২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ক্যারিয়ারের ১৬তম শিরোপা রাদওয়ানস্কার

ক্যারিয়ারের ১৬তম শিরোপা রাদওয়ানস্কার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ গত মাসেই প্যান প্যাসিফিক ওপেনের শিরোপা জিতেছিলেন এ্যাগ্নিয়েস্কা রাদওয়ানস্কা। সেটাই ছিল চলতি মৌসুমে তার প্রথম কোন টুর্নামেন্ট জয়। এবার এক মাসের ব্যবধানেই দ্বিতীয় শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলেন তিনি। রবিবার টিয়ানজিন ওপেনের ফাইনালে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় বাছাই এ্যাগ্নিয়েস্কা রাদওয়ানস্কা ৬-১ এবং ৬-২ গেমে হারান মন্টেনিগ্রোর ডানকা কোভিনিচকে। রাদওয়ানস্কার ক্যারিয়ারে এটি ১৬তম শিরোপা। সেই সঙ্গে আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হতে যাওয়া ডব্লিউটিএ ফাইনালসে খেলার যোগ্যতাও অর্জন করলেন পোল্যান্ডের এই টেনিস তারকা।

টিয়ানজিন ওপেনে ফেবারিট হিসেবেই খেলতে নামেন রাদওয়ানস্কা। ফাইনালেও তার পক্ষে বাজি ধরেছিলেন টেনিসবোদ্ধারা। শেষ পর্যন্ত তার মুখেই শিরোপা জয়ের হাসি ফুটল। শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে প্রতিপক্ষ ডানকা কোভিনিচকে পরাজিত করতে তার সময় লাগে মাত্র ৫৮ মিনিট। এক ঘণ্টারও কম সময় কোর্টে লড়াই করে প্রতিপক্ষের বিপক্ষে দারুণ জয়ের পর রোমাঞ্চিত রাদওয়ানস্কা। তবে ডানকা কোভিনিচকে কখনই হালকাভাবে দেখেননি তিনি। এ বিষয়ে পোলিশ তারকা বলেন, ‘আমি এখানে থাকে শুরু থেকেই লক্ষ্য করেছি। অসাধারণ পারফর্মেন্স উপহার দিয়েই ফাইনালে উঠেছে সে। তাই আমি কখনও ভাবিনি যে তার বিপক্ষে ম্যাচটা সহজ হবে। তবে তার বিপক্ষে ম্যাচের শুরু থেকেই আমি নিজের সেরাটা দিয়ে খেলার চেষ্টা করেছি। আমি মনে করি ম্যাচ এবং এখানকার পরিস্থিতি সবই আমার পক্ষে গেছে।’

বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের ষষ্ঠস্থানে অবস্থান করছেন রাদওয়ানস্কা। ২০১২ সালে প্রথমবারের মতো কোন গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছিলেন তিনি। কিন্তু সেবার সেরেনা উইলিয়ামসের কাছে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয় তার। তবে সে বছরই টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের দ্বিতীয় স্থানে উঠেছিলেন রাদওয়ানস্কা। যা এখন পর্যন্ত তার ক্যারিয়ার সেরা। এই রাদওয়ানস্কার খেলা তিনি টিভিতে দেখতেন। আর তার বিপক্ষে বাস্তবে কোর্টে খেলতে পেরে আনন্দিত কোভিনিচও। এ বিষয়ে তার অনুভূতি জানাতে গিয়ে মন্টেনিগ্রোর এই খেলোয়াড় বলেন, ‘তিনি টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দশের একজন। গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। তিনি তো সত্যিই অনেক বড় মাপের একজন খেলোয়াড়। তার অনেক ম্যাচই আমি টিভিতে সরাসরি দেখেছি। কিন্তু বাস্তবে যখন কোর্টে তার বিপক্ষে খেললাম এটা সম্পূর্ণরূপেই ভিন্ন।’ রাদওয়ানস্কার কাছে হারলেও নতুন এক মাইলফলক স্পর্শ করলেন কোভিনিচ। মন্টেনিগ্রোর ইতিহাসের প্রথম প্রমীলা খেলোয়াড় হিসেবে কোন ডব্লিউটিএ টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠার রেকর্ড গড়লেন তিনি।

আগামী সপ্তাহ থেকেই শুরু হতে যাচ্ছে বিএনপি পরিবাস ডব্লিউটিএ ফাইনালস। বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ আট খেলোয়াড় এই ইভেন্টে খেলার সুযোগ পান। যে কারণে সিঙ্গাপুরের এই ইভেন্টে খেলতে হলে রাদওয়ানস্কার জন্য টিয়ানজিন ওপেন জয়ের বিকল্প ছিল না। আর ফাইনাল জিতে অনায়াসেই সিঙ্গাপুরে খেলার টিকেট নিশ্চিত করে নিলেন তিনি। সে জন্য দারুণ সন্তুষ্ট এই পোলিশ তারকা। এ বিষয়ে ২৬ বছর বয়সী রাদওয়ানস্কা বলেন, ‘এশিয়ার আসরে খেলার কথা আমি ভাবিওনি। কিন্তু টোকিও ওপেনই আমাকে স্বপ্ন দেখাতে শুরু করে। এরপর টিয়ানজিনের সপ্তাহটাও দারুণ কেটেছে আমার।’