১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বেড়েই চলেছে মালয়েশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্য ঘাটতি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের সঙ্গে বেড়েই চলেছে মালয়েশিয়ার বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ। এক্ষেত্রে পণ্যের শুল্ক ও কোটামুক্ত প্রবেশাধিকার না থাকাকেই দায়ী করে দেশীয় উদ্যোক্তারা বলছেন, দু’দেশের বাণিজ্য সম্পর্ক বাড়ানোর জন্য এসব বাধা দূর করার পাশাপাশি প্রয়োজন রফতানি তালিকায় নতুন পণ্যের সংযোজন।

তবে, মালয়েশিয়া সরকার বলছে, শুধুমাত্র শুল্ক ও কোটামুক্ত বাজারের বিষয়টি নিয়ে নয়, বরং দু’দেশের ব্যবসায়ীরা যাতে যৌথ বিনিয়োগের মাধ্যমে বাণিজ্য সম্প্রসারণ করতে পারে সে ব্যাপারেও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে দেশটি। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে মালয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশের আমদানির পরিমাণ ১ হাজার ২৮৮ মিলিয়ন ডলার মূল্যের পণ্য, বিপরীতে রফতানি মাত্র ১৪০ মিলিয়ন ডলার। এই এক বছরেই দু’দেশের বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ সাড়ে ১১শ’ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। বর্তমানে মালয়েশিয়া ৪৯৪টি ট্যারিফ লাইনের মধ্যে ১৯৭টির আওতায় মাত্র ১৯টি বাংলাদেশী পণ্যকে শুল্কমুক্ত সুবিধা দিচ্ছে। এই অবস্থায় দু’দেশের যৌথ উদ্যোগ আর স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মতবিনিময়ের লক্ষ্যে ঢাকায় আয়োজিত হয়েছে ‘৪র্থ শোকেস মালয়েশিয়া’ প্রদর্শনী। বাংলাদেশকে নিজেদের পণ্য আর সেবা খাতের অন্যতম বড় বাজার উল্লেখ করে এ ধরনের আয়োজনকে অর্থনৈতিক কার্যক্রম সম্প্রসারণের সুযোগ হিসেবেই দেখছেন মালয়েশীয় উদ্যোক্তারা। তবে, মালয়েশিয়ার বাজারে রফতানি পণ্যের শুল্ক ও কোটামুক্ত প্রবেশাধিকার না পেলে অদূর ভবিষ্যতে তাদের বিপাকে পড়তে হবে বলে মতো দেশীয় উদ্যোক্তাদের।