১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৫ নবেম্বরের মধ্যে আইসোলেক্সকে কাজে যোগ দিতে হবে

  • স্পেনের রাষ্ট্রদূতকে তলব

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আগামী ৫ নবেম্বরের মধ্যে স্পেনের কোম্পানি আইসোলেক্সকে বিদ্যুতকেন্দ্র নির্মাণ কাজে যোগ দেয়ার সময় বেঁধে দিয়েছে বিদ্যুত বিভাগ। দেশের তিন বিদ্যুতকেন্দ্র থেকে কর্মী প্রত্যাহারের পর বিদ্যুত বিভাগ স্পেনের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠায়। রবিবার বিদ্যুত প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে স্পেনের রাষ্ট্রদূত দেখা করতে এলে তাকে বলা হয়, এভাবে কাজ ফেলে যাওয়ায় সরকার তাদের প্রতি অসন্তুষ্ট। তাদের জরিমানা করার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

স্পেনের রাষ্ট্রদূত ইডুআরডু ডি লেগলোসি বৈঠকে জানিয়েছেন বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভাল। তিনি নিজে এই পরিস্থিতিতে অস্বস্তি বা অনিরাপদ বোধ করছেন না। তবে তিনি আইসোলেক্সের চলে যাওয়ার বিষয়ে কোন ব্যাখ্যা দিতে পারেননি। ঢাকায় স্পেন দূতাবাস ৩ অক্টোবর নিজেদের নাগরিকদের বাংলাদেশে ভ্রমণ সতর্কতা জারি করে। বৈঠকের পর বিদ্যুত-জ্বালানি এবং খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ সাংবাদিকদের বলেন, আমরা রাষ্ট্রদূতকে বলেছি তাদের দেশের কোম্পানি আইসোলেক্সের প্রতি সরকার সন্তুষ্ট নয়। তারা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করতে পারেনি। এরমধ্যে কর্মী প্রত্যাহারের ঘটনা বিব্রতকর। আমাদের দেশে অন্যান্য সব দেশের কর্মীরা কাজ করছেন। সেখানে কেউ অনিরাপদ বোধ করল না। তাদের অনিরাপদ বোধ করার কারণ আমাদের বোধগম্য নয়। বিদ্যুতকেন্দ্রগুলো কেপিআই নিরাপত্তাভুক্ত এখানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি সেনাসদস্যরা নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকে। তাদের যাতে কোন ক্ষতি না হয় সেজন্য বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছিল কিন্তু তারপরও তারা কাজ ফেলে চলে গেছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা রাষ্ট্রদূতকে বলেছি, ৫ নবেম্বরের মধ্যে তাদের কাজে যোগ দিতে হবে। এভাবে চুক্তির শর্তভঙ্গ করে চলে যাওয়ায় তাদের আমরা জরিমানা করব। রাষ্ট্রদূত আমাদের বলেছেন আইসোলেক্সকে তিনি আমাদের বার্তা পৌঁছে দেবেন।

ইতালি এবং জাপানের দুই নাগরিক নিহত হওয়ার পর পরিস্থিতিকে অস্বাভাবিক বলছে স্পেন দূতাবাস। গত ৩ অক্টোবর ঢাকার স্পেন দূতাবাস তাদের নাগরিকদের সতর্ক করার পর ৫ অক্টোবর থেকে আইসোলেক্স কর্মীদের ঢাকায় নিয়ে আসে। এতে তিনটি বিদ্যুতকেন্দ্রই সঙ্কটে পড়ে। তবে সব থেকে সমস্যায় পড়বে ইলেক্ট্রিসিটি জেনারেশন কোম্পানি ইজিসিবি। বিদ্যুতকেন্দ্রটির নির্মাণ কাজ চলছে। অন্য দুটির একটিতে ভূমি উন্নয়ন হচ্ছে আর অন্যটি বিদ্যুত উৎপাদন করছে।

বিদ্যুত বিভাগ সূত্র জানায়, তারা দেশ ছেড়ে চলে যাচ্ছে এমন ঘটনা জানার পর তাদের চিঠি দিয়ে বাড়তি নিরাপত্তা দেয়ার কথা বলা হয়। ওই চিঠিতে বিদ্যুত বিভাগ থেকে আইসোলেক্সকে জানানো হয় কোনভাবেই যেন তারা অনিরাপদ বোধ না করেন সে বিষয়ে সরকার সজাগ রয়েছে। তাদের বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেয়ার আশ্বাস দিয়ে কাজে যোগ দেয়ার আহ্বান জানানো হয়।