২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শাক-সবজির দাম কমছে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ হেমন্ত শুরু হয়েছে মাত্র। ভোরে পড়ে অল্প শীত। তা জমতে এখনও অনেক দিন বাকি। তবে রাজারে চলে এসেছে শীতের শাক-সবজি। তাই রাজধানীর পাইকারি বাজারগুলোতে সবজির দামও কমতে শুরু করেছে। এক সপ্তাহের ব্যবধানে অধিকাংশ শাক-সবজির দাম প্রায় অর্ধেকে নেমে এসেছে। রাজধানীর বিভিন্ন পাইকারি বাজার ঘুরে এই দৃশ্য দেখা যায়।

রাজধানীতে রাতেই বেশি জমে পাইকারি বাজারগুলো। ভোর আলো ফুটতে শুরু হয় ভাঙ্গনের সুর। রাত বাড়লেই বাজারগুলোর সবখানেই ভিড় করে সবজি বোঝাই ট্রাক, পিকাপ আর ভ্যান। দেশের নানা প্রান্ত থেকে আসে ফুলকপি, বাঁধাকপি, লাউ, শিম, টমেটো, বরবটি, করলা, মিষ্টি কুমড়া, ঝিঙা, ঢেঁড়শ, বেগুন, শসা, কচু, পেঁপেসহ হরেক রকম সবজি। সঙ্গে থাকে লাল শাক, পুঁইশাক, লাউ শাক, ডাটা শাক, মুলা শাক, শাপলা, পাট শাক, সরিষার শাকেরও সমাহার। তবে শীতের প্রধান শাক ‘পালন শাক’ এখনও বাজারে আসেনি। দুয়েক সপ্তাহের মধ্যে এটিসহ বাজারে শীতের আরও কিছু শাক-সবজির আগমন ঘটবে বলে জানালেন ব্যাপারী ও আড়তদাররা।

রাজধানীতে রাতে বসা পাইকারি বাজারগুলোর মধ্যে কারওয়ান বাজার, যাত্রাবাড়ী ও মিরপুর উল্লেখযোগ্য। এ বাজারগুলোতে রাত ১০টার পর থেকেই আসতে শুরু করে শাক-সবজিসহ বিভিন্ন খাদ্যপণ্য। তবে বেচাকেনার ধুম পড়ে ভোর রাত থেকে, যা চলে সকাল ৭টা-৮টা পর্যন্ত । এর মধ্যে মিরপুরের শাহ আলীর মাজার থেকে একটু পূর্ব দিকের রাস্তার ওপর বসা পাইকারি বাজারটি শাকের বাজার হিসেবেই বেশি পরিচিত। ব্যবসায়ীদের মতে, এটি রাজধানীর সব থেকে বড় শাকের বাজার।

রবিবার রাতে বাজারটিতে গিয়ে দেখা যায়, রাস্তার দু’পাশেই সবুজ আর লালের সমাহার। প্রায় প্রতিটি আড়তের সামনেই লাল শাক, পুঁইশাক, পাট শাক, কলমি শাক, ডাটা শাক, মুলা শাক, সরিষা শাক স্তূপ করে রাখা। শাকের পাশাপাশি বাজারটিতে আছে প্রায় সকল প্রকারের সবজিও।

দেশের বিভিন্ন আঞ্চল থেকে প্রতিদিন রাত ১০টার পর থেকেই এখানে শাক-সবজি নিয়ে জমায়েত হতে থাকেন ব্যাপারীরা। আর ভোররাতে রাজধানীর বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ছুটে আসেন অসংখ্য খুচরা বিক্রেতা ও ক্রেতা।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, ১২ থেকে ১৫ টাকায় বিক্রি হওয়া কচুর দাম কমে বিক্রি হচ্ছে ৬ থেকে ৭ টাকায়। ১০০ থেকে ১১০ টাকায় বিক্রি হওয়া ফুলকপি বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৯০ টাকায়। টমেটো ৯০ টাকা থেকে কমে বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকায়। বরবটি ৫৫ থেকে ৬০ টাকা থেকে কমে বিক্রি হচ্ছে ৪৫ থেকে ৫০ টাকায়। ১০০ টাকার শিম বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৭৫ টাকায়। করলা বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৪৫ টাকায়। যা এক সপ্তাহ আগেও ছিল ৬০ টাকার ওপরে। ৪০ টাকা থেকে মুলার দাম কমে হয়েছে ৩০ টাকা।

এখানকার কুমিল্লা বাণিজ্য ভা-ারের কর্মী রিয়াজন বলেন, তিন-চারদিন আগের তুলনায় প্রায় সকল সবজির দাম অর্ধেকে নেমে এসেছে। আগামী সপ্তাহ থেকে দাম আরও কমতে পারে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, তিন-চারদিন আগে যে কাঁচা কলা ১৮ থেকে ২০ টাকা হালি পাইকারি দরে বিক্রি হয়েছে, এখন তার দাম ১০ থেকে ১২ টাকা। ৩৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হওয়া মিষ্টি কুমড়ার দাম এখন ২৫ টাকা। ৩৮ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হওয়া মুলা বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩২ টাকায়। কমেছে লাউর দামও। যে লাউ দু’দিন আগেও ৬০ টাকায় বিক্রি হয়েছে, তা এখন বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকায়। আরেক বিক্রয় কর্মী জানালেন, সরিষা শাক তিন-চারদিন হলো বাজারে আসতে শুরু হয়েছে। প্রথম দিকে এটি আঁটি প্রতি ১২ থেকে ১৫ টাকায় পাইকারি দরে বিক্রি হয়েছে। এখন তা কমে দাঁড়িয়েছে ৮ টাকায়। কমেছে অন্যান্য শাকের দামও।

মানিকগঞ্জের সবজি ব্যবসায়ী হালিম জানান, গত বৃহস্পতিবারের তুলনায় আজ (রবিবার) প্রায় সব সবজির দাম অর্ধেক কমেছে।

তিনি জানালেন, কিছুদিন আগে ১০ থেকে ১২ টাকায় বিক্রি হওয়া লাল শাকের দাম এখন ৫ টাকা। মুলা শাকও ১০-১২ টাকা থেকে কমে চলে এসেছে ৫ টাকায়। ১৫ থেকে ১৬ টাকায় বিক্রি হওয়া ডাটা শাকের দাম কমে বিক্রি হচ্ছে ৮ থেকে ১০ টাকায়। লাউ শাকের দাম ৩০ থেকে ২০ টাকায় নেমে এসেছে।

এদিকে, রাজধানীর সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার কারওয়ান বাজারেও দেখা গেছে সবজির বিপুল সমাহার। এ বাজারটির ব্যবসায়ীরাও জানালেন, শীতের শাক-সবজি আসতে শুরু করায় কমতে শুরু করেছে দামও।