২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চিকিৎসায় অবহেলা সড়ক দুর্ঘটনায় দুই কলেজছাত্রের মৃত্যু ॥ কুমিল্লা মেডিক্যালে ভাংচুর

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুমিল্লা, ১৮ অক্টোবর ॥ কুমিল্লা সিটি কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের দুই ছাত্র তোফায়েল আহমেদ ও রুবেল রবিবার সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে রুবেল হাসপাতালে চিকিৎসাজনিত অবহেলায় মারা গেছে- এমন অভিযোগ তুলে কলেজের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন এবং হাসপাতালের জরুরী বিভাগসহ কয়েকটি বিভাগে হামলা ও ভাংচুর চালায়। এদিন দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত তোফায়েল জেলার মুরাদনগর উপজেলার পরমতলা গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে ও রুবেল একই গ্রামের আবদুল কাদেরের ছেলে। গুরুতর আহত অপর কলেজছাত্র সায়মনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

বিক্ষুব্ধ ছাত্র ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লা সিটি কলেজের ছাত্র তোফায়েল আহমেদ (১৮), রুবেল (১৮) ও সায়মন (১৭) কলেজে ক্লাস শেষে রবিবার দুপুরে বন্ধুর বাড়িতে দাওয়াত খাওয়ার উদ্দেশ্যে মোটরসাইকেলযোগে যাচ্ছিল। কুমিল্লা-চাঁদপুর সড়কের জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার চাঁদপুর জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি সিএনজিচালিত অটোরিক্সার সঙ্গে ওই মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের চালক কলেজছাত্র তোফায়েল আহমেদ নিহত হয়। এসময় স্থানীয় লোকজন মোটরসাইকেল আরোহী রুবেল ও সায়মনকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পর সেখানে রুবেল মারা যায়। এ খবর পেয়ে কুমিল্লা সিটি কলেজের ছাত্ররা হাসপাতালে ছুটে আসে। ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা জানায়, আহতদের হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসকরা তাদের সময়মতো চিকিৎসা দেয়নি এবং প্রয়োজনীয় রক্ত ও ওষুধ প্রয়োগ করেনি। ফলে বিনা চিকিৎসায় রুবেল মারা যায়।

আহত রুবেলের মৃত্যুতে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করে এবং হাসপাতালের জরুরী বিভাগ, বহির্বিভাগ ও মেডিসিন ক্লাবসহ কয়েকটি বিভাগে হামলা চালিয়ে আসবাবপত্র, কম্পিউটারসহ মূল্যবান জিনিসপত্র ভাংচুর করে। এসময় রোগী ও দর্শনার্থীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিক্ষোভকারী ছাত্রদের লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক মোঃ আলমগীর আহমেদ জানান, চিকিৎসাজনিত অবহেলায় ছাত্রমৃত্যুর অভিযোগ সঠিক নয়, দুই ছাত্রকে মৃত ও অপর ছাত্রকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছিল। আহত ছাত্রকে চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। হাসপাতালে ভাংচুরের বিষয়টি লিখিতভাবে থানায় অবহিত করা হয়েছে। কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মোঃ আব্দুর রব জানান, চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ এনে শিক্ষার্থীরা হাসপাতালে হামলা চালিয়েছিল।