২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফিলিপিন্সে টাইফুনের আঘাতে বাড়িঘর লণ্ডভণ্ড

ফিলিপিন্সের উত্তরাঞ্চলে টাইফুন কোপ্পু আঘাত হেনেছে। এতে ওই অঞ্চলের বাড়িঘর মাটির সঙ্গে মিশে গেছে এবং সেখানকার বৈদ্যুতিক তার ছিঁড়ে গেছে। ঝড়ের কারণে কয়েক হাজার স্থানীয় লোক তাদের বাড়িঘর ছেড়ে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিয়েছে। দুর্যোগ সংস্থার কর্মকর্তারা জানান, টাইফুনটি উপকূলীয় অঞ্চলেও আঘাত হানে। এই ঝড়ের প্রভাবে সমুদ্র উত্তাল হয়ে ওঠে এবং ১২ ফুট উঁচু ঢেউয়ের সৃষ্টি হয়। খবর এএফপি’র।

রবিবার সকালে এই টাইফুনটি ধীরগতিতে অগ্রসর হয়ে লুজোন দ্বীপের ক্যাসিগুরান শহরের কাছে আঘাত হানে। কোপ্পুর প্রভাবে তিন দিনব্যাপী প্রবল বর্ষণ হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এর ফলে বড় ধরনের বন্যা ও ভূমিধসের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। সরকারের প্রধান দুর্যোগ সংস্থার প্রধান আলেকজান্ডার পামা জানান, এই টাইফুনের কারণে লুজোনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ১০ হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত কোন প্রাণহানির খবর পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে আমরা বহু বাড়িঘর ধ্বংস, বৈদ্যুতিক তার ছিঁড়ে যাওয়া ও রাস্তার ওপর গাছ উপড়ে পড়ে প্রধান প্রধান সড়ক বন্ধ হওয়ার খবর পেয়েছি।’ ঝড়ের চোখ ঘণ্টাায় মাত্র তিন কিলোমিটার (ঘণ্টায় দুই মাইল) বেগে পশ্চিম দিকে অগ্রসর হচ্ছে। পামা আরও বলেন, ‘এটা খুবই মন্থরগতিতে এগোচ্ছে।’

উত্তরাঞ্চলে এই টাইফুনের কারণে ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে এবং ফেরি চলাচলও বন্ধ রয়েছে। এদিকে, ভূমিধসের আশঙ্কায় পার্বত্য এলাকাগুলোতে বাস সার্ভিস বন্ধ রয়েছে। শুক্রবার প্রেসিডেন্ট বেনিগনো এ্যাকুইনো এক টেলিভিশন ভাষণে ঝড়টি সম্পর্কে সতর্ক করেছেন। ২০১৩ সালে দেশটিতে সুপার টাইফুন হাইয়ানের আঘাত হানার পর এই প্রথমবারের মতো তিনি আবার সাধারণ মানুষকে প্রাকৃতিক এই দুর্যোগ সম্পর্কে সতর্ক করলেন। টাইফুন হাইয়ানের আঘাতে ৬ হাজার ৩০০ জনের বেশি লোক প্রাণ হারায়।