২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিদ্রূপে মৃত্যুঝুঁকি বাড়ে স্থূলকায়দের

মোটা বলে কাউকে অবহেলা করলে তার মৃত্যু ঘনিয়ে আসতে পারে। তবে এই অকাল মৃত্যুর কারণ বাড়তি ওজন নয়, কারণটা বাড়তি ওজনের কারণে অবহেলার শিকার হওয়া। এমনটাই দাবি করছে নতুন এক গবেষণা। সাইকোলজিক্যাল সায়েন্স নামক জার্নালে এই গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

এ বিষয়ে আগের গবেষণাগুলো ইঙ্গিত দিয়েছিল যে, ওজন কমানো নিয়ে কাউকে উত্ত্যক্ত করাটা দীর্ঘ সময়ের ব্যবধানে ওই ব্যক্তির ওপর বিপরীত প্রভাব ফেলে। নতুন এই গবেষণা বিষয়টি প্রমাণ করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা স্টেট ইউনিভার্সিটি কলেজ অব মেডিসিনের বিহেভিয়ারাল সায়েন্স এ্যান্ড সোশাল মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক এ্যাঞ্জেলিনা আর সাটিন বলেছেন, বডি ম্যাস ইনডেক্স যাই হোক, কারও ওজন নিয়ে বিদ্রƒপ করার সঙ্গে তার মৃত্যুর ঝুঁকি বেড়ে যাওয়ার সম্পর্ক রয়েছে। গবেষকরা কয়েকটি পৃথক গবেষণায় অংশ নেয়া ১৮ হাজারের বেশি মানুষের তথ্য পর্যালোচনা করেন। এতে ওজন নিয়ে যারা বিদ্রƒপের শিকার হয়েছেন এবং যারা হননি তাদের মধ্যে তুলনা করা হয়েছে। গবেষকরা দেখেন, ওজন নিয়ে যারা বৈষম্যের শিকার তাদের গবেষকদের নজরদারিতে থাকাকালেই মৃত্যুর সম্ভাবনা ছিল ৬০ শতাংশ। কলেজ অব মেডিসিন’স ডিপার্টমেন্ট অব জেরিয়াট্রিকসের সহযোগী অধ্যাপক এ্যান্তোনিয়ো তিয়েররাচ্ছানো বলেন, আমাদের জানামতে, এবারই প্রথম দেখানো হলো যে ওজন বৈষম্যের কারণে মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়ে।

কিছু মানুষ মনে করে, স্থূলকায়কে তার ওজন নিয়ে বিদ্রƒপ করলে সে হয়ত কষ্ট পাবে। কিন্তু এটি তাকে ওজন কমাতে অনুপ্রাণিত করবে, তার জীবন বাঁচাবে। সাতিন বলেন, এতে হিতে বিপরীতও হতে পারে। মানসিক চাপের পাশাপাশি ওয়েইটিজমের কারণে ওজন আরও বাড়ার এবং অকাল মৃত্যুর ঝুঁকি বৃদ্ধি করে। তিনি বলেন, আমাদের গবেষণা পরিষ্কারভাবে দেখিয়ে দিয়েছে যে, বিদ্রƒপ করার এই পদ্ধতি কোন কাজে আসে না।

-ওয়েবসাইট

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া