১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ক্ষুব্ধ ধোনি দুষলেন ব্যাটসম্যানদেরই

ক্ষুব্ধ ধোনি দুষলেন ব্যাটসম্যানদেরই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দু-দুটি ম্যাচে জয়ের অবস্থায় থেকেও শেষ পর্যন্ত হেরে যাওয়ায় দলের ব্যাটসম্যাদের ওপর ক্ষুব্ধ মহেন্দ্র সিং ধোনি। ভারত অধিনায়ক বলেন, ‘ব্যাটিং লাইনে পাঁচ, ছয় ও সাত নম্বর পজিশনে এখনও আমাদের ভাল ব্যাটসম্যানের অভাব রয়েছে। বুঝে উঠতে পারছি না, এই পজিশনে ভাল ব্যাটিং করে কে দলকে জেতাতে পারবে!’ নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ২৭০ রানের স্কোর গড়ে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা। অতীত বলে, সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এই রান টপকানো এমন কোন কঠিন কাজ নয়। ভারত এগোচ্ছিল সেই পথে। এক পর্যায়ে ২ উইকেটে ১৯২ রান তোলার পরও ৬ উইকেটে ২৫২ রানে থেমে যায় স্বাগতিকদের সংগ্রহ! ধোনির দল হারে ১৮ রানে। পাঁচ ওয়ানডের সিরিজে পিছিয়ে পড়ে ২-১এ।

‘তিন নম্বরে অজিঙ্কা রাহানে ভাল ব্যাট করছে কিন্তু পিছিয়ে গিয়ে অন্য পজিশনে বিরাট কোহলি প্রত্যাশিত রান পাচ্ছে না। অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে আমি নিজে ওপরের দিকে উঠে এসেছি। এটা ঠিক গত কয়েক ম্যাচে ব্যাটিং অর্ডারে ব্যাপক পরীক্ষা-নিরীক্ষা হচ্ছে। এটা সময়ের প্রয়োজনেই করতে হচ্ছে। লোয়ার-ডাউনে যোগ্য ব্যাটসম্যানের অভাবটা প্রকট হয়ে উঠেছে। পাঁচ, ছয় ও সাত নম্বরে ধারাবাহিক পারফর্মার তৈরি হয়নি। বিশেষ করে সাত নম্বরে এমন একজন ব্যাটসম্যান চাই, যে দলের প্রয়োজনে অল্প বলে চমৎকার একটা ইনিংস খেলে দিতে পারবে। সত্যি বলতে এখনও আমরা ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে বড় রকমের সমস্যায় রয়েছি।’ গুরুত্বপূর্ণ তৃতীয় ম্যাচে হারের পর বলেন ধোনি।

এক সময় ধোনি নিজে ছয়-সাতে ব্যাট করতেন। ধারাবাহিক সাফল্যের স্বীকৃতি স্বরূপ আধুনিক ওয়ানডের সেরা ফিনিশারই বলা হতো তাকে। কিন্তু শচীন টেন্ডুলকর, বীরেন্দর শেবাগ, গৌতম গাম্ভীরদের মতো তারকার অভাবে এখন নিজেই উপরে উঠে ব্যাটিং করছেন। ইন্দোরের দ্বিতীয় ম্যাচে ৯২ রানের অসাধারণ এক ইনিংস খেলে একাই দলকে জিতিয়েছিলেন। কিন্তু সেটি প্রতিদিন হওয়ার নয়। অন্য কাউকে দায়িত্ব নিতে হবে। লোয়ার-ডাউন নিয়ে কথা ওঠায় উঠে আসছে রবিন্দ্র জাদেজা আর যুবরাজ সিংয়ের নামও। ভারতীয় নির্বাচকরা প্রথম তিন ওয়ানডের জন্য দল বেছে নিয়েছিলেন। বাকি দুই ম্যাচের জন্য তাই নতুন করে দল দিতে হবে। বৃহস্পতিবার চেন্নাইর চতুর্থ ওয়ানডেটি ক্রিকেট মোড়লদের জন্য ‘ডু অর ডাই’। হারলেই সিরিজ শেষ!

ঘরোয়া ক্রিকেটে দুরন্ত নৈপুণ্যে নতুন করে দৃষ্টি কেড়েছেন জাদেজা ও যুবরাজ। ২৪ উইকেট নিয়ে রঞ্জির কাপে শীর্ষ শিকারি জাদেজা। আর ২০১৪ টি২০ বিশ্বকাপের পর থেকে বাইরে থাকা যুবরাজ গুজরাটের বিপক্ষে খেলেছেন ১৮৭ রানের ম্যারাথন ইনিংস। অমিত মিশ্র, অক্ষর প্যাটেল ও হরভজন সিংÑ তৃতীয় ওয়ানডেতে তিন স্পিনার নিয়ে খেলে ভারত। প্রতিপক্ষকে পৌনে তিন শ’র নিচে বেঁধে রাখতে পেরে তাদের হয়েই কথা বলেছেন ধোনি, ‘এই উইকেটে প্রোটিয়াদের ২৭০Ñএ বেঁধে রাখাটা ভাল পারফর্মেন্সই। বিশেষ করে স্পিনাররা সবাই ভাল করেছে। মিশ্র দারুণ ফর্মে আছে, আমার মনে হয় ও খারাপ করেনি। তিন স্পিনার খেলানোর কারণেই প্রতিপক্ষ মিডলঅর্ডারকে চাপে ফেলা গেছে। আইডিয়াটা ভালই।’

নিজেদের ব্যাটিংয়ে শেষদিকে চাপে পড়ে যাওয়ার ব্যাখ্যায় উইকেটের আচরণকে দায়ী করে ধোনি আরও বলেন, ‘প্রথম ১০ ওভারে আমরা যথেষ্ট রান পাইনি। পরের দিকে উইকেট মন্থর হয়ে এসেছিল। হয় তো ডিউ ফ্যাক্টর কাজ করছিল। যার ফলে বড় শট খেলা কঠিন হয়ে যাচ্ছিল। বিরাট আর আমি উইকেটে সেট হয়ে গিয়েও বল ঠিকমতো মাঝ-ব্লেডে আনতে পারছিলাম না। এখানে আউটফিল্ডও তো বেশ বড়। তাই বিগ শট খেলতেই হতো। ঘুরে ফিরে একটা বিষয় সামনে উঠে আসছে, সেটি হচ্ছে, লোয়ার-ডাউনে ভাল ব্যাটসম্যান চাই। যে বড় শটে অল্প বল মোকাবেলায় কার্যকর একটা ইনিংস খেলে দিতে পারবে।’