি পূজা মন্ডপে দূর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হবে।