২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অধিকাংশ বাস মিনিবাসে বাড়তি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে

  • গণশুনানিতে অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গণশুনানিতে অংশ নিয়ে অতিরিক্ত পরিবহন ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেছেন নগরীর বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ। তাঁরা বলছেন, বেশিরভাগ বাস ও মিনিবাসে সরকার নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে বাড়তি আদায় করা হচ্ছে। সঙ্কট সমাধানে সরকারকে কঠোর হওয়ার পরামর্শ তাদের। এদিকে সাময়িক জনভোগান্তি হলেও অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআরটিসি) কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠানটির ডিপো ম্যানেজারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে মন্ত্রী বলেন, জনভোগান্তি সাময়িকভাবে যতই হোক, গণপরিবহনগুলো যেন সরকার নির্ধারিত ভাড়া নিতে বাধ্য হয়, সেজন্য অভিযান অব্যাহত থাকবে।

তিনি দাবি করেন, রাজধানীর গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ সরকার নির্ধারিত ভাড়া আদায় করছে। আর ৪০ শতাংশ আদায় করছে অতিরিক্ত ভাড়া। এ সময় বিআরটিসি বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধেও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন ওবায়দুল কাদের। মন্ত্রী একইসঙ্গে বিআরটিসি বাস যেন অপরিষ্কার ও নোংরা না থাকে এবং এ নিয়ে আর যেন কোন যাত্রী অভিযোগ না করেন সেজন্য বিআরটিসির চেয়ারম্যান ও কর্মকর্তাদের পদক্ষেপ নেয়ারও নির্দেশ দেন।

গণশুনানিতে বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ ॥ গণপরিবহনে বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেছেন রাজধানীর শত শত যাত্রী। তারা বেশিরভাগ বাসে সরকার নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে বাড়তি ভাড়া আদায়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি ভাড়া নৈরাজ্য বন্ধে সরকারের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন। রাজধানীর গণপরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধি কেন্দ্র করে যাত্রী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত গণশুনানিতে নগরবাসী বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ, পরামর্শসহ বিভিন্ন দাবি-দাওয়া তুলে ধরেন। তারা বলেন, অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করায় প্রত্যেক যাত্রীর এক হাজার ৫শ’ থেকে দুই হাজার ৫শ’ টাকা পর্যন্ত মাসে বাড়তি ভাড়া গুনতে হচ্ছে।

শুনানিতে অংশ নিয়ে বিশিষ্ট লেখক ও বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির প্রধান উপদেষ্টা সৈয়দ আবুল মাকসুদ বলেন, যে সরকারের ভাড়া বাড়ানোর এখতিয়ার আছে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও যাত্রী হয়রানি বন্ধে সে সরকারকেই কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায় স্বীকার করে পার পাওয়ার কোন সুযোগ নেই। এতে অনিয়ম জেঁকে বসে নৈরাজ্য বেড়ে যাবে। গণপরিবহন বিশেষজ্ঞ পর্যায়ের সকল মহলের মতামত উপেক্ষা করে সরকার কোন প্রকার গণশুনানি না করে একতরফা বিদ্যুত ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করেছে দাবি করে তিনি আরও বলেন, সরকার বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির অবৈধ আবদার রক্ষায় বিআরটিএ ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরসহ আশপাশের জেলায় চলাচলকারী বাস-মিনিবাসের ভাড়া যাত্রীপ্রতি কিলোমিটারে ১০ পয়সা বৃদ্ধি করেছে। কিন্তু মালিকরা চিরাচরিত কায়দায় কয়েকগুণ বেশি ভাড়া নির্ধারণ করে।

নির্বাচিত সংবাদ