১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইতালীয় নাগরিক খুনের পরিকল্পনাকারী শনাক্ত: পুলিশ

অনলাইন রিপোর্টার ॥ ঢাকায় ইতালীয় নাগরিক চেজারে তাভেল্লার হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারীকে শনাক্তের দাবি করে পুলিশ বলছে, এই বিদেশি খুনে জঙ্গিদের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

গুলশানে কূটনীতিক পাড়ায় হত্যাকাণ্ডের ২০ দিন পর রবিবার এর পরিকল্পনাকারীকে শনাক্তের দাবি করেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া।

দুর্গাপূজা ও আশুরার নিরাপত্তা নিয়ে ডাকা এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন,“চেজারে তাভেল্লায় হত্যার ষড়যন্ত্রকারীদের পুলিশ শনাক্ত করেছে। এখন তথ্য প্রমাণ সমন্বয় চলছে।”

তদন্তে ‘উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি’ হয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, “তদন্ত কবে শেষ হবে তার সময়সীমা দিতে পারব না, তবে এইটুকু বলতে পারি মাস্টারমাইন্ডদের ধরতে পারব।”

গত ২৮ সেপ্টেম্বর গুলশানের সড়কে তাভেল্লাকে গুলি চালিয়ে হত্যা করা পালিয়ে যায় মোটর সাইকেল আরোহী দুর্বৃত্তরা। ইতালির এই নাগরিক একটি এনজিওতে কাজ করতেন, ঢাকায় একাই থাকতেন।

তার ছয় দিনের মধ্যে রংপুরের পল্লীতে একই কায়দায় খুন করা হয় জাপানের নাগরিক কুনিও হোশিকে।

বাংলাদেশে নাগরিকদের চলাফেরায় যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা জারির মধ্যে এসব হত্যাকাণ্ডের পর জঙ্গি হুমকি পর্যবেক্ষণকারী একটি ওয়েবসাইট দাবি করে, মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গি গোষ্ঠী এই খুনের দায়িত্ব স্বীকার করেছে।

তবে সরকারের পক্ষ থেকে সেই দাবি নাকচ করে বলা হয়, বাংলাদেশে এই সংগঠনের কোনো সংগঠিত তৎপরতা নেই।

তাভেল্লা হত্যাকাণ্ডের তদন্তে ‘ন্যূনতম জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা’ পাওয়া যায়নি বলে দাবি করেন মহানগর পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামানও।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “পুলিশ তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে কাজ করে। এই হত্যার তদন্তে কেউ রাজনৈতিক হয়রানির শিকার হতে পারেন, এমনটি আদৌ সত্য নয়।”

শারদীয় দুর্গোৎসব এবং আশুরা উপলক্ষে রাজধানীতে বিদেশি নাগরিক, গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিসহ সব মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিতে পুলিশ তৎপর থাকবে বলে জানান পুলিশ কমিশনার।

“শুক্রবারের দিন যেন মুসলমানরা নামাজ আদায় করতে পারে আবার হিন্দু ধর্মাবলম্বীরাও নিজেদের উৎসব শান্তিপূর্ণভাবে পালন করতে পারে, সেজন্য পুলিশ সতর্ক থাকবে।”

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আছাদুজ্জামান বলেন, “এখনও পূজাকে ঘিরে সুনির্দিষ্ট কোনো হুমকি নেই। তবে পুলিশ সতর্ক অবস্থানে থাকবে।”