১৯ অক্টোবর ২০১৫

সরকারের পদক্ষেপে বার্নিকাটের প্রশংসা

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বাংলাদেশে বিদেশী নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের প্রশংসা করে বলেছেন, হুমকির মুখে বিদেশীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সহযোগিতার অনুরোধে বাংলাদেশ সরকার ব্যাপকভাবে সাড়া দেয়ায় আমরা কৃতজ্ঞ। সোমবার যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের ফেসবুক পেজের অনুসারীদের সঙ্গে আলাপে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন বার্নিকাট।

সম্প্রতি ইতালি ও জাপানের দুই নাগরিক খুন হওয়ার পর বাংলাদেশে নাগরিকদের চলাফেরায় সতর্কতা জারি করে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ কয়েকটি পশ্চিমা দেশ। বিদেশীদের নিরাপত্তায় রাজধানীসহ সারাদেশে তৎপরতা বাড়ায় সরকার। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র শনিবার নতুন করে সতর্কতা জারি করে। বাংলাদেশে পশ্চিমাদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা হতে পারে বলে আগে যে সতর্কতা জারি করা হয়েছিল এখনও সে বিষয়ে নির্ভরযোগ্য তথ্য রয়েছে বলে তাদের হালনাগাদ করা নিরাপত্তা বার্তায় বলা হয়। পরদিন বাংলাদেশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নীতির কঠোর সমালোচনা করে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার পুরোটা সময় যুক্তরাষ্ট্র একই আচরণ করে আসছে।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় ইতালির নাগরিক সিজার তাভেলা হত্যাকা-ের পর ৩ অক্টোবর রংপুরে খুন করা হয় জাপানের নাগরিক হোশি কুনিও। দুটি ঘটনার পরই আইএস হত্যার দায় স্বীকার করে বলে খবর দেয় জঙ্গী তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা ‘সাইট ইন্টিলিজেন্স গ্রুপ’। এ পরিস্থিতিতে হঠাৎ করে বাংলাদেশে জঙ্গী উত্থানের সম্ভাবনা নিয়ে নতুন করে আলোচনা শুরু হয়। তবে ওই দুই খুনে আইএসের সংশ্লিষ্টতার কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি জানিয়ে সরকার বলছে, বাংলাদেশে আইএস বা এ ধরনের কোন জঙ্গী সংগঠনের তৎপরতা নেই।

ফেসবুক আলাপে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আবারও তাভেলা ও কুনিওর পরিবার ও বন্ধুদের প্রতি সমবেদনা জানান। তিনি বলেন, তাদের অকারণ মৃত্যু আমাদের সবার ওপর প্রভাব ফেলেছে। বাংলাদেশে বিদেশীদের উষ্ণ অভ্যর্থনারও প্রশংসা করেন বার্নিকাট।